এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > এবার রাজ্যের বিরুদ্ধে আন্দোলনে নামছে বিজেপির কিষাণ মোর্চা

এবার রাজ্যের বিরুদ্ধে আন্দোলনে নামছে বিজেপির কিষাণ মোর্চা

দেশের সর্বত্র নানান দাবিতে আন্দোলনে সামিল হয়েছেন দেশের কৃষক সম্প্রদায়। মধ্যপ্রদেশ, রাজস্থান, ছত্তিশগড়, হরিয়ানা প্রভৃতি রাজ্য বিজেপি শাসিত হলেও সেখানে কৃষক আন্দোলন যথেষ্ট সক্রিয় হয়ে উঠেছে। যে প্রকারে কেন্দ্রের শাসকদল এখন এই কৃষক অসন্তোষ বন্ধ করতে চাইছে। কিন্তু এই নিয়ে বিরোধীদের ক্রমাগত আক্রমণকে পাল্টা দিতে এবার নয়া কৌশল আয়ত্ত্ব করলো কেন্দ্রের বিজেপি সরকার। সেই কারণেই আসন্ন লোকসভা নির্বাচনের প্রাক্কালে কৃষকদের দিয়ে বাজিমাত করতে এবার বিজেপি দলের কিষাণ মোর্চা আন্দোলনে নামছে। জানা যাচ্ছে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের ক্ষেত্রে বিদ্যুৎ মাসুল বৃদ্ধির বিষয়কে অস্ত্র করেছে তারা। পরিকল্পনা হয়েছে বিজেপি দলের কিষাণ মোর্চাকে দিয়ে ধর্না, অবস্থান বিক্ষোভ কর্মসূচী পালনের মাধ্যমে রাজ্য সরকারের বিরোধীতা করা। এই কর্মসূচী সম্পর্কে চুড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্যে এদিন বারাকপুরের বড়কাঠালিয়াতে কিষাণ মোর্চার রাজ্য কমিটির বৈঠক আয়োজিত হলো। এই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেনকিষাণ মোর্চার রাজ্য সভাপতি রামকৃষ্ণ পাল, কিষাণ মোর্চার কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি মহেশ্বর সাহু সহ রাজ্যের সমস্ত জেলা থেকে মোর্চার প্রতিনিধিরা।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

এদিনের বৈঠকে উপস্থিত হয়ে কিষাণ মোর্চার রাজ্য সভাপতি রামকৃষ্ণ পাল দেশের অন্যান্য রাজ্যের সাথে পশ্চিমবঙ্গের তুলনামূলক আলোচনা করে বললেন, “দেশের অন্যান্য রাজ্যে কৃষি ক্ষেত্রের জন্য বাড়তি ছাড় সহ নানা সুযোগ-সুবিধা দেওয়া হয়। কিন্তু বাংলার চাষিরা সেই সুযোগ থেকে বঞ্চিত। এ রাজ্যে কৃষি ক্ষেত্রের জন্য আলাদা ছাড়ের কোনও ব্যবস্থা নেই। উল্টে এক মাসের পরিবর্তে বিদ্যুৎ বিল আসে তিন মাস অন্তর। স্বভাবতই বিদ্যুৎ ব্যবহারের পরিমাণ এক মাসের তুলনায় তিন মাসে অনেকটা বেশি হয়।” রাজ্যে বিদ্যুৎ মাসুল প্রতিটি স্লাবের জন্যে নির্দিষ্ট করা থাকে তাই একসাথে তিনি মাসের বিল যোগ হওয়ার ফলে কৃষকদের ওপরে সেটা বাড়তি বোঝা হয়ে যায়। মাসিক বিদ্যুৎ বিলের দাবিতে অতি শীঘ্রই কিষাণ মোর্চার তরফে আন্দোলনে নামা হবে বলে এদিন রামকৃষ্ণ বাবু জানালেন । রাজ্যের বিদ্যুৎমন্ত্রী শোভনদেব চট্টোপাধ্যায় এই মাসুল বৃদ্ধির বিষয়টি গুরুত্ব দিয়ে দেখবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিলেও এখন ও অবধি রাজ্য সরকারের তরফে এই প্রসঙ্গে কোনো পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি বলে কিষাণ মোর্চার তরফ থেকে জানা গেছে । তবে কিষাণমোর্চা এই বিষয়টিকে হাতিয়ার করে গোটা জুলাই মাস ব্যাপী ব্লক, জেলা স্তরের বিদ্যুৎ অফিসে অবস্থান বিক্ষোভের কর্মসূচী নিয়েছে বলে জানা গেছে। এছাড়াও পরবর্তী পর্যায়ে মোর্চার তরফে সল্টলেকের বিদ্যুৎ ভবনে মন্ত্রীর কাছে স্মারকলিপি পেশ করার পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!