এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বিজেপি নেতাকে মিথ্যে মামলায় ফাঁসানোর ভয় দেখিয়ে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ পুলিশের বিরুদ্ধে

বিজেপি নেতাকে মিথ্যে মামলায় ফাঁসানোর ভয় দেখিয়ে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ পুলিশের বিরুদ্ধে

দীর্ঘদিন ধরেই রাজ্যের গণতন্ত্র প্রহসনে পরিণত হয়েছে বলে শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেস এবং পুলিশ প্রশাসন একযোগে কাজ করছে – এই অভিযোগ তুলতে দেখা গেছে বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোকে। এমনকি নির্বাচনের দামামা বাজবার পর পুলিশকে বাইরে রেখেই যাতে সেই নির্বাচন প্রক্রিয়া কেন্দ্রীয় বাহিনী দিয়ে সম্পন্ন করা যায় তার জন্যও আবেদন জানিয়েছে বিরোধীরা।

আর এমত একটা পরিস্থিতিতে এবার সেই বিজেপি নেতাকেই মিথ্যে মামলায় ভয় দেখিয়ে হুমকি দেওয়ার অভিযোগ উঠল পুলিশের বিরুদ্ধে। সূত্রের খবর, শুক্রবার বোলপুরের এক নম্বর ওয়ার্ডের বিজেপি নেতা নরেশ ঘোষ ভোট কেনার জন্য বাড়ি বাড়ি টাকা বিলি করছেন বলে অভিযোগ তোলে শাসক দলের কর্মী-সমর্থকরা।

যদিওবা এই সমস্ত ঘটনাকে অস্বীকার করে বিজেপি। শুরু হয় শাসক বনাম বিরোধীর তুমুল তরজা। আর ভোটের মুখে শাসক-বিরোধী এই তরজাকে সামাল দিতে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে বিশাল পুলিশবাহিনী নিয়ে ঘটনাস্থলে আসেন বোলপুর থানার আইসি সঞ্জীব চক্রবর্তী। এদিকে এই ঘটনায় পুলিশের পক্ষ থেকে সেই অভিযুক্ত বিজেপি নেতা নরেশ ঘোষকে গ্রেফতার করে নিয়ে গেলে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে গোটা পরিস্থিতি।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

পুলিশের পক্ষ থেকে বিজেপি নেতা নরেশ ঘোষের বাড়ি থেকে কুড়ি হাজার টাকা উদ্ধার করা হয়েছে বলে দাবি করা হলে পাল্টা তাকে মিথ্যে অভিযোগে থানায় নিয়ে যাওয়া হচ্ছে বলে সরব হন সেই অভিযুক্ত বিজেপি নেতা। আর এরপরই রুদ্রমূর্তি ধারণ করে সেই বোলপুর থানার আইসি সঞ্জীব চক্রবর্তী অভিযুক্ত বিজেপি নেতা নরেশ ঘোষের উদ্দেশ্যে আঙ্গুল উচিয়ে বলেন, “এমন অভিযোগে ফাসিয়ে দেব যে দিলীপ ঘোষও বাঁচাতে পারবে না। তুমি আমায় মিথ্যুক বলছো? তুমি কোন দল করছ তা আমার দেখার দরকার নেই। আমি 38 বছর ধরে চাকরি করছি। ইউনিফর্মটার দাম আছে। ফালতু ঝামেলা করবে না। দিলিপ, প্রদীপ, সুদীপ, শাম্বা, রাম্বা, জিম্বা কেউ বাঁচাতে পারবে না। তোমার কাছ থেকে মদ পাওয়া যায়নি, গাঁজা পাওয়া যায়নি, তাই তো? ঠিক আছে, আমার অফিসারকে মেরেছে বলে তোমায় আমি অ্যারেস্ট করলাম।”

আর বোলপুরের আইসির মুখ থেকে এহেন কথা শুনে হতবাক হয়ে যান সকলে। অনেকেই বলছেন, আসলে শাসকের প্ররোচনাতেই পুলিশের এত বাড়বাড়ন্ত হয়েছে। আর তাইতো এদিন মিথ্যে মামলায় ফাঁসানোর হুমকি দিয়ে বিজেপি নেতাকে ভয় দেখালেন বোলপুর থানার আইসি সঞ্জীব চক্রবর্তী বলে অভিযোগ গেরুয়া শিবিরের। সবমিলিয়ে আগামী 29 শে এপ্রিল বীরভূম জেলায় লোকসভা নির্বাচনের আগে পুলিশের এহেন হুমকিতে হতবাক গোটা রাজনৈতিক মহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!