এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > বিজেপিতে যোগ দিয়ে বড়সড় পদ পাচ্ছেন তৃণমূল নেতা, চিন্তা বাড়ছে তৃনমূলের

বিজেপিতে যোগ দিয়ে বড়সড় পদ পাচ্ছেন তৃণমূল নেতা, চিন্তা বাড়ছে তৃনমূলের

নানা জল্পনা কল্পনা শেষে তৃণমূলের ঘুম উড়িয়ে দিয়ে গত সোমবার দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা পরিষদের সিংহভাগ সদস্যদের নিয়ে দিল্লিতে বিজেপির সদর দপ্তরে নাম লেখালেন তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা বিপ্লব মিত্র। ঘড়ির কাটায় তখন 5:15, বিজেপির সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক কৈলাস বিজয়বর্গীয় উত্তরবঙ্গে তৃণমূলের প্রতিষ্ঠাতা বিপ্লব মিত্রকে পদ্মফুল আঁকা উত্তরীয় পরিয়ে দিচ্ছেন। প্রত্যুত্তরে আকাশি পোশাক পরিহিত বিপ্লব মিত্র মুচকি হাসি দিলেন।

আর তারপর থেকে অনেকেই প্রশ্ন করছেন, দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় তৃণমূল পরিবারের কাছে এতদিন মেজদা বলে পরিচিত বিপ্লব মিত্র কি খুব সহজেই বিজেপিতে নাম লেখালেন! কোনো কুণ্ঠাবোধ কি তার মনে ছিল না! 1998 সাল থেকে তিল তিল করে উত্তরবঙ্গের তৃণমূলের সংগঠন গড়ে তোলা বিপ্লব মিত্র বিজেপিতে যোগ দেওয়ায় তার কি আদৌ কোনো লাভ হবে! তা নিয়ে যখন বিভিন্ন মহলে জল্পনা চলছে, ঠিক তখনই বিজেপিতে যোগ দেওয়া তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা বিপ্লব মিত্র বড়সড় পদ পেতে চলেছেন বলে জানা গেছে।

সূত্রের খবর, দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার তৃণমূলের প্রাক্তন সভাপতি বিপ্লব মিত্রকে উত্তরবঙ্গে বিজেপি অন্যতম পর্যবেক্ষকের দায়িত্ব দিতে পারে। কি পদ পেতে চলেছেন তিনি! এদিন এই প্রসঙ্গে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা বিজেপির সভাপতি শুভেন্দু সরকার বলেন, “কাকে কি পদ দেওয়া হবে, সেটা রাজ্য ও কেন্দ্রীয় নেতৃত্বই ঠিক করেন। বিপ্লবদা আমাদের দলে এসেছে। তাকে নিশ্চিতভাবেই যোগ্য সম্মান দেওয়া হবে।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

অন্যদিকে এই প্রসঙ্গে দিল্লি থেকে তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগদানকারী বিপ্লব মিত্র বলেন, “আমাকে উত্তরবঙ্গের 8 টি জেলার দায়িত্ব দেওয়া হবে বলে শুনেছি। পাশাপাশি বিশেষ স্তরের নিরাপত্তা দেওয়া হতে পারে বলে আমায় জানানো হয়েছে। কিন্তু আমি কোনো কিছুই চাইনি। উত্তরবঙ্গে তৃণমূল থেকে প্রচুর কর্মী সমর্থক খুব তাড়াতাড়ি বিজেপিতে নাম লেখাবেন।”

জানা গেছে, পরিবর্তিত পরিস্থিতিতে বিপ্লব মিত্র বিজেপিতে নাম লেখানো পরই দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা জুড়ে সন্ত্রাসের আবহ সৃষ্টি হয়েছে। তৃণমূলের তরফ থেকে একাধিক জায়গায় বিজেপি কর্মীদের বাড়ি ভাঙচুরের মতো ঘটনা ঘটতে শুরু করেছে। আর সেদিক থেকে বিপ্লব মিত্রের মত দক্ষ সাংগঠনিক নেতা জেলায় পদ্মের চাষ আরও বাড়াতে পারেন, সেই আশঙ্কায় তৃণমূলের আশ্রিত দুষ্কৃতীদের পক্ষ থেকে তার প্রতি হামলা হতে পারে জেনে তাকেই বাড়তি নিরাপত্তা দিতে পারে গেরুয়া শিবির বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহলের একাংশ।

তবে তৃণমূলের পক্ষ থেকে অবশ্য দাবি করা হচ্ছে, যত বড়ই পদ না কেন বিপ্লব মিত্র, এতে তিনি কাজের কাজ কিছুই করতে পারবেন না। জেলা পরিষদ আবার তৃণমূলের দখলে আসবে। অন্যদিকে বিপ্লব ঘনিষ্ঠ অনুগামীদের বক্তব্য, দাদা মুখের কথায় নয়, কাজে বিশ্বাসী। বিপ্লব মিত্র ঠিক কি করতে পারে, তা তৃণমূলের অনেকেই জানেন। আর তাইতো এখন আতঙ্কে তৃণমূলের নেতা নেত্রীরা ভয় পেয়ে গিয়েছেন।

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের একাংশের মতে, দক্ষিণ দিনাজপুর জেলায় তৃণমূলের প্রতিষ্ঠাতা বিপ্লব মিত্র বিজেপিতে যাওয়ার পর তাকে ঘিরে সোশ্যাল মিডিয়ায় জেলা তৃণমূলের সভানেত্রী অর্পিতা ঘোষের ঘনিষ্ঠ ব্যক্তিরা যেভাবে কটুক্তি শুরু করেছেন, তাতে সেই ব্যক্তিদের অনেকেই এই বিপ্লববাবুর হাত ধরে রাজনীতিতে এসেছেন।

আর এখানেই অনেকের প্রশ্ন, এবার কি জেলায় ফিরে সেই সমস্ত ব্যক্তিদেরও কাবু করতে নিজের রাজনৈতিক ঘুটি সাজাবেন! বিজেপি নেতা বিপ্লব মিত্র অর্পিতা দেবীর ঘনিষ্ঠ ব্যক্তিদেরও কি অবশেষে নিজের দিকে টানবেন! জোর জল্পনা রাজনৈতিক মহলে।

Top
error: Content is protected !!