এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > কোন অংকে খড়গপুরবাসী বিজেপি প্রার্থীকেই বিধায়ক করবেন? “ফাঁস” করলেন দিলীপ ঘোষ

কোন অংকে খড়গপুরবাসী বিজেপি প্রার্থীকেই বিধায়ক করবেন? “ফাঁস” করলেন দিলীপ ঘোষ

 

2016 সালে খড়গপুর বিধানসভা কেন্দ্র থেকে জয়লাভ করেছিলেন বিজেপির দিলীপ ঘোষ। আর তারপর থেকেই যতদিন গিয়েছে, ততই খড়গপুর যেন বিজেপি গড় হতে শুরু করেছিল। সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে মেদিনীপুর লোকসভা কেন্দ্র থেকে দিলীপ ঘোষের জয়ের পেছনে সেই খড়গপুরের বড় অবদান ছিল বলে দাবি করেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা।

তবে দিলীপ ঘোষের ছেড়ে যাওয়া এই কেন্দ্রের উপনির্বাচনে বিজেপি এই কেন্দ্র দখল রাখতে পারবে, নাকি তৃণমূল যেভাবে এই কেন্দ্র দখলে ঝাঁপিয়ে পড়েছে, তাতে তারাই শেষ হাসি হাসবে! এখন তা নিয়েই বিভিন্ন মহলে জল্পনা শুরু হয়েছে। তবে ছেড়ে দেওয়ার পাত্র নন এখানকার ভূতপূর্ব বিধায়ক তথা বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। আর তাইতো কিভাবে খড়্গপুরে তাদের প্রার্থী প্রেমচাঁদ ঝা জয়লাভ করবেন, তা এদিন ফাঁস করে দিলেন তিনি।

সূত্রের খবর, রবিবার বিজেপি প্রার্থীর সমর্থনে গোলবাজারে ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলেন মেদিনীপুরের সাংসদ তথা বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এদিন তার সাথে ছিলেন বিজেপি প্রার্থী প্রেমচাঁদ ঝা, রাজ্য বিজেপি নেতা তুষার মুখোপাধ্যায় সহ অন্যান্যরা। আর দীলিপবাবুকে কাছে পেয়ে ব্যবসায়ীরা তাদের বেশ কিছু সমস্যার কথা প্রাক্তন বিধায়কের কাছে তুলে ধরেন।

জানা গেছে, গোলবাজারে প্রায় 470 টি দোকান রয়েছে আর সেই সব দোকানে যেমন বিদ্যুতের সমস্যা রয়েছে, ঠিক তেমনই ভাড়া নিয়েও প্রচুর সমস্যা রয়েছে। বর্তমানে মামলার জেরে প্রবল সমস্যায় রয়েছেন এখানকার মানুষেরা। মাঝেমধ্যেই ব্যবসায়ীরা রেলের বিরুদ্ধে তাদের ক্ষোভ উগরে দেন।

আর এই পরিস্থিতিতে এই ইস্যুকে সামনে রেখে তৃণমূলের শুভেন্দু অধিকারী বিজেপির বিরুদ্ধে সরব হয়ে ভোটের ময়দানে দলীয় প্রার্থীকে জয়লাভ করতে নেমে পড়েছেন। আর তাই তৃণমূলের দিকে যাতে হাওয়া না ঘুরে যায়, তার জন্য এদিন ব্যবসায়ীদের এই ক্ষোভকে মান্যতা দিয়ে তা সমাধানের আশ্বাস দেন বিজেপির দিলীপ ঘোষ।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

তিনি বলেন, “আমি সমস্যার কথা শুনেছি। এর আগে রেলমন্ত্রী সহ সব জায়গায় বলেছি। আবার সংসদ চালু হলে বিষয়গুলি তুলে ধরব। আসলে আমলাতান্ত্রিক বাধা আছে। তার মধ্যে দিয়ে আমাদের কাজ করতে হবে। মাঝেমধ্যেই রেল উচ্ছেদের হুমকি দেয়। আমরা বলেছি, এভাবে করলে চলবে না। এতদিন ধরে যারা আছেন, তারা যাবেন কোথায়! আমি রেলকে আবাসন ও মার্কেটপ্লেস করার জন্য দুটি প্রকল্প জমা দিয়েছি।”

আর এরপরই দলীয় প্রার্থীর সমর্থনে গোলবাজারের প্রচার সভা থেকে নিজের বক্তব্য দেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সেখানেই তাদের প্রার্থী জয়লাভ করবে বলে আত্মপ্রত্যয়ী মনোভাব পোষণ করেন এখানকার ভূতপূর্ব বিজেপি বিধায়ক। দিলীপ ঘোষ বলেন, “আমি বিধায়ক ছিলাম, সাংসদ হয়েছি। আমাদের প্রার্থীকে বিধায়ক করলে দুজন মিলে খড়্গপুরের উন্নয়ন করা যাবে। আমি আশাবাদী, আপনারা আগের মতোই চাবি সোজা দিকেই ঘোরাবেন।”

কিন্তু তৃণমূল যেভাবে এই কেন্দ্র দখলে আনতে উঠেপড়ে লেগেছে, তাতে তাদের পক্ষে কি জয় সম্ভব হবে! এদিন এই প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, “তৃণমূল টাকায়, পুলিশে এগিয়ে আছে। আর আমরা খড়্গপুরে শান্তি ফিরিয়ে এনেছি। খড়্গপুরের বাসিন্দারা বিজেপির সঙ্গে আছে। রাজ্যে ওদের সরকার আছে, উন্নয়ন তো ওদের করার কথা। দুটি হাসপাতালে আমি ছিলাম। সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। এমকেডিএর মিটিংয়ে আমাকে ডাকা হয় না। পুরসভা আমার বিধায়ক তহবিলের টাকায় কাজ করবে না বলে জানিয়ে দিয়েছিল। আমি দিল্লি থেকে টাকা আনব বলেছিলাম। কিন্তু ওরা ডিপিআর তৈরি করতে পারিনি। এখন উন্নয়নের কথা বলা হচ্ছে। বলা হচ্ছে, আমি কিছু করিনি। মাথায় রাখুন এবার বিজেপি প্রার্থী 1 লক্ষ ভোট পাবেন।”

তবে বিজেপি রাজ্য সভাপতি এই দাবি করলেও, বাস্তবে তা কতটা মিল খায়, তা ভোটবাক্স খোলার পরেই বোঝা যাবে। যে দিকে তাকিয়ে রয়েছে গোটা রাজনৈতিক মহল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!