এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > তৃণমূলের চাপ বাড়িয়ে ফের সামনে এলেন শোভন বৈশাখী – স্বস্তিতে গেরুয়া শিবির

তৃণমূলের চাপ বাড়িয়ে ফের সামনে এলেন শোভন বৈশাখী – স্বস্তিতে গেরুয়া শিবির

অবশেষে পর্দার আড়াল থেকে বেরোলেন তাঁরা। তাঁরা বিজেপিতে আছেন, নাকি রাজনৈতিক জীবন থেকে সন্ন্যাস নিয়েছেন! সম্প্রতি তা নিয়ে রহস্য উন্মোচন করতে ব্যস্ত ছিলেন প্রায় প্রতিটি মহলই। বান্ধবী বৈশাখী বন্দোপাধ্যায়কে নিয়ে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও তৃণমূল দলের একাংশের আপত্তির জন্য মন্ত্রিত্ব ছেড়ে দিয়েছিলেন শোভন চট্টোপাধ্যায়।

পরবর্তীতে দীর্ঘদিন বাড়িতে বসে থাকলেও গত 14 আগস্ট বিজেপির দিল্লির দপ্তরে গিয়ে বান্ধবীকে সাথে নিয়েই পদ্মফুল শিবিরে নাম লেখাতে দেখা গিয়েছিল তাঁকে। কিন্তু বিজেপিতে গিয়েও সেই বৈশাখীদেবীকে নিয়ে শোভনবাবু। নানা সময় বিজেপির অনেক নেতৃত্বের তরফে বৈশাখী বন্দোপাধ্যায়কে নিয়ে কটাক্ষও তাকে হজম করতে হয়েছে বলে দাবি একাংশের।

পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে গিয়েছিল যে দিল্লিতে গিয়ে মুকুল রায়ের সঙ্গে সেই বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায় এবং শোভন চট্টোপাধ্যায় দেখা করেছিলেন। কিন্তু তার পর থেকে বিজেপির আর কোনো কর্মসূচিতে দেখা যায়নি শোভনবাবুকে। মাঝে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ কলকাতায় আসলেও সেই সমাবেশে উপস্থিত থাকতে দেখা যায়নি শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং তার বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এমনকি বর্তমানে বিজেপির যে গান্ধীর সংকল্প যাত্রা চলছে, তার নাগপাশেও দেখা যায়নি এই প্রাক্তন মন্ত্রীকে। যার ফলে রাজ্যের রাজনৈতিক মহলে তীব্র জল্পনার সৃষ্টি হয়েছিল যে, তাহলে কি এবার বিজেপি ত্যাগ করে রাজনীতি থেকে সন্ন্যাস নিতে চলেছেন শোভনবাবু! বিভিন্ন মহলে যখন এই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, ঠিক তখনই বিজেপির প্রাক্তন রাজ্য সভাপতি তথা কেন্দ্রীয় নেতা রাহুল সিনহার জন্মদিনে গতকাল সল্টলেকের স্ট্যাডেল হোটেলে উপস্থিত থাকতে দেখা গেল শোভন চট্টোপাধ্যায় এবং তার বান্ধবী বৈশাখী বন্দ্যোপাধ্যায়কে।

জানা যায়, এদিন রাহুলবাবুর জন্মদিনের অনুষ্ঠানে এসে তাকে অভিনন্দন জানান শোভন চট্টোপাধ্যায়। কিন্তু এতদিন বিজেপির তরফে এত গুরুত্বপূর্ণ রাজনৈতিক কর্মসূচি হলেও একজন রাজনৈতিক লোক সেই কর্মসূচিতে যোগ না দিয়ে হঠাৎ কেন রাহুল সিনহার জন্মদিনে উপস্থিত হলেন! এখন তা নিয়েই উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন।

অনেকে বলছেন, শোভনবাবুর কি এতই জরুরী কাজ ছিল যে, তিনি দলের সর্বভারতীয় সভাপতির আসা অনুষ্ঠানে আমন্ত্রিত থেকেও উপস্থিত হতে পারলেন না! আর তার থেকেও তার কাছে গুরুত্বপূর্ণ হল, রাহুল সিনহার এই জন্মদিন! তবে শোভন চট্টোপাধ্যায়কে এদিন অবশেষে দেখতে পাওয়ায় তার রাজনৈতিক সন্ন্যাস নিয়ে যে গুঞ্জন সৃষ্টি হয়েছিল, তাতে অনেকটা ভাটা পড়ল বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

আর এইভাবে বিজেপির সাথে ফের ঘনিষ্ঠতা দেখা যাওয়ায় চাপ বাড়লো তৃণমূলের বলে মত রাজনৈতিকমহলের। কেননা তাদের মতে, বিজেপির সাথে দূরত্ব বাড়ায় তৃণমূলে ফেরার একটা সম্ভাবনা তৈরী হয়েছিল প্রাক্তন মেয়র ও তাঁর বান্ধবীর। কিন্তু সে আশায় জল পড়লো ফলে কিছুটা হলেও আশাহত হলো শাসাকশিবির।আর অন্যদিকে গেরুয়া শিবিরেও স্বস্তি বাড়লো কেননা তাদেরকে শোভন ও বৈশাখীকে নিয়ে নানা প্রকার প্রশ্নের মুখোমুখি হতে হচ্ছিলো।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!