এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > দাঙ্গা মামলায় বেকসুর খালাস পেলেন শীর্ষ বিজেপি নেত্রী

দাঙ্গা মামলায় বেকসুর খালাস পেলেন শীর্ষ বিজেপি নেত্রী

২০০২ সালের নারোদা পটিয়া দাঙ্গার অভিযুক্ত বিজেপি নেত্রী মায়া কোদনানিকে সাজা মকুব করে দিয়ে বেকসুর খালাস করে দিল গুজরাত হাইকোর্ট। এই মামলারই অন্য অভিযুক্ত গনপত ও হরেশও মুক্তি পেলো একইদিনে।কিন্তু একই দোষে অভিযুক্ত বজরং দলনেতা বাবু বজরঙ্গীর সাজা মকুব হল না।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

২০০২ সালের ২৮ শে ফেব্রুয়ারি বিশ্ব হিন্দু পরিষদ বনধের ডাক দিয়েছিলো গোধরা কান্ডে ট্রেনে আগুন লাগার পর।সেদিনই নারোদা পটিয়া এলাকায় জনসমাবেশে তৈরি হয় এক উত্তেজক পরিস্থিতি।তাতে মৃত্যু হয় ৯৭ জনের,আহত হন ৩৩ জন।৬১ জনের বিরুদ্ধে চার্জশিট তৈরি হয় এই ঘটনার জন্য।সেই তালিকাভুক্ত ছিল উক্ত অভিযুক্তসহ আরো অনেকে।এই ঘটনার পরই গ্রেফতার হন ৪৬ জন।২০০৮ সালে আরো ২৪ জন।২০০৮ সালে এই মামলার প্রথম শুনানি হয়।২০১২ সালে কোদনানি সহ ৩২ জনের কারাদণ্ড হয়।কারোর হয় ২৮ বছরের জেল আবার কারোর যাবত্জীবন কারাবাস।নিম্ন আদালতেরর সাজা পাওয়ার পর তারা উচ্চ আদালতের দ্বারস্থ হন।মামলা করেন।সেই মামলায় বেকসুর খালাস পান মায়া কোদনানি।রাজনৈতিক সূত্রের খবর বলছে, গত বছর সেপ্টেম্বরে বিজেপির সর্ব ভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ সাক্ষ্য দিয়ে জানান যে গুজরাটে নারোদা পাটিয়াতে দাঙ্গার সময় অভিযুক্ত মায়া কোদনানি ঘটনাস্থলে উপস্থিতই ছিলেন না।আহমেদাবাদ দায়রা আদালতে গিয়ে সাক্ষী দেন তিনি।একইসঙ্গে জানান যে,তাঁর সাথে কোদনানির ২০০২ সালে ফেব্রুয়ারি মাসে দেখা হয়েছিল।সেই সাক্ষ্যই কোদনানির সাজা মকুবে প্রভাব ফেলেছে বলে মনে করা হচ্ছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!