এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কলকাতা > বিতর্ক এড়াতে এবার আঁটঘাট বেঁধেই দল থেকে বহিস্কৃত করা হবে হেভিওয়েট তৃণমূল নেতাকে

বিতর্ক এড়াতে এবার আঁটঘাট বেঁধেই দল থেকে বহিস্কৃত করা হবে হেভিওয়েট তৃণমূল নেতাকে

তাকে দল থেকে বহিষ্কার করা নিয়ে তীব্র বিতর্ক শুরু হয়েছিল। কিন্তু এবার রায়গঞ্জ কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্কের বোর্ড অব ডিরেক্টরের চেয়ারম্যান মাসুদ মহম্মদ নাসিম এহসানকে দল থেকে বহিষ্কারের প্রক্রিয়া নিয়ে দলের একাংশ নেতৃত্ব প্রশ্ন তোলায় ভুল শুধরাতে মাঠে নামল দলের গোয়ালপোখর ব্লক কমিটি।

সূত্রের খবর, সোমবার রাতে তৃণমূলের গোয়ালপোখর ব্লক কমিটি বৈঠক করে নাসিম সাহেবকে ছয় বছরের জন্য বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়ে জেলা কমিটির কাছে তা অনুমোদনের জন্য পাঠিয়েছে। ইতিমধ্যেই এই বিষয়টি নিয়ে জেলা তৃণমূলের ঘরে ও বাইরে ব্যাপক চর্চা শুরু হয়েছে। এদিন এই প্রসঙ্গে তৃণমূলের গোয়ালপোখর ব্লক সভাপতি গোলাম রসুল ওরফে মনি বলেন, “সোমবার রাতে আমরা ব্লক কমিটি ও ব্লক কোর কমিটির বৈঠক করেছি। দলবিরোধী কাজের জন্য নাসিম সাহেবকে ছয় বছরের জন্য দল থেকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। জেলা কমিটির কাছে তা অনুমোদনের জন্য পাঠানো হয়েছে। তবে শো-কজ করা হচ্ছে না। সরাসরি বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত হয়েছে। জেলা সভাপতিকে এই সিদ্ধান্ত ফোনের মাধ্যমে জানানো হয়েছে। শীঘ্রই লিখিতভাবে দেওয়া হবে।”‌

অন্যদিকে এই বিষয়ে তৃণমূলের উত্তর দিনাজপুর জেলা সভাপতি কানাইয়ালাল আগরওয়াল কোনও মন্তব্য করতে চাননি। তবে এই প্রসঙ্গে নাসিম সাহেব বলেন, “কয়েক মাস থেকেই দলের কর্মসূনিতে আমাকে ডাকা হচ্ছে না। জেলা বা ব্লক কমিটির সভাপতি কেউ আমাকে শো-কজ করেনি। কয়েকদিন আগে সংবাদমাধ্যমে জানতে পারি জেলা সভাপতি আমকে বহিষ্কার করেছেন। তারপর আবার শুনতে পারছি তাদের প্রক্রিয়াতে ভুল হয়েছে। ব্লক কমিটি বহিষ্কারের বিষয়ে আমাকে কিছুই জানায়নি। আমাকে অন্যায়ভাবে বহিষ্কার করা হচ্ছে। আমি দলনেত্রীর সঙ্গে দেখা করে বিষয়টি জানাব।”

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, উত্তর দিনাজপুর জেলার রায়গঞ্জ সেন্ট্রাল কো-অপারেটিভ ব্যাঙ্কের বোর্ড অফ ডিরেক্টরের চেয়ারম্যান তথা তৃণমূলের গোয়ালপোখর ব্লক কোর কমিটির অন্যতম সদস্য মাসুদ মহম্মদ নাসিম এহসানকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়েছে বলে কিছুদিন আগেই জেলা সভাপতি কানাইয়ালাল আগরওয়াল ঘোষণা করেন। তবে সেসময়ই কানাইয়ালালবাবু বলেছিলেন, ব্লক কমিটিই নাসিম সাহেবকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। কিন্তু ছর পরদিনই ব্লক কমিটির পক্ষ থেকে জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল যে তারা নাসিম সাহেবকে বহিষ্কার করেনি। দলবিরোধী কাজের জন্য জেলা নেতৃত্ব নাসিম সাহেবের বিরুদ্ধে যা সিদ্ধান্ত নেবে, তাই মানা হবে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

আর এই ঘটনার পরই কিভাবে নাসিম সাহেবকে বহিস্কার করা হল, তার এক্তিয়ার নিয়ে প্রশ্ন তোলেন দলের একাংশ। তাদের দাবি, দলের নিয়ম মেনে নাসিম সাহেবকে বহিষ্কার করা হয়নি। তাঁকে আগে শো-কজ করা হয়নি, বলার সুযোগ দেওয়া হয়নি। আর এই ঘটনার পরই জেলা জুড়ে ব্যাপক চাপানউতোর তৈরি হয়। জানা যায়, গত সোমবার এই ব্যাপারে জেলা তৃণমূলের সভাপতি কানাইয়ালাল আগরওয়াল সংবাদমাধ্যমে স্বীকার করেন যে বহিষ্কারের প্রক্রিয়াতে ভুল থাকতে পারে।

তৃণমূল সূত্রের খবর, বেশকিছু মাস আগে নাসিম সাহেব বিজেপি নেতৃত্বের সঙ্গে ডালখোলায় একটি বৈঠক করেন। যার ভিডিও ভাইরাল হয়ে গেলে এলাকায় গুঞ্জন ছড়ায় যে নাসিম সাহেব বিজেপিতে যোগ দিচ্ছেন। পাশাপাশি গোয়ালপোখর ব্লক নেতৃত্ব ও জেলা সভাপতির দাবি, তিনি লোকসভা নির্বাচনে দলের হয়ে কাজ করেননি। তিনি বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন। এর ফলে তাকে দল বহিষ্কার করেছে।

অন্যদিকে এই বিষয়ে নাসিম সাহেব বলেন, “আমি দলবদল করিনি, তৃণমূলেই আছি।” তৃণমূলের অনেকেই বলছেন, বৈঠকে উপস্থিত থাকার মানেই দল দলবদল নয়। শো-কজ করে তার জবাব চাওয়া উচিত। সব মিলিয়ে নাসিম সাহেবকে বহিস্কার করা নিয়ে সমস্ত বিতর্ককে ধামাচাপা দিতে উদ্যোগী উত্তর দিনাজপুর জেলা তৃনমূল।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!