এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বিজেপির হার্মাদ-গুন্ডাদের বলছি, গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে না লড়ে যদি আর এক ইঞ্চি এগোন তাহলে দেখা হবে: শুভেন্দু অধিকারী

বিজেপির হার্মাদ-গুন্ডাদের বলছি, গণতান্ত্রিক পদ্ধতিতে না লড়ে যদি আর এক ইঞ্চি এগোন তাহলে দেখা হবে: শুভেন্দু অধিকারী

লোকসভা ভোটের দিনক্ষণ যতই এগিয়ে আসছে ততই যেন রাজ্যের শাসক দল তৃণমূল বনাম বিরোধী দল বিজেপির রাজনৈতিক বাক্য বিনিময়ের পারদ চড়তে শুরু করেছে। প্রসঙ্গত, বিভিন্ন সময়েই রাজ্যের শাসক দলকে উদ্দেশ্য করে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের মন্তব্য রাজ্য রাজনীতিতে তীব্র বিতর্ক বাড়িয়ে দিয়েছে। আর গতকাল দলের প্রতিষ্ঠা দিবসে পতাকা উত্তোলনের সময় নাম না করে বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকেই হুঁশিয়ারি দিলেন রাজ্যের পরিবহন ও পরিবেশ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী।

এদিন কেশিয়াড়ি বাসস্ট্যান্ডে দলের প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে শুভেন্দুবাবু বলেন, “বিজেপির হার্মাদ গুন্ডাদের বলছি যদি লালুয়া, জামদিয়ায় আর এক ইঞ্চি এগোন তাহলে সেখানে আপনাদের সঙ্গে শুভেন্দু অধিকারীর দেখা হবে। ভাত টিপে দেখছেন চালটা নরম হয়েছে কিনা। আমি তো মাওবাদী, সিপিএমকে সোজা করে দিয়েছি, আপনি তাঁদের থেকে নিশ্চয়ই বড় নেতা নন।”

 

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

জানা যাচ্ছে,এদিন বছরের শুরুর দিনেই তৃণমূলের প্রতিষ্ঠা দিবস উদযাপনের সময় তৃণমূল কর্মীদের ওপর বিজেপির একাংশ হামলা চালায়। যার পরিপেক্ষিতে সেই প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠানে এসেই বিজেপির বিরুদ্ধে সুর চড়ালেন শুভেন্দু অধিকারী। এদিন বিজেপিকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, “আমরা গণতান্ত্রিক লড়াই চাই। আর সেই লড়াইয়ে যদি আপনারা জেনে তাহলে আমরা পরাজয় স্বীকার করে নেবার যদি। আর আপনারা হারলে তাহলে আপনারা পরাজয় স্বীকার করবেন। শূন্য থেকে কিভাবে পূর্ণ করতে হয় তা আমার জানা আছে। গণতান্ত্রিকভাবে লড়াই করুন, না হলে আপনাদেরও পরিণতি একদিন সিপিএমের মতো হবে।”

এদিকে তৃণমূলের 21 তম প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে এদিন কাঁথির 8 নম্বর ওয়ার্ডের শেরপুরেও সমাবেশের আয়োজন করা হয়। যেখানে উপস্থিত হয়ে আসন্ন লোকসভা নির্বাচনে রাজ্যের 42 টির মধ্যে 42 টি আসনেই তৃনমূলকে জয়যুক্ত করার আহ্বান জানিয়ে ভবিষ্যতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ই ভারতবর্ষের প্রধানমন্ত্রী হবেন বলে জানান রাজ্যের পরিবহণমন্ত্রী।

পাশাপাশি কেন্দ্রের বর্তমান বিজেপি সরকারের বিভিন্ন জনবিরোধী নীতিরও কটাক্ষ করতে শোনা যায় শুভেন্দু অধিকারীকে। তিনি বলেন, “বিজেপি ও নরেন্দ্র মোদী ক্ষমতায় আসার আগে অনেক প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন। কিন্তু ক্ষমতায় এসে বিজেপি ধর্মের নামে ভুল পথে মানুষকে পরিচালিত করছে। রাজ্যের বিভিন্ন প্রকল্প কেন্দ্রের প্রকল্প বলে চালানো হচ্ছে। এগুলো আমরা মেনে নেব না।”

 

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

রাজনৈতিক মহলের মতে, এই 2019 তৃনমূলের কাছে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই বছরের শুরুর দিনে দলের প্রতিষ্ঠা দিবসের অনুষ্ঠান থেকেই ফের বিজেপির বিরুদ্ধে নিজেদের বিরোধিতা সুর চওড়া করে আগামী দিনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে প্রধানমন্ত্রী আসনের দেখবার জন্য সকলের কাছে আহ্বান জানালেন রাজ্যের হেভিওয়েট মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী।

এদিকে তৃণমূলের প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে সোমবার রাত 12 টায় কাঁথির চৌরঙ্গী মোড়ে দলের পতাকা উত্তোলন করেন জেলা তৃণমূলের সভাপতি তথা সাংসদ শিশির অধিকারী। তবে শুধু কাঁথিতেই নয়, দলের প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে এদিন জেলার সর্বত্র নানা অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। সবং এর দেহাটি থেকে তেমাথানি পর্যন্ত পদযাত্রা করেন রাজ্যের সেচমন্ত্রী সৌমেন মহাপাত্র, রাজ্যসভার সাংসদ মানস ভুঁইয়া সহ অন্যান্যরা।

এছাড়াও ঝাড়গ্রামে দলের প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে একটি বিশাল মিছিলের আয়োজন করা হয়। যেখানে উপস্থিত ছিলেন ঝাড়গ্রাম জেলা তৃনমূলের কনভেনার উজ্জ্বল দত্ত, ঝাড়গ্রাম শহর তৃণমূলের সভাপতি প্রশান্ত রায় সহ অন্যান্যরা।

সব মিলিয়ে দলের প্রতিষ্ঠা দিবসে কোথাও মিছিল, আবার কোথাওবা কেন্দ্র সরকারকে ক্ষমতার মসনদ থেকে সরিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কেই ভবিষ্যৎ প্রধানমন্ত্রী রূপে দেখবার ইচ্ছা প্রকাশ করে সাধারণ মানুষের কাছে আগামী লোকসভা নির্বাচনে বাংলার 42 এ 42 করার আহ্বান জানালেন তৃণমূলের হেভিওয়েট নেতা মন্ত্রীরা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!