এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > প্রাক্তন নেত্রীর বিরুদ্ধে শালীনতার মাত্রা ছাড়ালেন হেভিওয়েট বিজেপি নেতা

প্রাক্তন নেত্রীর বিরুদ্ধে শালীনতার মাত্রা ছাড়ালেন হেভিওয়েট বিজেপি নেতা

রাজনীতিতে কুকথা যেন থামছে না কিছুতেই। শাসক থেকে বিরোধী, একে অপরকে উদ্দেশ্য করে রাজনৈতিক মন্তব্য করা অপেক্ষা কুমন্তব্য করার প্রতিযোগিতাই এখন যেন সব থেকে বেশি চোখে পড়ছে বঙ্গ রাজনীতিতে। বস্তুত, লোকসভা নির্বাচনের অনেক আগেই তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছিলেন প্রাক্তন সাংসদ তথা বিশিষ্ট অধ্যাপক অনুপম হাজরা।

তবে শিবির বদলালেও সেইভাবে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে কোনো বিস্ফোরক মন্তব্য করতে দেখা যায়নি তাকে। কিন্তু এবার প্রাক্তন নেত্রীকে আক্রমণ করতে গিয়ে কালীঘাটের কালচারকে টেনে আনলেন এই অনুপম হাজরা।সূত্রের খবর, উস্থি ইউনাইটেড প্রাইমারি টিচার্স ওয়েলফেয়ার অ্যাসোসিয়েশনের সদস্যরা ওয়াই চ্যানেলে আমরণ অনশনে বসেছেন। রবিবার দুপুরে সেখানেই আসেন বিজেপির অনুপম হাজরা। আর সেখানেই রাজ্যের শিক্ষাব্যবস্থা নিয়ে সরব হন তিনি।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

প্রথমেই শিক্ষামন্ত্রীর পদত্যাগের দাবি করে অনুপম হাজরা বলেন, “কেন্দ্রীয় শিক্ষামন্ত্রীকে রাজ্যের অপদার্থতার কথা জানাতে হবে। রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী টুকে পিএইচডি পাশ করেছেন। আর সেই কারণেই রাজ্যের শিক্ষা ব্যবস্থায় এমন বেহাল দশা।” আর এরপরই প্রাক্তন নেত্রী তথা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে কটাক্ষ করে বিজেপি নেতা বলেন, “মুখ্যমন্ত্রী হয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু কালীঘাটের কালচার এখনও ভুলতে পারেননি তিনি।”

 

আর অনুপাম হাজরার এই বক্তব্য নিয়েই এবার তৈরি হয়েছে বিতর্ক। রাজনীতির স্বার্থে তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সম্পর্কে তিনি সোচ্চার হতেই পারেন। কিন্তু কালীঘাটের কালচার বলে সেখানকার মানুষকে অপমান করেছেন এই বিজেপি নেতা বলে পাল্টা তার বিরুদ্ধে সরব হতে শুরু করেছে তৃণমূল।

ঘাসফুল শিবিরের দাবি, আসলে বিগত বাম সরকারের আমলে ঠিক এইভাবেই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রতিনিয়ত অপমান করা হত। আর সেই একই পথ অনুসরণ করছে বিজেপি। ওরা যত এইরকম অপমান করবে, তত মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শক্তিশালী হবে।সব মিলিয়ে এবার বিজেপি নেতা অনুপম হাজরার প্রাক্তন নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমন করা নিয়ে জোর শোরগোল তৈরি হল রাজ্য রাজনীতিতে।

Top
error: Content is protected !!