এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বিজেপির ভরাডুবি নিয়ে কী বললেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়

বিজেপির ভরাডুবি নিয়ে কী বললেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়

যে বিজেপি কংগ্রেসমুক্ত ভারত গড়ার ডাক দিয়েছিল তাঁরাই লোকসভা ভোটের আগে মুখ থুবড়ে পড়ল। পাঁচটি গুরুত্বপূর্ণ রাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনের ফলাফল সামনে আসায় হার্টবিটই থমকে গেল গেরুয়াশিবিরে।

রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ, ছত্তিশগড়ে বিজেপিকে জোর ধাক্কা দিলে অভাবনীয় সাফল্য ছিনিয়ে নিল কংগ্রেস। রাহুল বাহিনীর উচ্ছ্বাস ছিল দেখার মতো। খুশির জোয়ারে ভাসতে দেখা গেল সোমেন মিত্রের অনুগামীদেরও। কিন্তু তেমনভাবে কোনো সাড়া শব্দ পাওয়া গেল না পাঁচটি রাজ্যের বিধানসভা ভোট নিয়ে উৎসুক রাজ্য বিজেপি কর্মীদের।

সাধারণত ভিন রাজ্যের নির্বাচন নিয়ে প্রতিবার তাঁদেরই সক্রিয়তা হয় দেখার মতো। পড়শি রাজ্যে দল জিতলেই গেরুয়া আবীরে হোলি খেলতে দেখা যায় তাঁদের।

সমানতালে চলে মিষ্টি বিতরণ, বিজয় মিছিল। কিন্তু দলের রাজ্যদপ্তরে কোনো উল্লেখযোগ্য নেতৃত্বদের দেখা মিলল না। দেখা নেই সেই সব অতি উৎসাহী কর্মীদের। এমনটাই জানা গেল দলীয় অন্দরের সূত্র থেকে।

প্রতিষ্ঠান বিরোধী হাওয়া যতোই উত্তাল থাক না কেন, বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি ক্ষমতায় ফিরবে। কংগ্রেস বিজেপির ধারে কাছে ঘেষতে পারবে না। এমনটাই বারবার ভোটের আগে বলতে শোনা গিয়েছে পদ্মশিবির কর্তাদের। কিন্তু অপ্রত্যাশিতভাবে বিরোধীদের চাপে লোকসভা ভোটের আগেই কোনঠাসা হতে হল গেরুয়া শিবিরকে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

১৯’এর নির্বাচনের আগেই বিজেপির শেষের ঘন্টা বেজে গেল – এমনটা বললেন তৃণমূল সুপ্রিমো, বিজেপিকে কটাক্ষ করতে ছাড়লেন না। সঙ্গে আরো জানালেন, সেমিফাইনালে বিজেপির পরাজয় ২০১৯ সালের ফাইনালে কী হবে তারই ইঙ্গিত দিয়ে এবার বিজেপি মুক্ত ভারত গড়ার ডাক দিলেন বিরোধী মহাজোটের অন্যতম প্রধান মুখ।

তবে পাঁচটি রাজ্যের ভোটের ফলাফলকে ‘সন্তোষজনক’ বলেই ব্যাখ্যা করলেন বিজেপি নেতা মুকুল রায়। বিধানসভা ভোটে বিজেপির কোনঠাসা অবস্থা মানতে নারাজ তিনি। লোকসভা ভোটে এর কোনো প্রভাবই পড়বে না বলে দাবীতে জানালেন তিনি।

মুকুল রায় আরও বললেন, ‘গত ১৫ বছর ধরে প্রতিষ্ঠান বিরোধী হাওয়া সহ্য করেও এখনো একক সংখ্যাগরিষ্ঠ দল হিসাবে এগিয়ে রয়েছে বিজেপি।’ যুক্তিতে তুলে ধরলেন উত্তর পূর্ব ভারতের রাজ্যের প্রসঙ্গ। কংগ্রেস শাসিত মিজোরামেই হার হয়েছে হাতশিবিরের। তেলেঙ্গনায় খাতা খুলতেই পারেননি চন্দ্রবাবু নাইডু।

সুতরাং ‘তিনটি রাজ্যে কংগ্রেসের জয় নিয়ে রাহুল গান্ধীর সঙ্গে মমতা বন্দ্যেপাধ্যায় যতোই লাফালাফি করুক না কেন লোকসভা ভোটে বিজেপি বিরোধী মহাজোট ‘ফ্লপ’ হবে,’ এমনটাই চ্যালেঞ্জ ছু্ঁড়ে দিলেন তৃণমূলত্যাগী বিজেপি নেতা মুকুল রায়।

Top
error: Content is protected !!