এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > ফের বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে, দলীয় কর্মীর স্ত্রীর উপর হামলার অভিযোগ বিজেপির মন্ডল সভাপতি

ফের বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে, দলীয় কর্মীর স্ত্রীর উপর হামলার অভিযোগ বিজেপির মন্ডল সভাপতি

লোকসভা ভোটের আগে থেকেই বঙ্গে বিজেপির বাড়বাড়ন্ত লক্ষণীয়। বর্তমানে শাসকদলকে টেক্কা দিতে পারে এখন বঙ্গের সেরকম একটি দল আছে তাহলে বিজেপি।লোকসভা ভোটের পর চিত্র পরিষ্কার হয়ে গেছে 42 টি আসনের মধ্যে 18 টি আসন বিজেপি নিজের দখলে রেখেছে। সাথে অন্য দল ভেঙে নিজেদের ঘর গুছিয়েছে গেরুয়া শিবির। এখনো সে ধারা অব্যাহত।

কিন্তু দল বাড়ার সাথে সাথে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব চরম আকার ধারণ করেছে। বারবার খবরের শিরোনামে এসে পড়ছে বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দের কথা। এদিন ফের উত্তর 24 পরগনার কামারহাটিতে প্রকাশ্যে চলে এল বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব। বিজেপির মন্ডল সভাপতি রতন পোদ্দার এর বিরুদ্ধে অভিযোগ দলীয় কর্মীর স্ত্রীর শ্লীলতাহানি এবং বাড়িতে আগ্নেয়াস্ত্র নিয়ে হামলা করেছেন তিনি। অভিযোগ উঠেছে গতকাল রাত্রে কামারহাটি পৌরসভার 30 নম্বর ওয়ার্ডের বেলঘড়িয়া চন্দননগরে এক বিজেপি কর্মীর বাড়িতে সশস্ত্র দুষ্কৃতীদের নিয়ে চড়াও হন বিজেপি মন্ডল সভাপতি রতন পোদ্দার। বিজেপি কর্মীর শ্লীলতাহানি করার পাশাপাশি ব্যাপক মারধর করার অভিযোগ উঠেছে তার বিরুদ্ধে।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

কি কারনে এমন হলো এর ব্যাখ্যা দিয়ে বিজেপি কর্মী দাবি দলের ওই নেতার বিরুদ্ধে অনেক অসামাজিক কাজকর্মের অভিযোগ রয়েছে আর সেই অসামাজিক কাজ কর্মের প্রতিবাদ করতেই এইভাবে তার পরিবারের উপর আক্রমণ চালিয়েছেন মন্ডল সভাপতি এবং ওই কর্মী জানিয়েছেন তিনি চুপ করে বসে থাকবেন না এর বিরুদ্ধে শীর্ষ নেতৃত্বকে জানাবেন। এর পরেই ওই বিজেপি নেতার বিরুদ্ধে বেলঘড়িয়া থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

অবশ্য অভিযুক্ত বিজেপি নেতা তার বিরুদ্ধে ওঠা সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। তিনি দাবি করেছেন ওই কর্মী তৃণমূলের সাথে যোগসাজশ করে এমন কাণ্ড ঘটিয়েছেন। যদিও তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি কামারহাটি পৌরসভার পৌর প্রধান গোপাল সাহা দাবি করেছেন এই ঘটনা বিজেপির গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ফলে ঘটেছে এর সঙ্গে তৃণমূলের কোন হাত নেই।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!