এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > প্রশাসন মনোভাব না পাল্টালে তাহলে বাংলায় আন্দোলনের আগুন জ্বলবে – তীব্র হুঁশিয়ারি বিজেপি সাংসদের

প্রশাসন মনোভাব না পাল্টালে তাহলে বাংলায় আন্দোলনের আগুন জ্বলবে – তীব্র হুঁশিয়ারি বিজেপি সাংসদের

 

রাজ্যের প্রশাসন তৃণমূল কংগ্রেসের দলদাসে পরিণত হয়ে গিয়েছে বলে মাঝেমধ্যেই অভিযোগ করতে দেখা যায় বিজেপিকে। এমনকি এই অভিযোগ তুলে মাঝেমধ্যেই প্রশাসনের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক মন্তব্য করতেও দেখা যায় বিজেপির রাজ্য নেতাদের। যা নিয়ে শাসক-বিরোধী তরজায় মাঝেমধ্যেই উত্তাল হয়েছে রাজ্য রাজনীতি। তবে এবার পুরুলিয়া জেলা প্রশাসনের বিরুদ্ধে সরব হয়ে জেলা এবং রাজ্য প্রশাসনের বিরুদ্ধে তীব্র হুঁশিয়ারি দিলেন বিজেপি নেতৃত্ব।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার বিজেপি যুব মোর্চার পক্ষ থেকে পুরুলিয়ায় একটি ডেপুটেশন কর্মসূচির আয়োজন করা হয়েছিল। অভিযোগ, সেখানে দীর্ঘক্ষণ অপেক্ষা করলেও পুরুলিয়ার জেলাশাসক এবং অতিরিক্ত জেলাশাসকের দেখা পাওয়া যায়নি। যার পরেই বৃহস্পতিবার সেই পুরুলিয়ায় মৌন মিছিল করার সিদ্ধান্ত নেয় গেরুয়া শিবির। আর সেখানেই মৌন মিছিল করে গোটা শহর পরিক্রমা করে বিজেপি নেতারা। আশ্চর্যজনকভাবে এদিনের এই সভা থেকে রাজ্য প্রশাসনের উদ্দেশ্যে কড়া ভাষায় হুঁশিয়ারি দেন পুরুলিয়ার বিজেপি সাংসদ জ্যোতির্ময় মাহাতো।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিন তিনি বলেন, “হুঁশিয়ারি করে যাচ্ছি। এদিন মৌন মিছিল করলেও আগামী দিন মিছিল আর মৌন থাকবে না। জেলা প্রশাসন এবং বিভিন্ন আধিকারিকরা নিজেদের মনোভাব পরিবর্তন না করলে, পুরুলিয়ায় আন্দোলনের আগুন জ্বলবে‌। আগামীদিনে তৃণমূল থাকবে না। তারা যেন ভুলে না যায় যে, আগামী দিন বিজেপি সরকার আসবে। কিন্তু এই আধিকারিকদের পরেও চাকরি করতে হবে।”

এদিকে এদিন জেলাশাসককে কড়া ভাষায় আক্রমণ করেন পুরুলিয়া জেলা বিজেপির সভাপতি। এদিন বিদ্যাসাগর চক্রবর্তী বলেন, “তৃণমূল এভাবে অপমান করবেন না। কারণ পুরুলিয়ার আপামর জনসাধারণ বসে থাকবে না‌। সেদিন যে ভয়ঙ্কর পরিস্থিতি হবে, তাহলে আপনি এখানে বসে থাকতে পারবেন না।” আর বিজেপি সাংসদ এবং জেলা বিজেপির সভাপতির পুলিশ প্রশাসন এবং তৃণমূলকে উদ্দেশ্য করে এই নজিরবিহীন আক্রমণ নিয়ে ইতিমধ্যেই তোলপাড় হয়েছে রাজ্য রাজনীতি।

ক্ষমতায় আসার আগে যেভাবে বিজেপি পুলিশ প্রশাসনের হুমকি দিচ্ছে, তা অত্যন্ত নজিরবিহীন বলে পাল্টা দাবি করতে শুরু করেছে তৃণমূল কংগ্রেস। এদিন এই প্রসঙ্গে পুরুলিয়া জেলার সহ-সভাপতি সুজয় বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, “বিভিন্ন বিজেপি নেতারা প্রশাসনিক আধিকারিকদের ধমকানো ও চমকানো শুরু করার কাজ শুরু করেছেন। ওদের ধমকে কোনো কাজ হবে না। জেলাশাসক না থাকলে অতিরিক্ত জেলাশাসক ডেপুটেশন নিতেই পারেন। কিন্তু বিজেপি বিভিন্ন কথা বলে আসলে বাজার গরম করতে চাইছে।” সব মিলিয়ে বিজেপি সাংসদ ও বিজেপি নেতার প্রশাসনের উদ্দেশ্যে হুমকি প্রবল সোরগোল ফেলে দিল রাজ্য রাজনীতিতে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!