এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > পুজোয় আনন্দ ফুর্তি ছেড়ে গেরুয়া শিবিরের কড়া নির্দেশিকা দলীয় কর্মীদের

পুজোয় আনন্দ ফুর্তি ছেড়ে গেরুয়া শিবিরের কড়া নির্দেশিকা দলীয় কর্মীদের

বাংলার প্রিয় দুর্গোৎসবে যখন দলীয় নেতা মন্ত্রীদের বেশি করে উৎসবে মেতে ওঠার পরামর্শ দিচ্ছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ঠিক তখনই এবার পুজো নিয়ে বেশি মাতামাতি না করার জন্য রাজ্যের নেতা কর্মীদের বার্তা দিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। কিন্তু কেন? উৎসব তো রাজনীতির উর্ধ্বে। সেখানে দলীয় কর্মীদের আনন্দে বাধা দিয়ে এইভাবে দিলীপ ঘোষের ফতোয়া জারি করার কারন কি?

সূত্রের খবর, এর ভেতরে রয়েছে অন্য রহস্য। কেননা, পুজো পেরোলেই লোকসভা ভোট। আর তার প্রস্তুতি এখন থেকেই শুরু করে দিতে চায় বিজেপি। কেননা, এবারের লোকসভা ভোটে বাংলাও তাঁদের অন্যতম টার্গেট। তাই পুজোর সময় আনন্দটা কম করে জনসংযোগকেই হাতিঢ়ার করতে বলা হচ্ছে রাজ্যের বিজেপি নেতা কর্মীদের। জানা গেছে, গতকাল দলের মোর্চা এবং সেল নেতৃত্বের সাথে এক বৈঠকে বসেছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সেখানেই কেন্দ্রীয় নেতৃত্বের নির্দেশমত এই মাসের মধ্যেই রাজ্যের সমস্ত জেলায় বুথ কমিটি তৈরির নির্দেশ দেন তিনি। আর এইজন্য যদি পুজোর আনন্দ মাটি হয় তাহলেও কিছু করার নেই। কারন পুজো বারবার আসবে, আর লোকসভা ভোটে এবারই যা করার করতে হবে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

তবে এদিনের এই বৈঠকে মহিলা মোর্চার সভানেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায় এবং যুব মোর্চার সভাপতি দেবজিৎ সরকারের অনুপস্থিতি বেশ বড়মাপের প্রশ্নচিহ্ন তুলে দিয়েছে। এদিকে বৃহস্পতিবার রাজ্য নেতৃত্বের সাথে এক বৈঠকে বসতে বলেছেন বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতা অরবিন্দ মেনন। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, কদিন আগেই আগেই মধ্যপ্রদেশের ভোটের কারনে ব্যাস্ত হয়ে পড়া কৈলাশ বিজয়বর্গীর চাপ কমাতে এই রাজ্যে দ্বায়িত্ব দেওয়া হয়েছে মেননকে। সূত্রের খবর, আজকের এই বৈঠকে নিজের দ্বায়িত্বে থাকা কিছু অংশ মেননের হাতে তুলে দিতে পারেন কৈলাশ বিজয়বর্গীয়। পাশাপাশি এই বৈঠকে লোকসভা ভোটে দলের প্রার্থী বাছাই, রাজ্যে বিজেপির গ্রহনযোগ্যতা নিয়েও আলোচনা হতে পারে আজকের বৈঠকে। সব মিলিয়ে পুজোর সময় উৎসবে মেতে ওঠা নয়, সংগঠন সাজাতেই আগ্রহী রাজ্য বিজেপি নেতা কর্মীরা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!