এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > বিজেপি সাংসদের খাসতালুকে হেভিওয়েট দলীয় নেতার বাড়িতে ভাংচুর-বোমাবাজি, তীব্র চাঞ্চল্য!

বিজেপি সাংসদের খাসতালুকে হেভিওয়েট দলীয় নেতার বাড়িতে ভাংচুর-বোমাবাজি, তীব্র চাঞ্চল্য!



লোকসভা নির্বাচনের আগে থেকেই ব্যাপক রাজনৈতিক সংঘর্ষ উত্তেজনা ছড়াতে দেখা গেছে কোচবিহার জেলার বিভিন্ন অংশে। আর নির্বাচনের পর বিজেপি সেখানে জয়লাভ করলে তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষে মাঝেমধ্যেই উত্তপ্ত হয় কোচবিহার। তবে মাঝে তা কিছুদিন বন্ধ থাকায় অনেকেই আশ্বস্ত হয়েছিলেন।

কিন্তু এবার ফের উত্তপ্ত হয়ে উঠল কোচবিহার। সূত্রের খবর, কোচবিহারের সংসদ সদস্য নিশীথ প্রামাণিকের খাসতালুক ভেটাগুড়ি-১ গ্রাম পঞ্চায়েতের রুয়েরকুঠি গ্রামে বিজেপি প্রধানের বাড়ি ভাঙচুর ও এলাকায় বোমাবাজির ঘটনায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে।

জানা গেছে, শুক্রবার গভীর রাতে দিনহাটা মহকুমার ভেটাগুড়ির ওই গ্রামে এক দল বাইক বাহিনী আসে। আর তারাই প্রধানের বাড়িতে চড়াও হয়। বিজেপির দাবি, এই ঘটনার সঙ্গে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরাই জড়িত। যদিও তৃণমূলের তরফে এই গোটা ঘটনা অস্বীকার করা হয়েছে। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, কিছুদিন আগেই এই ভেটাগুড়িতে পুলিসের গাড়ি লক্ষ্য করে বোমা ও গুলি ছোঁড়ার অভিযোগ উঠেছিল। যা নিয়ে রাজনৈতিক উত্তাপ সেখানে বজায় ছিল।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

জানা যায়, বিগত পঞ্চায়েত নির্বাচনের সময়ে ভেটাগুড়ি-১ এবং ২ গ্রাম পঞ্চায়েত দু’টি তৃণমূল কংগ্রেস দখল করলেও লোকসভা নির্বাচনে বিজেপি জয়ী হওয়ার পর ওই দুটি গ্রাম পঞ্চায়েতেই তৃণমূলের হাতছাড়া হয়ে যায়। দিন কয়েক আগেই ভেটাগুড়ি-২ গ্রাম পঞ্চায়েতটি বিজেপির হাত থেকে ফের তৃণমূল দখল করে। তবে ভেটাগুড়ি-১ গ্রাম পঞ্চায়েতটি এখনও বিজেপির দখলেই রয়েছে। আর এমতাবস্থায় বিজেপি প্রধানের বাড়িতে ভাংচুরের ঘটনায় তীব্র উত্তেজনা ছড়িয়েছে এলাকায়।

এদিন এই প্রসঙ্গে
বিজেপির ভেটাগুড়ির মণ্ডল সভাপতি গোপাল চন্দ বলেন, “শুক্রবার গভীর রাতে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা ভেটাগুড়ি-১ গ্রাম পঞ্চায়েতের রুয়েরকুঠি এলাকায় আমাদের প্রধানের বাড়িতে ভাঙচুর করে। বাড়ির টিনের বেড়া ভাঙচুর করা হয়। এলাকায় বোমাবাজি হয়। ওরা এলাকা ফাঁকা করে গ্রাম পঞ্চায়েত দখল করতে চাইছে। প্রধানের নামে মিথ্যা মামলাও দেওয়া হয়েছে। আমরা সবটাই থানায় অভিযোগ জানাব।”

অন্যদিকে বিজেপির এই অভিযোগ অস্বীকার করেছেন দিনহাটার তৃণমূল বিধায়ক উদয়ন গুহ। এদিন তিনি বলেন, “পঞ্চায়েত নির্বাচনে ওখানে তৃণমূল জয়ী হয়েছিল। তারাই বোর্ড চালাবে। যে ভাবে ওঁরা গিয়েছিলেন সেভাবেই ফিরে আসবেন। বাড়ি ভাঙচুরের ঘটনার সঙ্গে আমাদের কেউ জড়িত নয়।”

অন্যদিকে এই ব্যাপারে জেলার অতিরিক্ত পুলিস সুপার মহম্মদ সানা আখতার বলেন, “ওই এলাকায় রাতে কিছু লোক জমায়েত হয়েছিল। পুলিস গিয়ে তাদের সরিয়ে দেয়। বাড়ি ভাঙচুর বা বোমাবাজির কোনও খবর নেই। অভিযোগ পেলে বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।”

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, প্রায় বহুদিন ধরেই কোচবিহার জেলার বিভিন্ন জায়গায় রাজনৈতিক সংঘর্ষ শুরু হয়েছে। কিন্তু ভেটাগুড়িতে যেহেতু কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি সাংসদ নিশীথ প্রামাণিকের বাড়ি, তাই সেই জায়গায় কোনো ঘটনা ঘটলেই তা আলাদা আকার ধারণ করে। ফলে সেদিক থেকে এবারে এই ভেটাগুড়িতে নিশীথ প্রামাণিকের খাসতালুকে বিজেপি প্রধানের বাড়িতে হামলার ঘটনা তৃণমূল বনাম বিজেপির রাজনৈতিক শত্রুতাকে আরও বাড়িয়ে দিল বলেই মনে করছেন বিশ্লেষকরা।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!