এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > অন্য মামলায় গ্রেফতার করে বিজেপি নেতা রাকেশ সিংহকে বিদ্যাসাগর কাণ্ডে হেফাজতে নিল পুলিশ

অন্য মামলায় গ্রেফতার করে বিজেপি নেতা রাকেশ সিংহকে বিদ্যাসাগর কাণ্ডে হেফাজতে নিল পুলিশ

লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যে বিজেপির উত্থান ঘটার পরেই কিছুটা হলেও আতঙ্কিত হয়ে পড়েছেন তৃণমূল নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।সামনেই 2021 সালের বিধানসভা নির্বাচনে তিনি তাঁর ক্ষমতা ধরে রাখতে পারবেন কিনা তা নিয়ে সংশয়ে আছে সকলেই। আর এর জেরেই রাজ্যের প্রধান বিরোধী দল বিজেপির কণ্ঠরোধ করতে পুলিশ প্রশাসনকে নিয়ে বিজেপি নেতাদের হেনস্থা করা হচ্ছে বলে অভিযোগ তুলে সরব হতে দেখা যাচ্ছে গেরুয়া শিবিরকে।

কিছুদিন আগেই ওয়াটগঞ্জ থানার পুলিশকে নিগ্রহের অভিযোগে কলকাতা বিমানবন্দর থেকে গ্রেপ্তার করা হয় বিজেপি নেতা রাকেশ সিংহকে। আর এরপরই আলিপুর আদালতের নির্দেশে তাকে জেল হেফাজতে রাখা হয়। এদিকে পুলিশি নিগ্রহের পর এবার বিদ্যাসাগরের মূর্তি ভাঙা কাণ্ডে সেই রাকেশ সিংহকে হেফাজতে নেওয়ার জন্য ব্যাঙ্কশাল কোর্টে প্রোডাকশন ওয়ারেন্টের আবেদন জানাল পুলিশ।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

সূত্রের খবর, এদিন পুলিশের পক্ষ থেকে এই আবেদন জানানো হলে সেই বিজেপি নেতা রাকেশ সিংয়ের আইনজীবী ফজলে আহমেদ খান বলেন, “পুলিশ মিথ্যে অভিযোগ করছে। এর সঙ্গে আমার মক্কেল কোনোভাবেই জড়িত নয়। তাই যে কোনোও শর্তে রাকেশবাবুকে জামিনে মুক্তি দেওয়া হোক।” তবে শেষ পর্যন্ত ব্যাঙ্কশাল কোর্টের ভারপ্রাপ্ত অতিরিক্ত চিফ মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মৌমিতা রায় এই রাকেশ সিংহকে আগামী 18 ই জুন পর্যন্ত পুলিশ হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেন।

এদিকে গোটা ঘটনাকে ঘিরে এখন বেশ কিছু প্রশ্ন দানা বাধতে শুরু করেছে। পুলিশকে হেনস্থাকাণ্ডে বিজেপি নেতাকে গ্রেপ্তার করে এখন তার বিরুদ্ধে বিদ্যাসাগর মূর্তি ভাঙার অভিযোগ তুলে কেন আদালতে অভিযোগ জানানো পুলিশ! তাহলে কি হেনস্থা করাই মূল উদ্দেশ্য পুলিশের!

বিশেষজ্ঞদের মতে, পুলিশ নিজের মত করে নিজেদের যুক্তি খাড়া করলেও রাজ্যের বিভিন্ন জায়গায় বিভিন্ন ঘটনায় পুলিশের সদর্থক ভূমিকা নিয়ে ইতিমধ্যেই গভীর প্রশ্নচিহ্ন সৃষ্টি হয়েছে। আর তাই রাজ্যের পুলিশ কোনো ব্যাপারে সঠিক পদক্ষেপ নিলেও এখন মানুষের মনে তাদের প্রতি হারিয়ে যাওয়া বিশ্বাস অতটা সহজে ফিরবে না বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহলের একাংশ।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!