এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > বিজেপি রাজ্যে ক্ষমতায় এলে কি ‘বদলের’ পাশাপাশি ‘বদলাও’ হবে?

বিজেপি রাজ্যে ক্ষমতায় এলে কি ‘বদলের’ পাশাপাশি ‘বদলাও’ হবে?

২০১১ সালে যখন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্ত্বে তৃণমূল কংগ্রেস দীর্ঘ ৩৪ বছরের বাম জমানার পতন ঘটিয়ে রাজ্যে ক্ষমতায় এসেছিল তখন দলনেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দলীয় কর্মীদের উদ্দেশ্যে বার্তা দিয়েছিলেন, বদলা নয়, বদল চাই। যদিও কিছুদিন আগেই তৃণমূল কংগ্রেস ত্যাগ করে বিজেপিতে যোগ দেওয়া নেতা মুকুল রায় প্রকাশ্য মঞ্চ থেকে অভিযোগ করেন, মুখ্যমন্ত্রীর সেই দাবির ‘বদল’ চোখে পড়ছে সামান্যই, রাজ্যজুড়ে শুধু ‘বদলাই’ ঘটে চলেছে। আর তার সঙ্গে ডাক দেন ‘পরিবর্তনের পরিবর্তন’ করার। কিন্তু বিশেষজ্ঞ মহলে প্রশ্ন উঠে গেছে বিজেপি যদি রাজ্যে সত্যিই রাজ্যে ক্ষমতায় আসে তাহলে কি বদলের পাশাপাশি বদলাও চলবে পুরোদমে?
আর এই প্রশ্নের পিছনে সাম্প্রতিককালে বিজেপি নেতাদের বিভিন্ন বক্তব্য। মুকুল রায় গতকাল কলকাতা থেকে কার্যত হুঙ্কার ছেড়েছেন, যেসব সরকারি অফিসাররা এখন বিজেপির সঙ্গে অসহযোগিতা করছেন, সেসব হিসেবে রাখছেন। তাঁর সুরে সুর মিলিয়ে রাজ্য নেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায় রাজ্য সরকারি কর্মচারী ও পুলিশের উদ্দেশ্যে হুঙ্কার ছাড়েন, সব হিসেবে তোলা থাকছে বলে।
আর আজ বিজেপির আর এক রাজ্যনেতা জয় বন্দ্যোপাধ্যায় তো সরাসরি ক্ষমতায় এলে মারের হুমকিই দিয়ে বসলেন। প্রসঙ্গত, গত ৩০ তারিখ রাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তে বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেছিল বিজেপি। বিজেপির তরফে অভিযোগ ওই দিন লাউদোহা বিডিও অফিসের সামনে বিজেপি কর্মীদের উপরে চড়াও হয় তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতিরা এবং এক কর্মীর মালাইচাকি ভেঙে ১০ টুকরো করে দেওয়া হয়েছিল। সেই প্রসঙ্গ উত্থাপন করে জয় ব্যানার্জী বলেন, তৃণমূল যেমন দেবে, আমরাও ঠিক তেমনই ফিরিয়ে দেবো, অপেক্ষা শুধু উপযুক্ত সময়ের। শুনলাম আমাদের এক কর্মীকে মেরে মালাইচাকি ভেঙে ১০ টুকরো করে দেওয়া হয়েছে। আমরা যখন মারব তখন কিন্তু টুকরো করব না, গুঁড়িয়ে দেবো। মালাইচাকি ভাঙলে তা জোড়া লাগানো যায়, আমরা এমন অবস্থা করব যে প্রতিস্থাপন করতে হবে। আগাম ১০টা করে বিকল্প মালাইচাকি অর্ডার করে রাখুন, কাজে লাগবে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!