এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > বিস্ফোরক অভিযোগে অভিষেক ব্যানার্জির গ্রেপ্তারির জন্য উঠে পরে লাগবেন জানালেন কৈলাশ

বিস্ফোরক অভিযোগে অভিষেক ব্যানার্জির গ্রেপ্তারির জন্য উঠে পরে লাগবেন জানালেন কৈলাশ

রাজ্য-রাজনীতিতে বর্তমানে সমস্ত আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে এখন জেলা পুরুলিয়া। একদিকে যখন পঞ্চায়েতে রাজ্যজুড়ে ঘাসফুল শিবিরের দাপট, অন্যদিকে তখন বেশ কিছু জেলায় বিজেপির প্রবল উত্থান, আর তার মধ্যে পুরুলিয়া অন্যতম। আর পুরুলিয়া নিয়ে তারফলে শোরগোল বেশি পরে যাওয়ার কারণ এই জেলার তৃণমূল কংগ্রেসের সাংগঠনিক প্রধানের নাম বর্তমানে দলের অঘোষিত দুনম্বর নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু পুরুলিয়ায় অপেক্ষাকৃত খারাপ ফল হলেও তা মানতে রাজি ছিলেন না ডায়মন্ড-হারবারের সাংসদ, তিনি জানিয়েছিলেন তিনি পুরুলিয়ায় গিয়ে পুরো জেলা বিরোধী-শূন্য করে দেবেন। আর তারপরেই কাকতলীয় ভাবে মাত্র তিনদিনের মধ্যে দুই বিজেপি কর্মীর ঝুলন্ত মৃতদেহ পাওয়া যায়। আর সেই দুই কর্মীর মৃত্যুর পরিপ্রেক্ষিতে এবার সরাসরি অভিষেক বান্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে হত্যার বিস্ফোরক অভিযোগ আনলেন বিজেপির কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীয়।

গতকাল, পশ্চিম মেদিনীপুরের দাসপুর থানার মাগুরিয়া এলাকায় এক দলীয় জনসভায় উপস্থিত হয়ে বিজেপির কেন্দ্রীয়নেতা বিস্ফোরকভাবে বলেন, এই দুই খুনে সরাসরি জড়িত রয়েছেন মুখ্যমন্ত্রীর ভাইপো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, যোগ রয়েছে পুলিশেরও। তাই বিষয়টিকে ধামাচাপা দেওয়ার চেষ্টা করছে পুলিশ। এ রাজ্যর পুলিশ, সিআইডি কারও ওপরে আমাদের ভরসা নেই। আমরা শীর্ষ আদালত পর্যন্ত যাব – অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের হাতে হাতকড়া না পরানো পর্যন্ত শান্তিতে বসব না। এখানেই না থেমে তিনি দলীয় কর্মীদের উদ্দেশ্যে বলেন, ওরা হিংসা করলে হিংসাতে আমরা জবাব দিতে পারি – কমজোর নই, আমরা হাতে চুড়ি পরে নেই। কিন্তু দেশের জনতা প্রজাতন্ত্রের চাবিকাঠি আমাদের হাতে দিয়েছে। তাই তাদের বিশ্বাসে আমরা আঘাত করব না। তবে মুখ্যমন্ত্রীর একটুও লজ্জা থাকলে জয়ী প্রার্থীদের রক্ষা করবেন, অন্তত পুলিশকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়ার কথা বলবেন।

দলীয় ওই জনসভা থেকে পঞ্চায়েতে বিজেপির ভালো ফল নিয়ে দলীয় নেতা-কর্মীদের উৎসাহিত করলেও কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র বক্তব্যের সিংহভাগ জুড়ে ছিল রাজ্যের শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসকে আক্রমন। আর তিনি বিশেষ করে সরব হয়েছিলেন তৃণমূল যুব কংগ্রেস সভাপতি অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে। তিনি বলেন, এই মঞ্চ থেকেই অভিযোগ করছি, পুরুলিয়ায় দু’জনের খুনে অভিযুক্ত পশ্চিমবঙ্গের পুলিশ ও মুখ্যমন্ত্রীর ভাইপো অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। মিথ্যা অভিযোগ করছি না। কারণ, ঘটনার তিনদিন আগেই অভিষেক বলেছিলেন পুরুলিয়া গিয়ে বিরোধীশূন্য করব। আর ভাষণের দ্বিতীয় দিনেই একজন খুন হলেন, পরের দিন আরও একজন! এই দুইয়ের পিছনে সরাসরি অভিষেক রয়েছে আমরা নিশ্চিত। পুলিশও এই কাণ্ডে জড়িত বলেই বিষয়টিকে ধামা চাপা দেওয়ার চেষ্টায় রয়েছে। এরাজ্যে দুই যুবকের বলিদান বেকার যাবে না।

Top
error: Content is protected !!