এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > পুরুলিয়া-ঝাড়গ্রাম-বাঁকুড়া > বিজেপি করার অপরাধেই কি বদলি,শিক্ষককে বাঁচাতে ঝাপিয়ে পরলো স্কুলের খুদেরা

বিজেপি করার অপরাধেই কি বদলি,শিক্ষককে বাঁচাতে ঝাপিয়ে পরলো স্কুলের খুদেরা

ফের সংবাদ শিরোনামে পুরুলিয়া এবারেও আক্রান্ত বিজেপি নেতা এবং অবশ্যই অভিযোগের তীর শাসক দলের দিকে। এদিন পুরুলিয়া জেলার মধুতটী হাইস্কুলে একমাত্র বাংলার শিক্ষক কমলাকান্ত হাঁসদাকে বদলি-র নির্দেশিকা নিয়ে উত্তাল হলো স্কুল চত্বর। জানা যাচ্ছে এদিন বাংলার শিক্ষক কমলাকান্ত হাঁসদাকে বদলি-র জন্য একটি সরকারি নির্দেশিকা এসে পৌঁছায় স্কুলে। সেই নির্দেশিকায় বলা হয় পশ্চিম মেদিনীপুরের একটি বিদ্যালয়ে তাঁকে বদলি করা হলো এবার থেকে তিনি সেখানেই শিখ্যাকাটা করবেন ও খুব শীঘ্রই যেন সেখানে যোগদান করেন।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

খবর ছড়িয়ে পড়তেই হৈচৈ শুরু হয় স্কুলে। এরপর সকলের প্রিয় শিক্ষককে যাতে স্কুল থেকে যেতে না হয় সেই কারণে বিক্ষোভ শুরু করে স্কুলের ক্ষুদে পড়ুয়ারা। উত্তাল হয়ে ওঠে স্কুল চত্বর, বন্ধ হয়ে যায় পঠন-পাঠন। স্কুলের গেটের বাইরে থেকে তালা ঝুলিয়ে দেয় তারা। আটকে পড়েন শিক্ষক-শিক্ষিকারা। এদিকে স্কুলের প্রধান শিক্ষক নরেশ চন্দ্র চৌধুরী জানান, এটাতো সরকারি নির্দেশিকা। এখানে স্কুল কর্তৃপক্ষের কিছু করার নেই।

কিন্তু পড়ুয়াদের বারবার এ কথা বলা সত্বেও তারা বুঝছে না। বার বার অনুরোধ করা সত্ত্বেও বিক্ষোভ তুলে নিচ্ছে না। তাদের দাবি বদলে নির্দেশিকা প্রত্যাহার করতে হবে তা না হলে বিক্ষোভ আরও দীর্ঘতর হবে। এদিকে শিক্ষক কমলাকান্তবাবু দাবি করেছেন যে তিনি একজন সক্রিয় বিজেপি কর্মী তাই তার উপরে আক্রোশ মেটাতে তাকে বদলি করে দেওয়া হয়েছে। তিনি নিজে বদলির আবেদন করেননি। এদিকে বিক্ষোভ এমন জায়গায় এসে পৌঁছায় তাকে সামাল দিতে স্কুলে পৌঁছান রঘুনাথপুর ১নম্বর ব্লকের জয়েন্ট BDO ।

এদিকে এই নিয়ে মন্ত্রী শান্তিরাম মাহাতো এই নিয়ে জানান এই সমস্ত অভিযোগ ভিত্তিহীন। শিক্ষার সঙ্গে রাজনীতির কোনো সম্পর্ক নেই, এটা রুটিনমাফিক বদলি এবং এটা শিক্ষাদপ্তর নিয়ম মেনেই করেছে। এতে তৃণমূলের কোনো হাত নেই। কিন্তু পড়ুয়াদের দাবি অতশত তারা বোঝে না তাদের শুধু তাদের স্কুলের প্রিয় শিক্ষককে পাশে চাই। কমলাকান্ত বাবুকে কোথাও যেতে দেবে না তারা। হয় নির্দেশিকা প্রত্যাহার করতে হবে নয়তো বৃহত্তর আন্দোলনের পথে হাটবে তারা পড়ুয়ারা এমনটা পরিষ্কার জানিয়ে দিয়েছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!