এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বিধানসভায় বিজেপির “টার্গেট” 200 +, গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব ভুলে সবাইকে নিয়ে চলার বার্তা অমিত শাহের

বিধানসভায় বিজেপির “টার্গেট” 200 +, গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব ভুলে সবাইকে নিয়ে চলার বার্তা অমিত শাহের

সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের টার্গেট ছিল বাংলা। রাজ্য নেতৃত্বের বহু চেষ্টা এবং পরিশ্রমে সেই বাংলায় সাফল্য পেয়েছে বিজেপি। কিন্তু লোকসভায় সাফল্য পাওয়া বিজেপির লক্ষ্য নয়, বিজেপির মূল লক্ষ্য আগামী 2021 এর বিধানসভা নির্বাচন। যেনতেন প্রকারেণ সেই বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপিকে ভালো ফলাফল করে রাজ্যের ক্ষমতায় আসতে হবে, এই ব্যাপারে ইতিমধ্যেই রাজ্যকে নির্দেশ দিয়ে দিয়েছে কেন্দ্র।

আর এমতাবস্থায় এবার বাংলায় দলের সাংগঠনিক পরিস্থিতি নিয়ে বঙ্গ বিজেপির নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠক করলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। সূত্রের খবর, এদিন রাতে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি নিজের বাসভবনে বাংলার শীর্ষস্তরের বিজেপি নেতাদের সঙ্গে একটি বৈঠক করেন। কিন্তু কি হল সেই বৈঠকে! রাজ্য নেতৃত্বকে ঠিক কী কী বার্তা দিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি!

জানা গেছে, বৈঠকে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি বাংলার বিজেপি নেতাদের স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দিয়েছেন, 2021 এর বিধানসভা নির্বাচনের লক্ষ্যে এখন থেকেই প্রস্তুতি শুরু করে দিতে হবে। নজর রাখতে হবে, দলে যেন কোনো প্রকার গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের ব্যাপার না ঘটে। সকলকে নিয়ে একসাথে চলতে হবে।

বস্তুত, রাজ্যে সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনের পর তৃণমূলের ভরাডুবি হলে তৃণমূল থেকে প্রচুর নেতাকর্মী বিজেপিতে যোগদান করতে শুরু করে। যার ফলে বিজেপিতে আদি বনাম নব্য স্তরের নেতাদের মধ্যে তীব্র কোন্দল শুরু হয়। কিন্তু সেই গোষ্ঠী কোন্দল ভুলে এখন যে তৃণমূলকে সরানোই তাদের মূল টার্গেট, তা এদিন বাংলার বিজেপি নেতৃত্বকে বুঝিয়ে দিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি বলে মত বিশেষজ্ঞদের।

প্রসঙ্গত, গত 14 আগস্ট তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দেন কলকাতার প্রাক্তন মেয়র তথা প্রাক্তন তৃণমূল নেতা শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং তার বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়। কিন্তু তারপর থেকেই বিভিন্ন সময়ে তাদের দুজনকে নিয়ে বিজেপিতে তীব্র গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব শুরু হয়েছে। অমিত শাহ গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব রোধ করার কথা বলে কি এই গোটা ঘটনাটিকেই বোঝানোর চেষ্টা করলেন! তা নিয়েও তৈরি হয়েছে জল্পনা।

অন্যদিকে বিজেপি মিশন 2021 এর লক্ষ্যে বাংলার 294 টি বিধানসভা আসনের মধ্যে 200 টি আসনে জয়ের লক্ষ্যমাত্রা দিয়েছে। কিন্তু সেই প্রভূত আসন দখল করতে গেলে যে বুথস্তরের সংগঠনকে আরও শক্তিশালী করতে হবে, তাও এদিনের বৈঠকে উপস্থিত রাজ্য নেতাদের জানিয়ে দিয়েছেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এদিকে এদিন অমিত শাহের সঙ্গে বৈঠকের আগে দিল্লিতে দুপুরে বিজেপির অন্যতম কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক তথা পশ্চিমবঙ্গের দায়িত্বপ্রাপ্ত কৈলাস বিজয়বর্গীয়, শিবপ্রকাশ এবং অরবিন্দ মেননের সঙ্গে একটি বৈঠক করেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ, বিজেপির অন্যতম কেন্দ্রীয় সম্পাদক রাহুল সিনহা এবং সুব্রত চট্টোপাধ্যায়রা। আর সেখানেই রাজ্যের রাজনৈতিক সন্ত্রাস নিয়ে নানা অভিযোগ করেন তারা।

শুধু তাই নয়, এদিন দিল্লিতে “সেভ বেঙ্গল” ফোরাম আয়োজিত এক আলোচনা সভায় রাজ্যের রাজনৈতিক সন্ত্রাস নিয়ে তৃণমূলের বিরুদ্ধে কড়া ভাষায় আক্রমণ শানান বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, “রাজ্যে গত পঞ্চায়েত নির্বাচনের সময় থেকেই বিজেপি কর্মীদের উপর তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা হামলা চালাচ্ছে। আমাদের প্রচুর কর্মী খুন হয়েছেন। কিন্তু তার কোনো বিচার হচ্ছে না।”

সবমিলিয়ে একদিকে গোষ্ঠীকোন্দল রোধ আর অপরদিকে নিজেদের টার্গেট সম্পর্কে সচেতন হয়ে বুথ সংগঠনকে আরও শক্তিশালী করার ব্যাপারে বিজেপির রাজ্য নেতৃত্বের সঙ্গে বৈঠকে বার্তা দিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!