এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > লাভপুরে বিজেপি নেতার কন্যা অপহরণ কাণ্ডে এবার বিস্ফোরক অভিযোগে সরব হলেন বিজেপি সভাপতি

লাভপুরে বিজেপি নেতার কন্যা অপহরণ কাণ্ডে এবার বিস্ফোরক অভিযোগে সরব হলেন বিজেপি সভাপতি


লাভপুরের বিজেপি নেতার অপহৃত কন্যা প্রথমা বটব্যালকে খুঁজে পাওয়া গেলেও তাঁর অপহরণ কাণ্ড নিয়ে রাজনীতি করা ছাড়ছে না তৃণমূল-বিজেপি। আর এই রাজনীতির প্রেক্ষিতকে উস্কে দিয়েছে অপহরণ কাণ্ডে অপহৃতার বাবা অর্থাৎ বিজেপি নেতা সুপ্রভাত বটব্যালের গ্রেফতারির খবর। গতকালই নদীয়ায় দাঁড়িয়ে বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল বলেছিলেন, “এটা পুরোপুরি পরিকল্পিত ঘটনা। প্রথমদিন থেকে আমি সেটাই বলছি।” এবার এই বিষয়েই মুখ খুললেন বিজেপি বীরভূম জেলা সভাপতি।

সুপ্রভাত বটব্যালের গ্রেফতারি প্রসঙ্গে বীরভূম জেলা বিজেপি সভাপতি রামকৃষ্ণ রায় বললেন, “আসলে এটাই স্বাভাবিক। কারণ এই প্রশাসন ও তৃণমূলের কর্মীরা, যারা আসল দোষী তাদের আড়াল করার জন্য প্রথমার বাবাকে গ্রেপ্তার করেছে।” প্রসঙ্গত, গত বৃহস্পতিবার থেকে নিখোঁজ ছিল লাভপুরের বিজেপি নেতার মেয়ে প্রথমা বটব্যাল। অবশেষে গতকাল সকাল ছ’টায় উত্তরবঙ্গের ডালখোলা স্টেশন থেকে তাঁকে উদ্ধার করে পুলিশ। পাশাপাশি পুলিশ পাকরাও করে দু’জন দুষ্কৃতিকেও। তবে সবাইকে চমকে দিয়ে, ঘটনার নেপথ্যে অপহৃতার বাবা অর্থাৎ সুপ্রভাত বটব্যালের ‘হাত’ আছে, এমন ‘প্রমাণ’ পেয়ে তাঁকেও গ্রেফতারও করে পুলিশ।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

পুলিশ জানিয়েছে, রাজনৈতিক কর্মকাণ্ড থেকে বাঁচতেই নিজেরই মেয়ের অপহরণের পরিকল্পনা করেছিলেন বিজেপি নেতা। অপহরণের আগের দিনও বোলপুরে দুষ্কৃতিদের সঙ্গে দেখা করেন সুপ্রভাতবাবু। এর উপযুক্ত ‘প্রমাণ’ রয়েছে পুলিশের হাতে। আর তার উপর ভিত্তি করেই গ্রেফতার করা হয়েছে সুপ্রভাতবাবুকে। এই প্রসঙ্গেই এদিন মন্তব্য করেন বিজেপি জেলা সভাপতি রামকৃষ্ণ রায়। বলেন, তদন্তকে বিভ্রান্ত করার জন্যেই অপহৃতার বাবার দিকে আঙুল তোলা হচ্ছে। এই প্রেক্ষিতে কী করা উচিৎ তা বিজেপির তরফ থেকে আলোচনা করেই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

তিনি আরো বলেন, গতকাল থেকেই এ বিষয়ে তাঁর সন্দেহ হচ্ছিল যে দোষীদের বাঁচানোর জন্যেই ষড়যন্ত্র করে অপহৃতার বাবার দিকে আঙুল তোলা হচ্ছে। আর তারপরই আশঙ্কাকে সত্যি করে সুপ্রভাত বটব্যালের গ্রেফতার করল পুলিশ। তবে এটাই প্রথম নয়, এর আগেও তৃণমূলের লোকজন সুপ্রভাতবাবুর উপর আক্রমণ করেছে। সুপ্রভাতবাবু পঞ্চায়েত ভোটের আগে বিজেপিতে যোগ দেওয়ায় তৃণমূলের ক্ষোভের শিকার হন। বহুবার তাঁকে আক্রমণ করা হয়েছে, তাঁর বাড়ি গিয়ে প্রাণে মারার হুমকি দিয়ে এসেছে তৃণমূল। শুধু তাই নয়, POCSO মামলাতেও তাকে ফাঁসানো হয়েছে এবং এগুলো সবই তৃণমূলকে মদতে হয়েছে – বলে দাবী করলেন বিজেপি জেলা সভাপতি।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!