এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > বিজেপির ডাকা বন্ধের দিনে স্কুলে ‘না গিয়ে’ শোকজের মুখে দাড়িভিট স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকারা

বিজেপির ডাকা বন্ধের দিনে স্কুলে ‘না গিয়ে’ শোকজের মুখে দাড়িভিট স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকারা

Priyo Bandhu Media


গত কুড়ি সেপ্টেম্বর উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুরের দাড়িভিটে রাজেশ সরকার এবং তাপস বর্মনের মৃত্যুতে রাজ্যের তৃণমূল সরকারের বিরুদ্ধে প্রবল চাপ সৃষ্টি করে গেরুয়া শিবির। এমনকি বন্ধের রাস্তাতে হেটে গত 26 শে সেপ্টেম্বর রাজ্যজুড়ে 12 ঘন্টার বাংলা বনধ ডাকে বিজেপি।

এদিকে পূর্বঘোষিত নীতি অনুযায়ী এই বনধে সারা রাজ্যকে সচল রাখতে সরকারি অফিস, স্কুল, কাছারিতে কর্মীদের উপস্থিতি বাধ্যতামূলক বলে বিজ্ঞপ্তি জারি করে রাজ্য সরকার। কিন্তু সেই বন্ধের দিন দাড়িভিট স্কুলে উপস্থিতই হননি সেখানকার শিক্ষক-শিক্ষিকারা। ফলে কেন সেদিন সেইখানে শিক্ষক-শিক্ষিকারা উপস্থিত হলেন না তা জানতে চেয়ে সেই স্কুলের শিক্ষক শিক্ষিকাদের এই ইস্যুতে সঠিক কারণ দর্শানোর নোটিশ দিলেন উত্তর দিনাজপুর জেলার স্কুল পরিদর্শক।

জানা যায়, শনিবার সেই শোকজ লেটার পান দারিভিট স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকারা। আর এরপর গতকালই ইসলামপুর কোর্টে গিয়ে এই ব্যাপারে এক আইনজীবীর পরামর্শও নেন তারা। শিক্ষক-শিক্ষিকাদের দাবি, ডিআইএর নির্দেশ মেনে স্কুলে গেলেও মাঠে ঢোকার মুখেই তারা বাধা পান। এমনকি এই সমস্ত ঘটনা প্রশাসনকে জানানো সত্ত্বেও উপযুক্ত পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি বলে অভিযোগ তাদের। এদিকে শুধু বন্ধে অনুপস্থিতিই নয়, গত 21 শে সেপ্টেম্বর থেকে পুজোর ছুটির আগে পর্যন্ত কেন স্কুল বন্ধ রাখা হলো তা নিয়েও আলাদা করে স্কুল পরিদর্শকের তরফের শোকজের চিঠি পাঠানো হয়েছে দাড়িভিট স্কুলের শিক্ষক শিক্ষিকাদের কাছে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

সূত্রের খবর, আজ এই শোকজ লেটারের উত্তর দিতে পারেন সেই শিক্ষক-শিক্ষিকারা। এ প্রসঙ্গে ডিআই সুজিতকুমার মাইতি বলেন, “শিক্ষক-শিক্ষিকারা উত্তর দিলেই যা বলার বলবো।” সব মিলিয়ে শোকজের চিঠির জবাবে ঠিক কি উত্তর দেন শিক্ষক-শিক্ষিকারা এখন সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!