এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > 19 শে জানুয়ারি ব্রিগেড সমাবেশকে টেক্কা দিতে পাল্টা মোদিকে এনে ব্রিগেডের ডাক বিজেপির, জোর যুদ্ধ বঙ্গে

19 শে জানুয়ারি ব্রিগেড সমাবেশকে টেক্কা দিতে পাল্টা মোদিকে এনে ব্রিগেডের ডাক বিজেপির, জোর যুদ্ধ বঙ্গে

আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে রাজ্যে তিনটি পৃথক পৃথক রাজনৈতিক দলের ব্রিগেড সমাবেশের সাক্ষী হতে চলেছে এরাজ্য। একদিকে 19 জানুয়ারি পূর্বঘোষিত কর্মসূচী অনুযায়ী ব্রিগেড সমাবেশ করতে চলেছে যেমন তৃণমূল কংগ্রেস, ঠিক তেমনি সেই তৃণমূলকে পাল্টা চাপে রেখে এবার 7 ফেব্রুয়ারি ব্রিগেড সমাবেশের ডাক দিল বিজেপিও। তবে শুধু বিজেপি বা তৃণমূলই নয়, রাজনৈতিক ফায়দা তোলার তোলার জন্য তৈরি হচ্ছে বাম শিবিরও।

সূত্রের খবর, আগামী 3 ফেব্রুয়ারি ব্রিগেড সমাবেশের ডাক দিয়েছে আলিমুদ্দিন স্ট্রিটের নেতারাও। ফলে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের আগে এই রাজ্যে ফের একটি ব্রিগেড নিয়ে জমজমাট রাজনীতি দেখতে চলেছে বঙ্গবাসী। তবে এই ব্রিগেড সমাবেশ নিয়ে যে দুই দলের তৎপরতা সবথেকে বেশি তা হল রাজ্যের বর্তমান শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেস এবং বিরোধী দল বিজেপি। অনেকে বলছেন, এ আসলে স্নায়ুযুদ্ধের লড়াই।

একদিকে তৃণমূলের ব্রিগেড সমাবেশের প্রধান বক্তা হিসেবে যেমন উপস্থিত থাকবেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়, ঠিক তেমনি বাংলায় বিজেপির ব্রিগেড সমাবেশে প্রধান বক্তা হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, এই বাংলাকে প্রথম থেকেই এবার টার্গেট করে এসেছে বিজেপি।

তাই “গণতন্ত্র বাঁচাও” নামক রথযাত্রার কর্মসূচি নিলেও আদালতের চাপে এখন সেখান থেকে পিছিয়ে আসতে হয়েছে গেরুয়া শিবিরকে। তবে সেই রথযাত্রার ব্যাপারে সম্মতি পাওয়া যাবে কি না তা নিয়ে আজ হাইকোর্টে রায় বেরোতে পারে বলে খবর।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, বিজেপির রথযাত্রার আদৌ হবে কি হবে না সেই ব্যাপারে আজই হাইকোর্ট নিজের রায়ে সবকিছু স্পষ্ট করতে পারে। তবে আইনি জটিলতার জেরে এই রথযাত্রায় দীর্ঘসূত্রিতা হলে বাংলাকে টার্গেট করা বিজেপি যাতে অন্যান্য কর্মসূচি নিয়ে রাজ্যের শাসক দল তৃণমূলের বিরুদ্ধে রাস্তায় আন্দোলনে ঝাপাতে পারে সেজন্য এবার ব্রিগেডকেই পাখির চোখ করছেন গেরুয়া শিবিরের নেতারা।

Top
error: Content is protected !!