এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা >   ঘর ওয়াপসির পেছনে কি বিজেপির হাত! জোর চাঞ্চল্য রাজ্যে

  ঘর ওয়াপসির পেছনে কি বিজেপির হাত! জোর চাঞ্চল্য রাজ্যে

লোকসভা নির্বাচনে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তার 42 এ 42 এর টার্গেট পূরণ না করার পরই বাংলায় গেরুয়া শিবিরের শক্তি বৃদ্ধি হতে শুরু করে। পরিস্থিতি এমন পর্যায়ে পৌঁছে যায় যে, একের পর এক তৃণমূলের বিধায়ক এবং কাউন্সিলার বিজেপিতে নাম লেখান।

বিজেপি নেতা মুকুল রায়ের খাসতালুক উত্তর 24 পরগনার কাঁচরাপাড়া, হালিশহর পৌরসভা থেকে বিভিন্ন জনপ্রতিনিধিদের তৃণমূল থেকে বিজেপিতে এনে সেই মুকুলবাবুরই প্রাক্তন নেত্রীকে মাস্টারস্ট্রোক দেয় গেরুয়া শিবির। কিন্তু বর্তমানে সেই অবস্থার পরিবর্তন হতে শুরু করেছে। হালিশহর, কাঁচরাপাড়ার যে সমস্ত কাউন্সিলররা তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে গিয়েছিলেন, তারা সকলেই ফের তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে আসতে শুরু করেছেন।

যা নিঃসন্দেহে অস্বস্তি বাড়িয়েছে বিজেপির। কিন্তু এই ঘটনার পেছনে রাজনৈতিক নীতি এবং কৌশল রয়েছে বলে কিছুদিন আগেই জানিয়ে দিয়েছিলেন বঙ্গ বিজেপির চাণক্য মুকুল রায়। আর এখানেই প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে যে, তাহলে কি যারা বিজেপিতে গিয়ে ফের তৃণমূলে ফিরে আসছে, তারা কি আদৌ মন থেকে তৃণমূল এই ফিরে আসছে! নাকি এর পেছনে রয়েছে গেরুয়া শিবিরের কৌশল! তা নিয়ে ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে জল্পনা।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, লোকসভা নির্বাচনের পর থেকেই দলবদল বঙ্গ রাজনীতির নিত্যদিনের ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে। আজ তৃণমূল তো কাল বিজেপি, এই ঘটনা দেখে রীতিমতো হতবাক হয়ে যাচ্ছেন বঙ্গবাসীও। কখন কার দখলে কোন বিধানসভা এবং কোন পৌরসভার থাকবে, তা বুঝতে পারছেন না কেউই। কিন্তু লোকসভার পর অনেক পৌরসভার কাউন্সিলররা বিজেপিতে গেলেও তারা ফের তৃণমূলে ফিরে আসায় কিছুটা হলেও সন্দেহ দানা বেঁধেছে বিশ্লেষকদের মনে।

গেরুয়া শিবিরের দাবি, যে সমস্ত কাউন্সিলররা বিজেপি ছেড়ে আবার তৃণমূলে গিয়েছে, তাদেরকে ভয় দেখিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তবে তারা আদৌ তৃণমূলের নয়, তৃণমূলে থেকে বিজেপির হয়েই কাজ করবে। অন্যদিকে তৃণমূলের দাবি, ভয় দেখিয়ে বেশিদিন বিজেপি এই সমস্ত কাউন্সিলরদের নিজেদের দিকে রাখতে পারেনি। তাই তারা এখন ভুল বুঝে ফের তৃণমূলে ফিরে আসতে শুরু করেছে।

তবে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, যখন বিভিন্ন জনপ্রতিনিধিরা তৃণমূল থেকে বিজেপিতে যাচ্ছিলেন, ঠিক তখনই এরা ফের দলে ফিরে আসলে তাদের যেন না আনা হয়, সেই ব্যাপারে দলের রাজ্য সভাপতি সুব্রত বক্সিকে প্রকাশ্যেই নির্দেশ দিয়েছিলেন তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

কিন্তু এর পরও সেই বিজেপিতে যাওয়া কাউন্সিলররা ফের তৃণমূলে ফিরে আসায় তাদের ঘাসফুল শিবির সাদরে গ্রহণ করলে তারা আদৌ বিজেপির হয়ে যে কাজ করছে না, সেই ব্যাপারে তৃণমূল নিশ্চিত হচ্ছে কি করে! তা নিয়ে উঠতে শুরু করেছে প্রশ্ন। সব মিলিয়ে দলবদলের এই হিড়িকে তৃণমূলের দিকে স্রোত বইলেও দলবদলকারীরা কি আদৌ বিশ্বাসযোগ্য! তা নিয়ে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে সব মহলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!