এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > ভোটার তালিকায় নাম তোলাকে কেন্দ্র করে বিজেপি-তৃণমূল চাপানউতোর

ভোটার তালিকায় নাম তোলাকে কেন্দ্র করে বিজেপি-তৃণমূল চাপানউতোর

ভোটার তালিকায় নাম তুলতে যোগাযোগ করুন দলীয় কার্যালয়ে৷ যেমন ঘোষণা তেমন কাজ।জমে যায় ভিড় আর এই নিয়েই ফের শুরু বিজেপি তৃণমূলে চাপানউতোর। এদিন সকাল থেকে ভোটার তালিকায় নাম তুলতে বালুরঘাট ব্লকের অন্তর্গত কামালপুরে অবস্থিত বিজেপির কামালপুরের কার্যালয়ে লাইন পড়ে যায়। এরপর রাজনৈতিক দলের কার্যালয় থেকে নির্বাচনী তালিকায় ভোটারদের নাম নথিভুক্ত করার খবরে এলাকায় শোরগোলের পাশাপাশি প্রশাসনিক মহলে ও এই ঘটনা যথেষ্ট প্রভাব বিস্তার করে ।এই নিয়ে এদিন বালুরঘাট পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি তৃণমূলের প্রবীর রায় রীতিমতো বিজেপির দিকে আঙ্গুল তুলে বলেন, “ভোটের আগে বাংলাদেশি নাগরিকদের মন জয় করার চেষ্টা করেছে বিজেপি।” পাশাপাশি তিনি বলেন,” বিজেপির এই প্রচারে এলাকার মানুষের মধ্যে বিভ্রান্তির সৃষ্টি হয়েছে৷

আরো নতুন খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

বাংলাদেশ সীমান্ত লাগোয়া গ্রামের মাঝ বয়সী মানুষজন যাঁরা এতদিনেও ভোটার হতে পারেনি৷ তারাই এদিন সকাল থেকে বিজেপির কামালপুর কার্যালয়ে ভিড় জমাতে দেখা গিয়েছে৷ সাধারণের মধ্যে প্রশ্ন উঠেছে তবে কি বিজেপির কার্যালয়ে গেলেই সহজে ভোটার তালিকায় নাম তোলা যাবে?”এবং এই বিষয়ে অবিলম্বে জেলা নির্বাচন দফতরে অভিযোগ জানাবেন বলে জানিয়েছেন।আর এই ঘটনার পরে বালুরঘাট সদর মহকুমা শাসক ইশা মুখোপাধ্যায় অবিলম্বে দলীয় কার্যালয় থেকে ভোটার তালিকায় নাম তুলে দেওয়ার কর্মসূচী বন্ধ করার নির্দেশ দিয়েছেন। ইশা দেবী বলেন, ” ভোটার তালিকায় নাম তোলার জন্য প্রত্যেক নির্বাচন কমিশনের নির্দিষ্ট দফতর রয়েছে৷ যেখানে প্রয়োজনীয় নথি পেশ করিয়ে সহজে নাম তোলার ব্যবস্থা রয়েছে।” এদিকে বিজেপি গোটা ঘটনাকে তৃণমূল বেশি মাত্রায় বিভ্রান্তি ছাড়াচ্ছে বলে দাবি করছে।.এই নিয়ে বিজেপির জেলা সভাপতি শুভেন্দু সরকার গোটা বিষয়টিকেই ভিত্তিহীন বলে দাবি করেছেন। তিনি জানিয়েছেন,যে ভোটার তালিকায় মোটেও নাম তুলে দেওয়ার বিষয় নয়৷ দেশ জুড়ে তাঁদের মিলেনিয়াম ভোটার্স ক্যাম্প কর্মসূচী পালিত হচ্ছে৷ যে ক্যাম্পের মাধ্যমে শুধুমাত্র ১৮বছর বয়সীদের অনলাইনে ভোটার তালিকায় নাম তোলার আবেদন করিয়ে দেওয়া হচ্ছে ৷যাঁরা আবেদন করছেন তাঁদের নাম পঞ্চায়েত ভোটের আগে আর ভোটার তালিকায় উঠবে না৷ কারণ আবেদন করার পর নির্বাচন কমিশনের নোটিফিকেশন অনুযায়ী শুনানী ও আঁধার কার্ড সহ অন্যান্য আসল নথিপত্র পরীক্ষার পর তবেই তালিকায় নাম উঠবে ৷আর এই কর্মসূচীর একটা অন্যতম উদ্দেশ্য হলো ভোটাধিকার সম্পর্কে নতুন ভোটারদের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি করা।এতে বিভ্রান্তির কিছু নেই।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!