এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > অনুব্রত গড়ে ট্রাফিক আইন ভাঙার অভিযোগ, পুলিশ-আইনজীবি ধুন্ধুমার, জোর তান্ডব

অনুব্রত গড়ে ট্রাফিক আইন ভাঙার অভিযোগ, পুলিশ-আইনজীবি ধুন্ধুমার, জোর তান্ডব

রাজ্যের পরিবহন দপ্তরের উদ্যোগে চালু হয়েছে ‘সেফ ড্রাইভ সেভ লাইফ’ প্রকল্প। হেলমেট পড়ে বাইক চালানো এখন বাধ্যতামূলক। নাহলে তেল মিলবে না পেট্রল পাম্প থেকেও। কিন্তু এতো কিছুর পরেও অনেকেই মানছেন না নিয়ম। এখনো হেলমেট ছাড়া বাইক চালাচ্ছেন আরোহীদের একাংশ। আদালতের আইন নিয়ে চর্চা করা ব্যাক্তিরাও নিয়ম ভাঙছেন যখন তখন । অনেকের প্রশ্ন, আইনজ্ঞরাই যদি আইন না মানেন তাহলে সাধারন মানুষের দোষ কী! বুধবার বীরভূমের সিউড়িতে বিনা হেলমেটে বাইক চালিয়ে যাচ্ছিলেন এক অইনজীবি।

প্রিয় বন্ধু বাংলার অফিসিয়াল ফেসবুক পেজ – Priyo Bandhu Bengali

—————————————————————————————————————————————————-

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

সেখানেই ট্রাফিক পুলিশ তাঁকে আটকান। অভিযোগ, তখন সেই আইনজীবি আরও জনা 15 আইনজীবিকে ডেকে এনে সেখানে রীতিমতো তান্ডব শুরু করে দেন। আরও অভিযোগ, সিউড়ির ট্রাফিক ওসি সুমন প্রামানিককে হেনস্তাও করেন তিনি।এ প্রসঙ্গে বীরভূমের পুলিশ সুপার কুনাল আগরওয়াল বলেন, “সেই পুলিশের গায়ে লাগানো ক্যামেরার ভিত্তিতে মোট দুজনের নামে পুলিশকে হেনস্থার ধারায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।” অন্যদিকে আইনজীবীদের তরফে সমস্ত অভিযোগ অস্বীকার করা হয়েছে। তাঁরাও পাল্টা ট্রাফিক পুলিশের বিরুদ্ধে একটি অভিযোগ দায়ের করেছেন বলে জানা গেছে। তবে হেলমেট পড়ে মানুষকে সুরক্ষা দেবার জন্যই যে এহেন উদ্যোগ সরকারের। তা মনে করিয়ে দিয়েছেন বীরভূমের জেলা পুলিশ সুপার। সব মিলিয়ে হেলমেট না পড়া নিয়ে বীরভূমে পুলিশ-আইনজীবি ধুন্ধুমার চরমে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!