এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > একই মেরুতে দুই চরম বিরোধী- বালুরঘাট নিয়ে ক্রমশ চাপ বাড়াচ্ছে বিজেপি-আরএসপি

একই মেরুতে দুই চরম বিরোধী- বালুরঘাট নিয়ে ক্রমশ চাপ বাড়াচ্ছে বিজেপি-আরএসপি

প্রতিবছর দুর্গাপুজার সময় যখন আনন্দে মেতে ওঠে রাজ্যবাসী ঠিক তখনই বালুরঘাটের পুজোতে যান চলাচল নিয়ন্ত্রন নিয়ে জেলা প্রশাসনের নির্দেশিকার বিরুদ্ধে সরব হন বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলি। এবারও তার কোনো ব্যাতিক্রম হল না। সূত্রের খবর, এবার পুজোয় বিকেল 4 টে থেকে পরের দিন ভোর 4 টে পর্যন্ত মূল রাস্তা দিয়ে সবরকম যানবাহন চলার ব্যাপারে নিষেধাজ্ঞা জারি চরেছে দক্ষিন দিনাজপুর জেলা প্রশাসন। আর প্রশাসনের এই নির্দেশের পরই সোশাল মিডিয়ায় তীব্র ক্ষোভপ্রকাশ করেন অনেকে। তবে শুধূ সোশাল মিডিয়ায় নয়, এবার জেলা প্রশাসনের এহেন সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে মাঠে নামল আরএসপি এবং বিজেপি।

জানা যায়, বুধবার সকালে এই ব্যাপারে আরএসপির জেলা সম্পাদক তথা বালুরঘাটের বিধায়ক বিশ্বনাথ চৌধুরীর নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল জেলাশাসক দীপাপ প্রিয় পির সাথে দেখা করেন। বিকেল 5 টা থেকে রাত 1 টা পর্যন্ত এই চারচাকা গাড়ির ওপর নিষেধাজ্ঞা জারির ওপর আবেদন জানান তারা। পরে জেলার প্রশাসনিক ভবন থেকে বেরিয়ে বিশ্বনাথ চৌধুরী বলেন, “গতবছরও এরকম নিয়ম করা হয়েছিল। কিন্তু এভাবে মানুষ আরও বিপদে পড়বে। আমরা চাই সকলে সুষ্টুভাবে প্রতিমা দর্শন করুক।”

অন্যদিকে বামেদের তরফে বিশ্বনাথ চৌধুরীর নেতৃত্বে এক প্রতিনিধি দল ডিএম অফিস ছাড়া মাত্রই জেলা প্রশাসনের বিরুদ্ধে বামেদের মত একই দাবি নিয়ে জেলাশাসকের সাথে দেখা করেন জেলা বিজেপির একটি প্রতিনিধি দল। পরে বাইরে বেরিয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে জেলা বিজেপির সভাপতি শুভেন্দু সরকার বলেন, “প্রশাসন কারওর সাথে আলোচনা না করেই হঠকারী সিদ্ধান্ত নিয়েছে। যদি প্রশাসন তাদের সিদ্ধাক্সন্ত থেকে না সরে তাহলে আমরা আন্দোলনে নামব।”

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

কিন্তু এই ব্যাপারে কি মত জেলা প্রশাসনের! এদিন এই প্রশ্নের উত্তরে দক্ষিন দিনাজপুর জেলার জেলাশাসক দীপা প্রিয়া পালরাজ বলেন, “দর্শনার্থীরা যাতে সুষ্টুভাবে ঠাকুর দেখতে পারেন তাই এমন নিয়ম করা হয়েছে। দুটি রাজনৈতিক দল সময়সীমা শিথিল করতে বলেছে। আমরা সবটাই খতিয়ে দেখেই সিদ্ধান্ত নেব।” রাজনৈতিক মহলের মতে, আগামী লোকসভা ভোটে নিজেদের জনদরদী প্রমান করতে এবার পুজোয় যানচলাচলের সময়সীমা নিয়ে প্রশাসনের ওপর চাপ বাড়ানোর চেষ্টা করলেন জেলার বাম এবং বিজেপি নেতারা।

Top
error: Content is protected !!