এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > লোকসভাতে কেন্দ্রীয়বাহিনী দিয়ে অবাধ ভোট, একটি আসনেও ‘নাকি’ জিতবে না তৃণমূল

লোকসভাতে কেন্দ্রীয়বাহিনী দিয়ে অবাধ ভোট, একটি আসনেও ‘নাকি’ জিতবে না তৃণমূল

Priyo Bandhu Media


রাজ্যের সদ্য-সমাপ্ত পঞ্চায়েত নির্বাচনে রাজ্য-জুড়ে ঘাসফুল শিবিরের জয়জয়কার, আর তার সাথেই রাজ্যের প্রধান বিরোধী দল হিসাবে বিজেপির উত্থান। আর এই উত্থানের রেশ ধরে রেখেই আগামী বছরের লোকসভা নির্বাচনের দামামা বাজিয়ে দিল গেরুয়া শিবির। পঞ্চায়েত নির্বাচনের ফলের রেশ ধরে জেলায় জেলায় কর্মিসভা শুরু করে দিয়েছে বিজেপি, সেখানে পঞ্চায়েতে জয়ী প্রার্থীদের তো বটেই, ডাকা হচ্ছে পরাজিত প্রার্থীদের, এমনকি শাসকদলের ‘সন্ত্রাসের’ মুখে পরে মনোনয়ন জমা না দিতে পৰ প্রার্থীদেরও। বিজেপির রাজ্য শীর্ষনেতৃত্ত্বের তরফে সেখানে দলীয় কর্মীদের স্পষ্ট জানানো হচ্ছে, পঞ্চায়েতে ভালো ফল হয়েছে, কিন্তু আরো ভালো ফল হত মানুষ ‘নিজের ভোট নিজে’ দিতে পারলে। কিন্তু শাসকদলের ‘লাগামহীন সন্ত্রাসের’ ফলে তা সম্ভব হয় নি।

এর সঙ্গেই দলীয় কর্মীদের উদ্দেশ্যে জানানো হচ্ছে, লোকসভা নির্বাচন হবে কেন্দ্রীয়বাহিনী দিয়ে, আর তাই সেখানে পঞ্চায়েতের মতো ‘সুবিধা’ পাবে না শাসকদল। কেন্দ্রীয়বাহিনীর ‘মশারি’ টাঙানো হলেই, আগামী লোকসভা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের একটা মশাও আর ছাপ্পা ভোট দিতে পারবে না! বিজেপি রাজ্যনেতারা কর্মীদের আরো জানিয়েছেন, কেন্দ্রীয়বাহিনী তৃণমূল কংগ্রেসের ‘তাঁবেদারি’ করবে না, জনগণের পাশে থাকবে। বিজেপির তরফে আরো জানানো হয়েছে, রাজ্যের ‘অগণতান্ত্রিক’ পরিস্থিতি স্বয়ং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর নজরে এসেছে, তিনি এই নিয়ে রীতিমত উদ্বিগ্ন। আর তাই দরকার হলে রাজ্যে ‘রাষ্ট্রপতি শাসন’ জারি করে লোকসভা নির্বাচন হবে। অবাধ ভোট হলে তৃণমূল একটি আসনেও জিততে পারবে না, ফলে বিজেপি কর্মীদের আরো বেশি ঐক্যবদ্ধ হয়ে লড়াই করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে বিজেপির রাজ্য নেতৃত্ত্বের তরফে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!