এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > রাজ্যের কিছু ‘চিহ্নিত’ স্থানে মানছে না লকডাউন! মানুষের স্বার্থে সেনার দাবি বিজেপি নেতার

রাজ্যের কিছু ‘চিহ্নিত’ স্থানে মানছে না লকডাউন! মানুষের স্বার্থে সেনার দাবি বিজেপি নেতার


সাধারণ মানুষের সুস্থতা এবং নিরাপত্তার স্বার্থে টানা 21 দিন দেশজুড়ে লকডাউনের কথা ঘোষণা করেছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। মানুষে, মানুষের সংস্পর্শে যাতে এই ভাইরাস মাত্রাতিরিক্ত আকার ধারণ না করে, তার জন্যই সরকারের এই পদক্ষেপ বলে মনে করেছেন একাংশ। আর অন্যান্য জায়গার মত পশ্চিমবঙ্গেও লকডাউন চালু করা হয়েছে।

তবে আশ্চর্যজনকভাবে বেশ কিছু মানুষকে বিভিন্ন সময় স্বাভাবিকভাবেই রাস্তায় বেরোতে দেখা যাচ্ছে। যা নিয়ে অনেকেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষোভ উগরে দিতে শুরু করেছেন। আর এই পরিস্থিতিতে এবার বাংলায় ঠিকমত লকডাউন মানা হচ্ছে না বলে বিস্ফোরক দাবি করলেন বিজেপির প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি রাহুল সিনহা। প্রয়োজনে যে সমস্ত জায়গায় লকডাউন মানা হচ্ছে না, সেখানে সেনা নামানোর কথা বলেছেন এই বিজেপি নেতা।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

সূত্রের খবর, এদিন বিজেপির কেন্দ্রীয় সম্পাদক রাহুল সিনহা বলেন, “প্রধানমন্ত্রী একুশে মার্চ জনতা কার্ফুর কথা ঘোষণা করেন। সেদিন দেশে সংক্রমিত লোকের সংখ্যা ছিল 200, মৃতের সংখ্যা ছিল 3 জন। 29 মার্চ আক্রান্তের সংখ্যা গিয়ে দাঁড়িয়েছে প্রায় হাজারের কাছাকাছি এবং মৃত 25 জন। রোজ 100 এর বেশি মানুষ আক্রান্ত হচ্ছেন। আগামীকাল 30 তারিখ বেলা বারোটা থেকে ভারত তৃতীয় ফেজে প্রবেশ করছে।”

আর এরপরই পশ্চিমবঙ্গের বেশ কিছু জায়গায় সেনা নামানোর আর্জি জানিয়ে মুখ্যমন্ত্রীকে আবেদন জানান রাহুল সিনহা। তিনি বলেন, “কলকাতার বেশ কিছু চিহ্নিত স্থানে ও রাজ্যের বেশ কয়েকটি জায়গায় অবিলম্বে সেনা নামানো প্রয়োজন। তা না হলে পরিস্থিতি ভয়ঙ্কর হতে পারে। এখনই সতর্ক না হলে এই স্বস্তি মুহূর্তে চুরমার হয়ে যাবে। সবাইকে অনুরোধ, প্রধানমন্ত্রীর অনুরোধকে মর্যাদা দিয়ে করোনার বিরুদ্ধে চ্যালেঞ্জ গ্রহণ করুন। লকডাউনকে 100% সফল করুন।”

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, লকডাউনের বিজ্ঞপ্তি জারি হওয়ার পরেও অনেক মানুষ বাইরে বেরিয়েছেন। যার ফলে সংখ্যা আরও বাড়ছে। তাই পরিস্থিতি যখন দিনকে দিন হাতের বাইরে চলে যাচ্ছে, ঠিক তখনই যাতে এই ব্যাপারে সকলে সতর্ক হন, তার জন্যই রাহুল সিনহার এই বক্তব্য বলে মত বিশেষজ্ঞদের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!