এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > নির্বাচনে প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করলো বিজেপি, প্রবল গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে অস্বস্তিতে গেরুয়া শিবির !

নির্বাচনে প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করলো বিজেপি, প্রবল গোষ্ঠীদ্বন্দ্বে অস্বস্তিতে গেরুয়া শিবির !

Priyo Bandhu Media


গোটা দেশের শাসন ক্ষমতা তাদের হাতে থাকলেও, ভারতবর্ষের যে জায়গাটিতে কেন্দ্র সরকারের অধিষ্ঠান, সেই দিল্লির ক্ষমতায় রয়েছে বিজেপি বিরোধী দল আম আদমি পার্টি। ফলে সেদিক থেকে এবারের দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনে আম আদমি পার্টিকে সরাতে উদ্যোগী ভারতীয় জনতা পার্টি। হাতে আর মাত্র কিছুদিন বাকি‌। তারপরেই দিল্লি বিধানসভার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ইতিমধ্যেই জোর প্রচার শুরু করে দিয়েছে প্রতিটি রাজনৈতিক দল।

তবে এখানে এবার মূল লড়াই যে আম আদমি পার্টি বনাম ভারতীয় জনতা পার্টির মধ্যে হবে, তা বুঝতে বাকি নেই কারোরই। আর এই পরিস্থিতিতে বিন্দুমাত্র সময় নষ্ট না করে, এবার দিল্লি বিধানসভা নির্বাচনে 57 জনের প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করে দিল গেরুয়া শিবির। কিন্তু বিজেপি নির্বাচনে ভালো ফল লাভ করার আশায়, তড়িঘড়ি প্রার্থী ঘোষণা করলেও, তা নিয়ে এখন প্রবল বিড়ম্বনায় পড়েছে তারা। জানা গেছে, এই প্রার্থী তালিকা প্রকাশের পর থেকেই বিজেপির অন্দরে শুরু হয়েছে তুমুল গোষ্ঠী কোন্দল।


WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছে গিয়েছে যে, শনিবার দিল্লি ক্যান্টনমেন্টে বিজেপির কার্যনির্বাহী সভাপতি জেপি নাড্ডার বাড়ির সামনে বিক্ষোভ দেখাতে দেখা যায় প্রচুর বিজেপি কর্মী সমর্থকদের। কিন্তু কেন এই বিক্ষোভ! বিশেষ সূত্র মালপত্র খবর অনুযায়ী জানা গেছে, দিল্লির গান্ধীনগর এবং মডেল টাউন বিধানসভা কেন্দ্রে আম আদমি পার্টির প্রাক্তন বিধায়ক কপিল মিশ্র এবং অনিল বাজপেয়ীকে প্রার্থী করেছে ভারতীয় জনতা পার্টি। আর এটা নিয়েই বিজেপির একাংশের তীব্র আপত্তি রয়েছে। যার ফলস্বরুপ এই সমস্ত ব্যক্তিদের প্রার্থী হওয়ার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানিয়েছে বিজেপির কর্মী-সমর্থকরা।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, নির্বাচনে প্রার্থী ঘোষণা করাতেই যদি বিজেপির অন্দরে এহেন সমস্যা তৈরি হয়, তাহলে তারা ভবিষ্যতে কিভাবে এই রাজ্যে জয় নিয়ে আসবে! নিজেদের দলের গোষ্ঠী কোন্দল যদি এভাবে চলতে থাকে, তাহলে বিজেপির পক্ষে কি সাফল্য পাওয়া আদৌ সম্ভব হবে! এখন এই প্রশ্নই উঠতে শুরু করেছে সর্বত্র। সব মিলিয়ে প্রার্থী নিয়ে দলের অন্দরে অসন্তোষ মেটাতে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব এখন কোনো পদক্ষেপ নেয় কিনা! সেদিকেই নজর থাকবে সকলের।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!