এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বাংলা তো ছেড়ে দিন, গোটা ভারত জুড়ে বিজেপির ঝুলিতে শূন্য আসনের ভবিষ্যৎবাণী তৃণমূল নেত্রীর

বাংলা তো ছেড়ে দিন, গোটা ভারত জুড়ে বিজেপির ঝুলিতে শূন্য আসনের ভবিষ্যৎবাণী তৃণমূল নেত্রীর

Priyo Bandhu Media

মাঝে মাত্র একটা দিন – আর তারপরেই দেশের পরবর্তী কেন্দ্র সরকার ও প্রধানমন্ত্রী বেছে নেওয়ার লক্ষ্যে আনুষ্ঠানিক ভাবে ভোটগ্রহণ প্রক্রিয়ায় অংশগ্রহণ করা শুরু করবে সমগ্র ভারতবাসী। আর তাই প্রথম দফার ভোটগ্রহণের আগে বাংলায় ক্রমশ বাড়ছে রাজনৈতিক পারদ। দেশের বর্তমান ক্ষমতাসীন দল বিজেপির দাবী আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে বাংলা থেকে অন্তত ২২-২৩ টি আসন জিততে চলেছে তারা। কিন্তু, বাংলায় বিজেপির ঝুলি শূন্য থাকবে আগেই আত্মপ্রত্যয়ের সাথে জানিয়েছিলেন তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বোচ্চ নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

নির্বাচনী প্রচারে নেমে তিনি আগেই জানিয়েছিলেন বাংলা থেকে ৪২ টি আসন হইতেই নাকি দিল্লিতে বিজেপিকে সরিয়ে দেশের পরবর্তী সরকার গড়বে তৃণমূল কংগ্রেস। এমনকি, ঘুরিয়ে জানিয়ে দিয়েছিলেন দেশের পরবর্তী প্রধানমন্ত্রী হওয়ার দৌড়ে নাকি তিনি প্রবলভাবে আছেন। কিন্তু, আজ রায়গঞ্জে দলীয় প্রার্থী কানাইয়ালাল আগরওয়ালের সমর্থনে প্রচারে গিয়ে তৃণমূল কংগ্রেসের সর্বোচ্চ নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যা বললেন – তাতে বঙ্গ-রাজনীতি তো বটেই চমকে গিয়েছে গোটা জাতীয় রাজনীতিই। নরেন্দ্র মোদির নেতৃত্বাধীন বিজেপি গোটা দেশ থেকে ধুয়ে মুছে সাফ হয়ে যাবে বলে দাবি করেন তৃণমূল নেত্রী।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

একইসঙ্গে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের দাবি, মোদি সরকারের আমলে নোটবন্দি সবচেয়ে বড় দুর্নীতি। তৃণমূল নেত্রীর আরও দাবি, গোরক্ষার নামে গণপ্রহারে খুন, পুলওয়ামার জঙ্গিহামলা প্রভৃতি ঘটনায় দেশবাসী নাকি বিজেপির উপরে এতটাই ক্ষুব্ধ যে বাংলার ৪২টি আসনের বাইরেও উত্তরপ্রদেশ, রাজস্থান, বিহার, গুজরাট, পাঞ্জাব, তামিলনাড়ু-সহ বাকি সবকটি রাজ্যের সবকটি আসনেই বিজেপি হারবে! কোনও আসনে জয় তো দূরের কথা, নির্বাচনের পর অস্তিত্ব সংকটেও ভুগতে পারে গেরুয়া শিবির! আর এই কথার পরিপ্রেক্ষিতেই রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের বক্তব্য, গোটা দেশ থেকে নরেন্দ্র মোদী ও অমিত শাহের নেতৃত্বে বিজেপি কি তাহলে শূন্য আসন পাবে বলেই আজ ভবিষ্যৎবাণী করে দিলেন তৃণমূল নেত্রী?

এমনিতেই ঐতিহাসিকভাবে দেখলে রায়গঞ্জ আসন কখনও বামেদের দখলে গেছে তো কখনো কংগ্রেসের দখলে। এমনকি গতবার রায়গঞ্জে প্রিয়রঞ্জন দাশমুন্সির জনপ্রিয়তাকে কাজে লাগিয়ে বাজিমাত করতে তৃণমূল কংগ্রেস এখানে প্রার্থী করে তাঁর ভাইকে – কিন্তু তাঁকে চতুর্থ হয়েই শেষ করতে হয়। রাজ্যজুড়ে প্রবল তৃণমূল হওয়ার মধ্যেও এখানে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হয় বামফ্রন্ট ও কংগ্রেসের মধ্যে। ফটো ফিনিশে সিপিএমের মহম্মদ সেলিম বাজিমাত করলেও চমকে দেয় বিজেপির ভোট বৃদ্ধি। এমনিতেই এখানে কিছুদিন গুলি চালনায় দুই ছাত্রের মৃত্যুতে তৃণমূল ব্যাকফুটে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল। তার উপরে এবারে এখানে তৃণমূল প্রার্থী করেছে গত বিধানসভা নির্বাচনে বাম-কংগ্রেসের সমর্থনে জেতা প্রার্থীকে। তবুও এই আসনে তো বটেই, গোটা বাংলাতেই ঘাসফুল ফুটবে আর তার সঙ্গে গোটা দেশে সবকটি আসনে বিজেপি হারবে দাবি করে চমকে দিলেন তৃণমূল নেত্রী।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!