এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা পেতে পারেন নোবেল! ‘পথ বাতলে দিলেন স্বয়ং নোবেলজয়ীর মা!

বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা পেতে পারেন নোবেল! ‘পথ বাতলে দিলেন স্বয়ং নোবেলজয়ীর মা!

সম্প্রতি অর্থনীতিতে নোবেল পেয়েছেন অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়। অমর্ত্য সেন এর পরে আবার ইতিহাস রচনা বাঙালির। 2019 এ অর্থনীতিতে নোবেল পেয়েছেন বাঙালি অর্থনীতিবিদ অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়। অর্থনীতিতে সর্বোচ্চ সম্মান পেতে চলেছেন তিনি। দীর্ঘদিন ধরে বিশ্বজুড়ে দারিদ্র্য দূরীকরণ নিয়ে গবেষণা চালিয়ে যাচ্ছিলেন অভিজিৎ।

অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায় এর নাম নোবেল তালিকায় ওঠার পর থেকেই শুরু হয়েছে বিতর্ক। উল্লেখ্য অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায় এর সাথে মার্কিনী স্ত্রী এস্হার ডাফলো নোবেল প্রাপকদের তালিকায় নাম তুলেছেন।

অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নোবেল পাওয়ার খবরে প্রশংসার সাথে সাথে বিতর্কও সৃষ্টি হয়। সমালোচনার ঝড় ওঠে তার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে। রাজনৈতিক কিছু ব্যক্তিরা এ ব্যাপারে সর্বাগ্রে ছিলেন। রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল থেকে কেন্দ্রীয় বিজেপি সম্পাদক রাহুল সিনহা সবাই ছিলেন এই দলে।

রেলমন্ত্রী পীযূষ গোয়েল অভিজিৎবাবুর কাজ নিয়ে সমালোচনা করলেও রাহুল সিনহা তাঁর ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করে বলেন, ‘দ্বিতীয় স্ত্রী বিদেশী হলেই নোবেল পাওয়া যাচ্ছে।’ আর এর পরেই রাহুল সিনহার মন্তব্যকে ঘিরে রাজ্যজুড়ে তথা দেশজুড়ে তুমুল বিতর্কের সূত্রপাত হয়।

সোমবার এই প্রসঙ্গ উল্লেখ করে অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায় এর মা নির্মলা দেবী রীতিমতো কটাক্ষ করে হাসিমুখে বলেন, “বিদেশিনী বিয়ে করেই তাহলে একটা নোবেল আনুন” বিজেপি নেতা রাহুল সিনহার মন্তব্যের প্রেক্ষিতে এ কথাই বললেন অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়ের মা।

তিনি আরো বলেন, ‘ওনারা যদি এই কাজ করে আরো নোবেল পান তাহলে দেশ এবং বাংলার গৌরব বাড়বে। এস্থারের মতো ভালো মেয়ে না পেলেও বিদেশিনীর তো অভাব পড়েনি। তাই যাকে পাবে তাকেই তাড়াতাড়ি বিয়ে করে নিন। এতে ওনারাও যেমন নোবেল পাবেন, তেমনি দেশের ঝুলিতেও একটা নোবেল আসবে। এর ফলে সম্মান বাড়বে। আমরাও খুশি হব।’

গত শুক্রবার অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়কে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্যের সূত্রপাত করেন রাহুল সিনহা। তিনি বলেন, ”যাদের দ্বিতীয় স্ত্রী বিদেশি, মূলত তারাই নোবেল পাচ্ছেন। নোবেল পাওয়ার ক্ষেত্রে এটা কোন ডিগ্রী কিনা জানিনা।” এর পরেই দেশজুড়ে সমালোচনার মুখে পড়তে রাহুল সিনহাকে। সমালোচনায় মুখর হন দেশের বিশিষ্টজনরা। অনেকেই ঘনিষ্ঠমহলে রাহুল সিনহার মন্তব্যকে ঠিক নয় বলে ব্যক্ত করেছেন। মঙ্গলবার অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে বৈঠক করেন।

বৈঠকের পর প্রধানমন্ত্রী অভিজিতের প্রশংসা করে একটি প্রশংসাসূচক টুইট করেন। এরপর বিজেপির এক ঘনিষ্ঠ নেতা সোশ্যাল মিডিয়াতে পোস্ট করেন প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে অনেক কিছু শেখার আছে। অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে সাক্ষাতের পর প্রধানমন্ত্রী একটি টুইট করেছেন‌। বিজেপির ওই নেতা দাবি করেন এই প্রসঙ্গ তুলে, প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে অনেক কিছু শেখার আছে। অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠকের পর প্রধানমন্ত্রী একটি টুইট করেছেন আর তাতে তিনি বুঝিয়ে দিয়েছেন, একজন প্রকৃত সুভদ্র এবং সৌজন্যশীল মানুষ কেমন হতে পারে তা প্রধানমন্ত্রীকে দেখে শেখা উচিত।

গরীবির বিরুদ্ধে কিভাবে লড়াই করা যায় তা নিয়ে বেশ কয়েক বছর ধরে পথ দেখিয়ে চলেছেন অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায়। কলকাতার ছেলে অভিজিত বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায় বর্তমানে এমআইটির অধ্যাপক এবং মার্কিন নাগরিক। অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায় নোবেল পাওয়ায় শহর কলকাতায় খুশির জোয়ার বইতে শুরু করেছে। তবে এর মাঝে অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায় ব্যক্তিজীবন নিয়ে রাজনৈতিক বিতর্কে দেশজুড়ে তুমুল আলোচনা শুরু হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা জানিয়েছেন, একজন গুণী মানুষের ব্যক্তিগত দিক বিচার না করে সম্পূর্ণরূপে তার গুণের বিচার করতে হয়। অভিজিৎ বিনায়ক বন্দ্যোপাধ্যায় ব্যক্তিগত জীবন সংক্রান্ত ব্যাপারে নোবেল পাননি, তিনি তাঁর কাজের গুণগত বিচারে নোবেল পেয়েছেন। তাই সেই দিকে তাকিয়ে ওনার ব্যক্তিগত পরিসরের আলোচনা করা উচিত নয়।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!