এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মালদা-মুর্শিদাবাদ-বীরভূম > জল্পনা বাড়িয়ে বীরভূমের মহকুমা শাসক ও পুলিশ আধিকারিকের লড়াইয়ের জের গেল নবান্ন পর্যন্ত!

জল্পনা বাড়িয়ে বীরভূমের মহকুমা শাসক ও পুলিশ আধিকারিকের লড়াইয়ের জের গেল নবান্ন পর্যন্ত!

সম্প্রতি বীরভূমে রামপুরহাট মহকুমা শাসক ও মহাকুমা পুলিস আধিকারিকের মধ্যেকার সংঘাতের একটি ভিডিও ভাইরাল হয়। যা দেখে মহকুমা শাসককে হেনস্তা করা হয়েছে বলে বোঝা যায়। এবার রামপুরহাট মহকুমা শাসক ও মহকুমা পুলিস আধিকারিকের সংঘাত পৌঁছাল নবান্ন পর্যন্ত।

ঘটনার পর থেকে এখনো পর্যন্ত ছুটিতে আছেন মহকুমা শাসক। সোমবার তাঁর অফিসে আসার কথা থাকলেও তিনি যোগ দেননি। এদিন এ প্রসঙ্গে বীরভূমের জেলাশাসক মৌমিতা গোদারা বলেন, “২৫নভেম্বর পর্যন্ত এসডিও ছুটি নিয়েছিলেন। এখনও তিনি কাজে যোগ দেননি।”

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত ১৬নভেম্বর বিকেলে বিভিন্ন মহল থেকে বেশ কিছু অভিযোগ পেয়ে রামপুরহাট থানায় হাজির হন মহকুমা শাসক স্মৃতিরঞ্জন মহান্তি। অভিযোগ, সে সময় থানায় তাকে তাঁকে শারীরিক হেনস্তা করেছেন এক পুলিস কর্তা সহ অন্যান্য কর্মীরা। এমনকি থানার গেট বন্ধ করে তাঁকে দীর্ঘক্ষণ আটকে রাখা হয়। সেই ভিডিও ইতিমধ্যেই সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে।

ঘটনার পর দিনই নির্যাতিত মহকুমাশাসক নবান্নে গিয়ে মুখ্যসচিব ও স্বরাষ্ট্র সচিবকে বিস্তারিত জানিয়ে লিখিত অভিযোগ করেন। পাশাপাশি সেদিন ছুটি নিয়ে জেলা ছাড়েন। অন্যদিকে পুলিশের তরফ থেকে মহকুমা শাসকের বিরুদ্ধে এক্তিয়ার বর্হিভূত কাজ ও থানার ডিউটি অফিসারকে অপমান ও জিডির খাতা ছুঁড়ে ফেলার অভিযোগ ওঠে। ঘটনার কিছু ফুটেজ এবং মোবাইলে এসডিও-র সঙ্গে কথোপকথনের কিছু অংশ জমা দিয়ে ডিজি এবং আইজি-র কাছে মহকুমা শাসকের বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগ করেন এসডিপিও অভিষেক রায়।

এদিকে ইতিমধ্যেই মহকুমা শাসক ও মহকুমা পুলিস আধিকারিকের সংঘাতের বিষয়টি এখন গোটা জেলায় মুখরোচক খবর। বর্তমানে জেলাশাসকের নির্দেশে রামপুরহাট মহকুমায় মহকুমা শাসকের চার্জে আছেন ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেট সুদীপ্ত সাঁতরা। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, “অফিসের দৈনন্দিন কাজে কোনও সমস্যা হচ্ছে না। যদিও কিছু প্রকল্পের ক্ষেত্রে এসডিও-র স্বাক্ষর আবশ্যিক থাকায় খানিকটা সমস্যা হয়েছে।”

প্রশাসন সূত্রে জানা খবর, রূপশ্রী প্রকল্পের টাকা, জাতি শংসাপত্র প্রদানের কাজ ব্যাহত হচ্ছে। কারণ, সরকারি নিয়ম অনুযায়ী ওই দুটি প্রকল্পে সুবিধা পেতে এসডিও-র সই আবশ্যিক। পাশাপাশি মহকুমা শাসকের অনুপস্থিতিতে এসডিএম কোর্টেও সমস্যা দেখা দিয়েছে। ভাগ চাষের মামলা সহ বেশকিছু গুরুত্বপূর্ণ মামলার নিষ্পত্তি আটকে রয়েছে। তেমনি বিভিন্ন মামলায় পরবর্তী শুনানির দিন মিলছে না।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

এমন নতুন করে কোনও মামলা দাখিল করা যাচ্ছে না। ফলে বিয়ের মরশুমে হন্যে হয়ে ঘুরে বেড়াতে হচ্ছে পাত্রীর পরিবারকে। এদিন ডেপুটি ম্যাজিস্ট্রেটকে সাময়িক দায়িত্বভার দেওয়া হয়েছে। তাতে আর কোনও সমস্যা হবে না বলে প্রশাসন সূত্রে দাবি করা হয়েছে। জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, এদিন জেলাশাসকের কাছে আরও তিন দিনের ছুটির আবেদন করেছেন এসডিও।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!