এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > বিজেপির অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষ, উত্তপ্ত এলাকা

বিজেপির অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে তৃণমূল-বিজেপি সংঘর্ষ, উত্তপ্ত এলাকা

কোলকাতার উপকন্ঠে ভবানীপুর এলাকার উত্তাপ চরমে উঠল এদিন বিজেপি তরফের এক অনুষ্ঠানকে কেন্দ্র করে। ভবানীপুর মহিলা সেলফ হেলপ গ্রুপের একটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিলো পদ্মশিবির। ওই অনুষ্ঠান চলাকালীন মোদীর জন্য অনলাইনে কথা বলারও পরিকল্পনা ছিল তাঁদের। এরই জন্যে প্যান্ডেল বেঁধে অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিলো বিজেপি।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

——————————————————————————————-

 এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

কিন্তু সবই পন্ড হয়ে গেলো পুলিশের সঙ্গে গন্ডোগোলের জেরে। প্রশাসনের কাছে কোনো অনুমতি না নিয়েই নাকি বিজেপি এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে। না জানিয়েই এক ব্যক্তির বাড়ির সামনে প্যান্ডেল বাঁধা হয়েছে। এমনটাই অভিযোগে জানিয়েছেন স্থানীয়রা। তাই নাকি তাঁরা এই অনুষ্ঠান করতে বাঁধা দিয়েছিলেন। ওই পরিস্থিতিতে ঘটনাস্থলে আসেন তৃণমূলকর্মীরাও। ইস্যুকে নিয়ে তর্কতর্কি বাঁধে বিজেপি-তৃণমূলে।

পরিস্থিতি অগ্নিগর্ভ হয়ে উঠলে ঘটনাস্থলে আসেন বিজেপির হেভিওয়েট নেত্রী লকেট চট্টোপাধ্যায়। দাবী জানান,ওই স্থানেই রাজ্য বিজেপিকে অনুষ্ঠান করতে দিতে হবে। এর জেরে অবস্থা আরো বেগতিক হয়ে যায়। তৃণমূল কর্মী-সমর্থকদের সঙ্গে বচসা তুঙ্গে ওঠে। তখন ঘটনাস্থলে পুলিশ এলেও তাঁর সঙ্গেও ধস্তাধস্তি শুরু হয় বিজেপি কর্মী সমর্থকদের। এর জেরে পরিকল্পিত অনুষ্ঠানটি আর শেষ অব্দি আর ওখানে হতে পারে না। পদ্মপুকুর সংলগ্ন একটি পার্কে মহিলাদের জমায়েতে মোবাইলের মাধ্যমে অনুষ্ঠানটি দেখানো হবে বলে জনানো হয়েছে বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্বেরর তরফ থেকে।

এ প্রসঙ্গে লকেট চট্টোপাধ্যায় গর্জে উঠে জানান যে, পুলিশ প্রথমে ওখানে অনুষ্ঠানের অনুমতি দিয়েছিলো। কিন্তু এখন সম্পূর্ণই অস্বীকার করছে। এর পাশাপাশি অনুষ্ঠান প্রসঙ্গে জানান যে, এই অনুষ্ঠানেই সেলফ হেলফ গ্রুপের মহিলাদের সঙ্গে মোদীজি কথা বলবেন। আর এটাও বলেন যে অনুষ্ঠানটি শুধু বিজেপির কর্মী সমর্থকদের জন্যে নয়। অনুষ্ঠানটি প্রধানমন্ত্রীর। তাই কার্যত সকলেরই অনুষ্ঠান।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!