এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > “তুমি বিশ্বাসঘাতক” বিজেপি সাংসদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে পোস্টকার্ড, চাঞ্চল্য রাজ্যে

“তুমি বিশ্বাসঘাতক” বিজেপি সাংসদের বিরুদ্ধে অভিযোগ তুলে পোস্টকার্ড, চাঞ্চল্য রাজ্যে

আবার পোস্টকার্ড পাঠিয়ে প্রতিবাদের রেওয়াজ ফিরল রাজ্যে। এইবার পোস্টকার্ডের প্রেরক পশ্চিম বর্ধমান জেলা সিপিআই(এম)।কার্ড প্রাপকের ঠিকানা- প্রকাশ নিবাস, বি সি রোড(পশ্চিম), পটনা।পোস্টকার্ডের বয়ান, “সুরিন্দর সিং আলুওয়ালিয়া তুমি বিশ্বাসঘাতক।” একটা দুটো নয় ,প্রায় ২৫০০০ এমন পোস্টকার্ড পেতে চলেছেন দুর্গাপুর-বর্ধমান কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ।

প্রসঙ্গত, কেন্দ্রে দ্বিতীয়বারের জন্য ক্ষমতায় আসার পরেই বিজেপি সরকার গোটা দেশের বেশ কিছু রাষ্ট্রায়াত্ব সংস্থার বেসরকারিকরণের উদ্যোগ নিয়েছে। তার মধ্যে দুর্গাপুরের ASP কারখানা ও একটি যার বিলগ্নিকরণের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। বিলগ্নিকরণের জন্য আবেদন জানিয়ে দরপত্র জমা দেওয়ার শেষ তারিখ 2 অগাস্ট ধার্য করা হয়েছে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

এরপরেই কেন্দ্রের এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতায় নেমেছে সিপিআই(এম). পশ্চিম বর্ধমান জেলার সিপিআই(এম) নেতৃত্বের দাবি লোকসভা নির্বাচনের আগে স্টিল অথরিটি অফ ইন্ডিয়ার(SAIL) হাতে থাকা দুর্গাপুরের ASP(অ্যালয় স্টিল প্ল্যান্ট) কারখানার বিলগ্নিকরণ আটকানোর প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন সুরিন্দর সিং আলুওয়ালিয়া।কিন্তু নির্বাচনে জিততেই নিজের প্রতিশ্রুতির উল্টো পথে হাঁটছে তাঁর দল।

সিপিআই(এম) পশ্চিম বর্ধমান জেলা কমিটির সদস্য পঙ্কজ রায় সরকার বলেন, “আজ সকাল থেকেই দুর্গাপুর পোস্টঅফিস থেকে সুরিন্দর সিং আলুওয়ালিয়ার ঠিকানায় পোস্টকার্ড পাঠান শুরু হয়ে গেছে। ২ অগাস্ট দরপত্র দাখিলের শেষদিন। তাই ওই দিন আমরা ২৫ হাজার পোস্টকার্ড পাঠাব।”

পোস্টকার্ড পাঠিয়ে প্রতিবাদের রেওয়াজ অবশ্য এই রাজ্যে সাম্প্রতিককালে চালু করেছিল বিজেপি।মেদিনীপুরে জয় শ্রী রাম ধ্বনি শুনে মেজাজ হারানো মুখ্যমন্ত্রীর হরিশ চ্যাটার্জীর বাসভবনের ঠিকানায় জয় শ্রী রাম লেখা কার্ড পাঠাতে থাকে বিজেপি যুব মোর্চা। পাল্টা জয় বাংলা স্লোগান লিখে প্রধানমন্ত্রীর দপ্তরে পোস্টকার্ড পাঠিয়েছিল তৃণমূল ছাত্র পরিষদ. সেই প্রসঙ্গে বাম নেতারা বলছেন, তাঁরা তৃণমূল বা বিজেপির মত ঐসব সাম্প্রদায়িকতার রাজনীতি করেন না. মানুষের রুটি রুজি রক্ষার স্বার্থে তাঁদের এই কর্মসূচি।

Top
error: Content is protected !!