এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বিজেপির বিরুদ্ধে একজোট হতে অবিজেপি মুখ্যমন্ত্রীদের চিঠি মমতার, জোর গুঞ্জন

বিজেপির বিরুদ্ধে একজোট হতে অবিজেপি মুখ্যমন্ত্রীদের চিঠি মমতার, জোর গুঞ্জন

 

প্রথম থেকেই নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে নিজের মতামত জানিয়ে আসছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ইতিমধ্যেই কলকাতার রাজপথে কখনও পদযাত্রা, আবার কখনও বা সভার মধ্যে দিয়ে নিজের প্রতিবাদ জারি রেখেছেন তিনি। তবে সারাদেশে আইন হয়েছে।

তাই একা তিনি প্রতিবাদ করলে যে কাজে দেবে না, তা ভালই জানেন মমতা বন্দোপাধ্যায়ের। আর তাইতো নিজের প্রতিবাদের সুরকে আরও চওড়া করতে এবার বিজেপি বিরোধী দলগুলোর মুখ্যমন্ত্রীদের এক ছাতায় আনার চেষ্টা করলেন তৃণমূল নেত্রী।

সূত্রের খবর, দেশের বিভিন্ন রাজ্যের অবিজেপি মুখ্যমন্ত্রীদের এই ব্যাপারে চিঠি দিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যা নিঃসন্দেহে তৃণমূল নেত্রীর বিজেপি বিরোধিতায় একধাপ এগোনো বলেই মনে করছে রাজনৈতিক মহল। জানা গেছে, এদিন বিজেপি বিরোধী মুখ্যমন্ত্রীদের চিঠি দিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লেখেন, “আসুন, আমরা সবাই মিলে এনআরসির বিরুদ্ধে জোট বাঁধি।”

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

বিশ্লেষকরা বলছেন, শুরু থেকেই এই নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের বিরুদ্ধে নিজের প্রতিবাদ সপ্তমে নিয়ে গেছেন বাংলার মুখ্যমন্ত্রী। তবে একা তিনি প্রতিবাদ করায় যে এই আইন বন্ধ করা যাবে না, তা বুঝতে পেরেছেন পশ্চিমবঙ্গের প্রশাসনিক প্রধান। আর তাইতো সমস্ত বিজেপি বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলো যে যে রাজ্যে ক্ষমতায় আছে, সেই সেই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীদের চিঠি দিয়ে বিজেপির বিরুদ্ধে সরব হতে বললেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

কিন্তু এর আগেও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লোকসভা নির্বাচনে বিজেপিকে চাপে ফেলতে বিজেপি বিরোধী দলগুলোর সঙ্গে জোট করতে চেয়েছিলেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত সেই জোট মুখ থুবড়ে পড়েছে। ফলে এবার নাগরিকত্ব সংশোধনীর বিরুদ্ধে বিজেপি বিরোধী দলগুলোর সঙ্গে জোট করতে চেয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় চিঠি পাঠালেও, সেই দলগুলোর অভিব্যক্তি ঠিক কি হয়! সেদিকেই নজর থাকবে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!