এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > নির্বাচনের আগের দিন টাকা ছড়িয়ে বিজেপির নামে ভোট কিনতে গিয়ে শ্রীঘরে তিন যুবক

নির্বাচনের আগের দিন টাকা ছড়িয়ে বিজেপির নামে ভোট কিনতে গিয়ে শ্রীঘরে তিন যুবক

শনিবার রাত সাড়ে আটটা নাগাদ ঝাড়গ্রাম জেলার গোপীবল্লভপুর ​-১ ব্লকের শাশড়া অঞ্চলের পন্ডাছেঁচা গ্রামে এলাকাবাসীকে টাকা দিয়ে ভোট কেনার প্রচেষ্টা করছিলো বিজেপি’র তিন জন কর্মী সমর্থক। এদিন রাতে সরকার বিরোধী লিফলেট এবং দু’শো টাকা করে ভোটারদের হাতে গুঁজে দেওয়া হচ্ছিলো। শর্ত ছিলো একটাই ভোট দিতে হবে বিজেপি’কে অভিযোগ এমনটাই। এই ঘটনার কথা পুলিশ জানতে পেরে রবিবার রাতে ঐ তিন যুবককে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে যায় পুলিশ। ধৃতদের কাছ থেকে কয়েক হাজার টাকা এবং সরকার বিরোধী অনেক প্রচারপত্র উদ্ধার করা হয়েছে বলে পুলিশ সূত্রে জানা গেছে। ভোট কেনার জন্যে টাকা বিলির ঘটনার কথা পুলিশের কাছে খবর যেতেই পুলিশ অতর্কিতে সংশ্লিষ্ট এলাকায় হানা দেয় এবং তিন যুবক কে গ্রেফতার করে। পুলিশ সূত্রে আরো ও জানা গেছে ধৃতরা হল শাশড়া এলাকার বাসিন্দা সমীর সাউ, আশিস সাউ এবং পূর্নচন্দ্র নায়েক। এঁদের কাছ থেকে পুলিশ নগদ প্রায় সাড়ে ছয় হাজার টাকা উদ্ধার করেছে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এই ঘটনায় স্বাভাবিক ভাবেই রাজনৈতিক মহলে তীব্র হৈ চৈ তৈরী হয়। এই ঘটনা প্রসঙ্গে ঝাড়গ্রাম জেলা তৃণমূল কংগ্রেসের সভাপতি অজিত মাইতি বললেন, ”এটা বিজেপির ক্যারেক্টার। টাকা দিয়ে ভোট কিনতে চাইছে। ঝাড়খন্ড থেকে কাড়ি কাড়ি টাকা আর গাড়ি ভর্তি ঝান্ডা আসছে। যাই করুক না কেন ওরা কিছু করতে পারবে না।”​ অন্যদিকে বিজেপির ঝাড়গ্রাম জেলা সভাপতি সুখময় শতপথী নিজের প্রতিক্রিয়া জানিয়ে বললেন, ”কারো পকেটে কি ছয় সাত হাজার টাকা থাকতে পারে না? আর ভোট কেনার ইচ্ছা থাকলে ছ’হাজার নয় ছয় লক্ষ টাকা নিয়ে যেতে হত। এটা ষড়যন্ত্র। আমাদের ছেলেদের গ্রে​​​​ফতার করে এলাকা ফাঁকা করে দেওয়া হচ্ছে। যাতে ভোটের দিন ফাঁকা ময়দানে ছাপ্পা দিতে পারে শাসকদলের লোকেরা। আর তাই বিভিন্ন ভাবে হয়রান করা হচ্ছে আমাদের দলীয় কর্মী এবং গ্রামীণ এলাকার নেতাদের। তাদের অকারণে থানায় ডেকে আনা হচ্ছে। বিজেপিকে আটকাতে কৌশল করা হচ্ছে।”

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!