এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বিজেপি সাংসদ কেন করছেন না? প্রশ্ন তুলে উন্নয়ন নিয়ে হাত গুটিয়ে বসে তৃণমূল জেলা পরিষদ!

বিজেপি সাংসদ কেন করছেন না? প্রশ্ন তুলে উন্নয়ন নিয়ে হাত গুটিয়ে বসে তৃণমূল জেলা পরিষদ!

কথায় বলে, ‘রাজায় রাজায় যুদ্ধ হয়, উলুখাগড়ার প্রাণ যায়’- সেই কথাটা আরেকবার প্রমাণ হলো বলাগড়ে। যেখানে মানুষ রাজনীতির শিকার হয়, সেখানে রাজনীতির লজ্জা। এ বিষয়ে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের দাবি, সাধারণ মানুষ কষ্টে পড়লে সে সময়ে রাজনৈতিক প্রতিনিধিরা যদি মুখ ঘুরিয়ে থাকেন, তাহলে সাধারণ মানুষও সময়ে রাজনৈতিক দলগুলির থেকে মুখ ফিরিয়ে নেবে। রাজনৈতিক দলাদলিতে পড়ে বলাগড়ের এক্তারপুর এর বাসনা গ্রামের মানুষরা দিনের পর দিন দুর্ভোগের শিকার হচ্ছেন। হাজার অনুরোধ-উপরোধেও তাঁদের দুর্গতি কমছে না।

বলাগড়ের এক্তারপুরের বাসনা গ্রামের গ্রামবাসীদের বহুদিনের দাবি, এলাকার রাস্তা। ওই এলাকায় রাস্তা চলাচলের অযোগ্য। আর সেই দাবিতে দীর্ঘদিন ধরে গ্রামবাসীরা আন্দোলন চালিয়ে যাচ্ছে।

কিন্তু বলাগড়ের জেলা পরিষদ হল তৃণমূল সরকারের। সেখানকার সহকারি সভাধিপতি সুমনা সরকার বললেন, গ্রামের রাস্তার দাবিতে যে আন্দোলন হচ্ছে, তা সম্পূর্ণ উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। ইচ্ছাকৃতভাবে রাজ্য সরকারকে কালিমালিপ্ত করার জন্যই এই আন্দোলন বলে তিনি দাবি করেছেন।

গ্রামবাসীরা দীর্ঘদিন ধরে রাস্তার দাবিতে এক্তারপুরে আন্দোলন চালাচ্ছেন। দেওয়াল লিখন থেকে টোটোতে ব্যানার লাগিয়ে সব জায়গায় তাঁদের সমস্যার কথা তুলে ধরেছেন। পাশাপাশি, গত শনিবার গ্রামবাসীরা রাস্তা অবরোধ করেছিলেন। গ্রামবাসীদের মতে, দেড় কিলোমিটার রাস্তা না থাকার কারণে বর্ষাকালে কার্যত জনবিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ে বাসনা গ্রাম।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

অন্যদিকে, সুমনা দেবী জানিয়েছেন, ওই রাস্তা প্রাক্তন সাংসদ রত্না দে নাগ এর টাকায় করা হয়েছিল। কিন্তু গ্রামবাসীরা নিজেদের প্রয়োজনে ভারি গাড়ি গ্রামে ওই রাস্তায় ঢোকায়। যার ফলে রাস্তাটি নষ্ট হয়ে যায়। শনিবার গ্রামবাসীদের আন্দোলন করা নিয়ে তিনি জানিয়েছেন, শনিবারের আন্দোলনে বেশিরভাগ গ্রামবাসী ছিলেননা। তিনি রাস্তা করা নিয়ে অভিযোগের আঙুল তুলেছেন বিজেপি সাংসদ এর দিকে। সুমনা দেবীর বক্তব্য হল, নতুন বিজেপি সাংসদেরও রাস্তা তৈরির দায় আছে। তিনি কেন করছেন না?

যদিও গ্রামবাসীরা রাস্তার প্রয়োজনে আন্দোলন করছেন। তাই কে রাস্তা করছে না, কেন রাস্তা করছেননা – এই সংক্রান্ত কোন প্রশ্ন তাঁরা তোলেননি। আন্দোলনকারীদের একাংশ জানিয়েছেন, যদি রাস্তা হয় তাহলে ট্রাফিক নিয়ন্ত্রণ করা হোক সরকারের পক্ষ থেকে। জেলা পরিষদ সেই পথে গিয়ে রাস্তা তৈরি করতেই পারেন।

সমগ্র বিষয়টি নিয়ে এখনো পর্যন্ত তৃণমূল কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের তরফ থেকে কোনো বিবৃতি জারি হয়নি। অন্যদিকে, রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের বক্তব্য হল, জনগণের কোনো অসুবিধাকে যদি ধর্তব্যের মধ্যে ধরা না হয়, তাহলে পরবর্তীকালে রাজনৈতিক শাসক দলের ভোট সংক্রান্ত ইস্যুতে সমস্যা হতে পারে। কারণ, মানুষ মুখ ঘুরিয়ে নেবে।

তাই জনসাধারণকে কোনভাবেই সমস্যায় ফেলা উচিত নয়। এই সংক্রান্ত বিষয়ে বিরোধী শিবিরের বক্তব্য হল, শাসক সরকার এভাবে দায় এড়াতে পারেন না। আপাতত বাসনা গ্রামের রাস্তার দাবিতে যে আন্দোলন চলছে, তার দিকে নজর রাখবে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!