এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > জল্পনা কাটিয়ে অবশেষে ফের প্রকাশ্যে এলেন বীরভূমের বেতাজ বাদশা,বিজেপিকে দিলেন হুঁশিয়ারি

জল্পনা কাটিয়ে অবশেষে ফের প্রকাশ্যে এলেন বীরভূমের বেতাজ বাদশা,বিজেপিকে দিলেন হুঁশিয়ারি

বরাবরই খবরের শিরোনামে থাকতে পছন্দ করেন তিনি‌। কখনও চরম চরম ঢাক, কখনো গুড় বাতাসা, আবার কখনও বা নকুলদানা খাওয়ানোর দাওয়াই দিয়ে নির্বাচনের আগে বিতর্কের কেন্দ্রবিন্দুতে পৌঁছে যেতে দেখা গিয়েছিল তাকে। তবে লোকসভা নির্বাচনের পর সেইভাবে আর তাকে দেখতে পাওয়া যায়নি।

বীরভূমের দুটি লোকসভা কেন্দ্র তিনি নিজের দখলে রাখতে পারলেও বিধানসভা ভিত্তিক অনেক আসনেই বিজেপির উত্থান তার কপালে চিন্তার ভাঁজ ফেলে দিয়েছিল। এমনকি নিজের ওয়ার্ডেও গেরুয়া শিবিরের কাছে হেরে যেতে হয়েছিল তাঁকে। হ্যাঁ, ঠিকই ধরেছেন, তিনি বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডল। দল অন্তপ্রাণ এই মানুষটিকে এবারের একুশে জুলাই শহীদ সমাবেশের মঞ্চেও থাকতে দেখা যায়নি।

অনেকেই ভেবেছিলেন, তাহলে কি লোকসভা নির্বাচনে দল কিছুটা মুখ থুবড়ে পড়ার পর নিজেকে গুটিয়ে নিচ্ছেন অনুব্রত মণ্ডল! কিন্তু না, কেউ জানেন আবার কেউ বা হয়ত জানেন না যে, গত মাসে হঠাৎ করেই এই বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি অনুব্রত মণ্ডলের শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে শুরু করে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

তড়িঘড়ি এসএসকেএমে তাকে ভর্তি করা হলে চিকিৎসকরা জানান, হাইপারটেনশন, উচ্চ রক্তচাপ জনিত সমস্যা এবং সুগার রয়েছে অনুব্রত বাবুর। পাশাপাশি কার্বোঙ্কলও হয়েছে তার। আর এরপরে গত জুলাই মাসে তার অস্ত্রোপচার হলে 4 দিন পর হাসপাতাল থেকে ছাড়া পান বীরভূম জেলা তৃণমূল সভাপতি।

কিন্তু চিকিৎসকের পরামর্শে এতদিন বাড়িতেই দিন রাত কাটাতে হচ্ছিল রাজনীতি অন্তপ্রাণ এই মানুষটিকে। আর এবার কিছুটা সুস্থ হতেই প্রায় 34 দিন পর বোলপুরের দলীয় কার্যালয় আসলেন অনুব্রত মণ্ডল। জেলা কমিটির সভার ডাক দেন তিনি । প্রায় দেড় ঘণ্টা ধরে দলীয় কর্মীদের নিয়ে বৈঠক করেন অনুব্রত মণ্ডল ৷ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন দুই মন্ত্রী আশিস বন্দ্যোপাধ্যায় ও চন্দ্রনাথ সিংহ, বীরভূম জেলার সহ সভাপতি অভিজিৎ সিংহ ।সভাতেই স্বমহিমায় বিজেপিকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেন অনুব্রত মণ্ডল ৷ বলেন , “15 দিনের মধ্যে বীরভূম জেলার বোলপুর থেকে মুরারই, মুরারই থেকে নলহাটি প্রচার শেষ করব । অন্তত 30 হাজার বিজেপি কর্মীকে দলে যোগ দেওয়াব । না হলে রাজনীতি ছেড়ে দেব ।”

কিন্তু এখন তিনি কেমন আছেন! এই প্রশ্নের উত্তরে ফের পুরনো মেজাজে পাওয়া গেল অনুব্রত মণ্ডলকে। যেখানে তিনি বললেন, “খুব ভালো। এখন মারামারি করতে দিলে ফার্স্ট হব।” রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, বরাবরই বিরোধীদের উদ্দেশ্যে চাপা হুমকি দিয়ে সবার মনে আতঙ্ক ছড়িয়ে দিতেন এই অনুব্রত মণ্ডল। আর এবারও তিনি সেই একই কাজটাই করলেন। সব মিলিয়ে অসুস্থতা কাটিয়ে ফের স্বমহিমায় দেখা গেল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অনুব্রত মণ্ডল ওরফে কেষ্টকে।

Top
error: Content is protected !!