এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > আসল লড়াই বিজেপি নয়, বিক্ষুব্ধ বিজেপির সঙ্গে? খড়্গপুরে আভ্যন্তরীণ হিসাবে বাড়ছে জল্পনা

আসল লড়াই বিজেপি নয়, বিক্ষুব্ধ বিজেপির সঙ্গে? খড়্গপুরে আভ্যন্তরীণ হিসাবে বাড়ছে জল্পনা

 

কিছুদিন আগেই খড়গপুর বিধানসভা উপনির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণা করেছে নির্বাচন কমিশন। আর নির্বাচনের দিন ঘোষণার পর থেকেই প্রায় প্রতিটি রাজনৈতিক দলের হেভিওয়েট কেন্দ্র খড়্গপুরে দাগ ফোটাতে তৎপর হয়ে উঠেছে। এতদিন এই কেন্দ্র বিজেপির দখলে থাকলেও এবার এই কেন্দ্র দখল করতে তৎপর হয়েছে তৃণমূল কংগ্রেস।

সূত্রের খবর, এবার এই কেন্দ্র নিজেদের দখলে রাখতে রামমন্দিরে পুজো দিয়ে মিছিল করে সোমবার দলীয় প্রার্থী প্রদীপ সরকারকে নিয়ে মনোনয়নপত্র জমা দিলেন তৃণমূলের হেভিওয়েট মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। যেখানে তৃণমূলের জেলা নেতা সহ অসংখ্য কর্মী সমর্থক সহকারে বিশাল মিছিল আয়োজন করা হয়।

এদিকে এদিনই মনোনয়নপত্র জমা দিতে দেখা গেছে কংগ্রেস প্রার্থী চিত্তরঞ্জন মন্ডলকেও। তবে এতদিন এই কেন্দ্র বিজেপির দখলে থাকলেও নিজেদের দখলে আনতে মনোনয়নপত্র পেশের সময় যেভাবে তৃণমূল মিছিল করল, তা দেখে রীতিমতো উজ্জীবিত তৃণমূলের কর্মী-সমর্থকরাও।

এদিন মনোনয়নপত্র পেশের পরে জয়ের ব্যাপারে কিছুটা আত্মবিশ্বাসী করে জেলা তৃণমূলের পর্যবেক্ষক তথা মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী বলেন, “আমি গণৎকার নই। ভোটারদের উপর ছেড়ে দেওয়াই ভাল। তবে লোকসভা ভোটে যে খামতি ছিল, চার মাসে সংগঠনকে দাঁড় করিয়ে দিয়েছি। বারবার করে এসেছি। সাংগঠনিক দুর্বলতা কাটানো গিয়েছে। ফল প্রকাশের দিন দেখা হবে। আমাদের ভূমিপুত্র জেতার জন্যই প্রার্থী লড়াইয়ে নেমেছেন।”

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এখানে

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিকে এদিন বিজেপিকে চ্যালেঞ্জ জানিয়ে এখানকার প্রাক্তন বিধায়ক তথা বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকে কটাক্ষ করে শুভেন্দু অধিকারী বলেন, “বিজেপির রাজ্য সভাপতি বয়সে আমার চেয়ে বড় হতে পারেন, কিন্তু রাজনীতিতে নন। উনি আমার প্রতিদ্বন্দ্বী হতে পারেন না। ওনাকে বলব, নিজের ঘর ঠিক করুন।”

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যেভাবে প্রথম থেকে দিলীপ ঘোষের ছেড়ে যাওয়া আসনে বিজেপির তরফে থেকে কে প্রার্থী হবে, তা নিয়ে বিজেপির অন্দরে দ্বন্দ্ব তৈরি হয়েছিল, তাতে তৃণমূলের শুভেন্দু অধিকারীর বিজেপিকে কেন্দ্র করেই কটাক্ষ বিজেপিকে অনেকটাই চাপে ফেলে দিল বলে দাবি বিশ্লেষকদের।

কেননা এখানে বিগত পাঁচবারের বিজেপি প্রার্থী প্রদীপ পট্টনায়ক এবারে তার দলের বিরুদ্ধে “বিজেপি বাঁচাও কমিটির” হয়ে নির্দল প্রার্থী হিসেবে দাঁড়িয়ে পড়েছেন। যা বিজেপির আভ্যন্তরীণ গোষ্ঠী কোন্দলকে আরও অনেকটাই বাড়িয়ে দিয়েছে বলে দাবি একাংশ। আর এই পরিস্থিতিতে বিজেপির এই কোন্দলকে নিয়ে ফায়দা তুলতে ব্যস্ত তৃণমূল।

আর তাইতো মনোনয়নপত্র পেশের দিন রেকর্ড জনসমাগম করে তৃণমূল একদিকে তাদের শক্তি দেখালো, আর অন্যদিকে বিরোধীদের এই কোন্দল নিয়ে তাদের কটাক্ষ করল বলে মনে করছেন একাংশ। তবে শেষ পর্যন্ত প্লাস-মাইনাসের কাটাকুটিতে তৃণমূল না বিজেপি, কে শেষ হাসি হাসে খড়্গপুরে, সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!