এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > ইতিহাস সৃষ্টি করে সভাপতির দায়িত্ত্ব নিয়েই বড়সড় ঘোষণা বিজেপি হেভিওয়েটের

ইতিহাস সৃষ্টি করে সভাপতির দায়িত্ত্ব নিয়েই বড়সড় ঘোষণা বিজেপি হেভিওয়েটের

কোচবিহার জেলা বিজেপিতে এই প্রথম কোনো মহিলা সভাপতি হিসাবে দ্বায়িত্ব নিলেন। যা ঘিরে চরম উন্মাদনা জেলা বিজেপি। সম্প্রতি কোচবিহারের বিজেপি জেলা সভাপতি নিখিলরঞ্জন দে কে সরিয়ে দেয় রাজ্য নেতৃত্ব। আর এরপরই নতুন সভাপতি হিসাবে নাম ঘোষনা করা হয় মালতী রাভার। এদিন দলীয় কার্যালায়ে সেই মালতী রাভার হাতে সমস্ত দ্বায়িত্ব অর্পন করেন প্রাক্তন সভাপতি নিখিলরঞ্জন দে।

এদিনের এই অনুষ্টানে উপস্থিত ছিলেন অনিল মালাকার, হেমচন্দ্র বর্মন, ছিটমহল আন্দোলনের নেতা দিপ্তীমান সেনগুপ্ত, প্রাক্তন বিধায়ক অশোক মন্ডল সহ জেলা বিজেপির অন্যান্য নেতৃত্বরা। প্রত্যেকেই এদিন নতুন সভাপতিকে সংবর্ধিত করেন। তবে জেলায় বিজেপির ইতিহাসে মহিলা সভাপতি প্রথম হলেও অনেকে এ নিয়ে আশঙ্কায় করেছেন। কারন, রাজ্যে বর্তমান পরিস্থিতিকে মোকাবিলা করতে আদৌ কি সক্ষম হবেন এই মালতী রাভা? তবে যে যাই মনে করুক না কেন!

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে।

এ প্রসঙ্গে এদিনের সংবর্ধনা অনুষ্টানে তিনি বলেন, “অনেকে ভাবছেন মহিলা জেলা সভাপতি কি আদৌ পারবেন? মাথায় রাখবেন, রাজ্যের মহিলা মুখ্যমন্ত্রীকে ঠেকাতে হলে এগিয়ে আসতে হবে মহিলা দেরকেই।” পাশাপাশি এদিন দ্বায়িত্ব পাওয়ার পরই বুথস্তর পর্যন্ত কর্মীদের পৌছোনোর নির্দেশ দিয়েছেন মালতীদেবী। এদিন তিনি বলেন, “কেউ কেউ ভাবছেন পদ থাকছে কাজ করব, আর না থাকলে করব না, এই ধারনা ত্যাগ করুন।দলকে শক্তিশালী করুন।”

এদিন কোচবিহার জেলার বিজেপির গোষ্টীকোন্দল নিয়ে নতুন সভাপতিকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, “কোনোও বিভাজন নেই। নবীন প্রবীন সব একযোগে কাজ করবে।” ভবিষ্যতে জেলা কমিটিতে রদবদল হওয়ার ব্যাপারেও ইঙ্গিত দিয়েছেন বিজেপির কোচবিহার জেলার সভাপতি। সব মিলিয়ে কোচবিহার জেলায় এই প্রথম কোনো মহিলা সভাপতি বিজেপির দ্বায়িত্ব নিলে তিনি কতটা শাসকদলের বিরুদ্ধে লড়াই দিতে পারবেন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!