এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > গেরুয়া শিবিরের ঝান্ডা ‘প্রতিরোধে’ হয়ে উঠছে ডান্ডা! জ্বলন্ত লাঠি দিয়ে পুলিশ পিটিয়ে গ্রেপ্তার দুই

গেরুয়া শিবিরের ঝান্ডা ‘প্রতিরোধে’ হয়ে উঠছে ডান্ডা! জ্বলন্ত লাঠি দিয়ে পুলিশ পিটিয়ে গ্রেপ্তার দুই

এদিন বিজেপি-পুলিশ সংঘর্ষে উত্তেজনা ছড়ালো কাটোয়ায়। অবরোধী চলাকালীন একটি অ্যাম্বুলেন্স পাশ করাতে গেলে জলন্ত লাঠি দিয়ে বেধড়ক পেটানো হয় পুলিশকে,এমনটাই অভিযোগ অবরোধরত বিজেপি কর্মীদের বিরুদ্ধে। পাশাপাশি এক সিভিক পুলি ভলেন্টয়ারকেও লাঠি দিয়ে মেরে মাথা ফাটিয়ে দেওয়ার অভিযোগও রয়েছে বিজেপি কর্মীদের বিরুদ্ধে। ঘটনার জেরে ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়ায় এলাকায়।

কাটোয়া থানার আইসি শৈবাল বাগচির নেতৃত্ব বিশাল পুলিশবাহিনী ঘটনাস্থলে যাওয়ার পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। আহত পুলিশ কর্মীদের উদ্ধার করে নিকটস্থ কাটোয়া মহাকুমা হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। ঘটনায় গ্রেফতার করা হয়েছে বিজেপির কাটোয়া নগর সভাপতি অনুপ বসু এবং কেতুগ্রামের বিজেপি যুব সভাপতি রাজ্যেন্দ্র মন্ডলকে এমনটাই খবর পুলিশ সূত্রের।

এদিন বিজেপির কাছে কাটোয়ার মিছিল বা অবরোধ করার কোনো পুলিশি অনুমতি ছিল না। তা সত্ত্বেও জোর করে তারা রাস্তা অবরোধ করেছিল। সেসময় ওই রাস্তা দিয়ে একটি অ্যাম্বুলেন্স যাচ্ছিল। সেটা পাশ করাতে গেলে পুলিশকে মারধোর করে,এমনটাই দাবী করেছেন জেলার অতিরিক্ত পুলিস সুপার(গ্রামীণ) রাজনারায়ণ মুখোপাধ্যায়।

জানা গিয়েছে, রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের উপর হামলার প্রতিবাদ করার জন্যেই কাটোয়ায় বিজেপির তরফ থেকে একটি ধিক্কার মিছিলের আয়োজন করা হয়েছিলো। এদিন কাটোয়া শহরের মোড় থেকে শুরু হয়ে শহরের বিভিন্ন এলাকা ঘুরে স্টেশান বাজার চৌরাস্তা এলাকায় পৌছায় মিছিলটি। সেখানে রাস্তা অবরোধ করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কুশপুতুল দাহ করতে থাকে। এই সময় একটি অ্যাম্বুলেন্স বিজেপি কর্মীদের অবরোধে আটকে পড়ে। ওই অম্বুলেন্সটি পাশ করাতে যান কাটোয়া থানার এসআই মধুমিলন ভান্ডারী সহ দুই সিভিক ভলেন্টিয়ার।

পুলিশকে দেখেই উত্তেজিত বিজেপি কর্মীরা আক্রমণ চালায়। কুশপুতুল দাহ করার জন্য জ্বালানো লাঠি দিয়েই বেধড়ক পেটানো হয় এসআইকে। এমনকি এক সিভিক ভলেন্টিয়ারও তাদের হামলার শিকার হন। পুলিশের সূত্র থেকে জানা গিয়েছে,এসআই মধুমিলন ভাণ্ডারীর হাতের কিছুটা অংশ পুড়ে গিয়েছে। এছাড়া তাঁর পিঠে ও পায়েও আঘাত লাগেছে। জখম দুই সিভিক ভলাণ্টিয়ার শুভ দাস এবং মিঠুন চক্রবর্তীর মধ্যে একজনের লাঠি দিয়ে মেরে মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়েছে।

এ ব্যাপারে বিজেপির পূর্ব বর্ধমান জেলা সভাপতি কৃষ্ণ ঘোষ জানান, এদিনের ধিক্কার মিছিলে কাটোয়ার বাইরেও অনেক বিজেপি কর্মীরা যোগ দিয়েছিলেন। পুলিশের উপর বিজেপির আস্থা থাকলেও ওই এসআই পোশাক না পড়েই ঘটনাস্থলে গিয়েছিলেন। তাই বাইরের কিছু বিজেপি কর্মীরা পুলিশকে চিনতে না পেরেই এমন কান্ড ঘটিয়েছেন বলে দাবী তাঁর।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

অন্যদিকে,পুলিশের উপর হামলার এই ঘটনাকে ব্যাপক সমালোচনা করলেন কাটোয়ার তৃণমূল বিধায়ক রবীন্দ্রনাথ চট্টোপাধ্যায়। বিজেপি জনসমর্থন হারিয়ে এসব ঘটাচ্ছে বলেই দাবী করলেন তিনি। এই পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় ঘটনাস্থলে থাকা সিসিটিভি ক্যামেরার ছবিও খতিয়ে দেখা হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে পুলিশি সূত্রের খবরে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!