এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > উত্তরবঙ্গ > বিপ্লব মিত্রের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ অর্পিতার, চড়ছে পারদ

বিপ্লব মিত্রের বিরুদ্ধে বিস্ফোরক অভিযোগ অর্পিতার, চড়ছে পারদ

বালুরঘাট লোকসভা আসনে জিতলে ২০২১শে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলার ৬টা বিধানসভাতেই হেরে যেতে হত এমনই বিষ্ফোরক অভিযোগ করলেন তৃণমূল নেত্রী অর্পিতা ঘোষ। ১৯ এর লোকসভা নির্বাচনের পরেই জেলার পুরনো নেতা বিপ্লব মিত্রকে সরিয়ে দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা তৃণমূলের সভাপতি করা হয়েছে অর্পিতাকে।

দায়িত্ব নিয়েই জেলার সংগঠন মজবুত করতে নতুন করতে বিপ্লব অনুগামীদের বিভিন্ন পদ থেকে সরিয়েছেন অর্পিতা। বালুরঘাটে নতুন ব্লক কমিটি গঠন করছেন তৃণমূলের জেলা সভানেত্রী । গতকাল গঙ্গারামপুরের চৌমাথায় সেই ব্লক কমিটির সভায় নাম না করে বিপ্লব মিত্রকে আক্রমণ করলেন অর্পিতা।গতকাল গঙ্গারামপুরের ব্লক কমিটির এই সভায় উপস্থিত ছিলেন বর্ষীয়ান নেতা শংকর চক্রবর্তী, মন্ত্রী বাচ্চু হাঁসদা, শুভাশিস পাল, সত্যেন্দ্রনাথ রায় সহ জেলা ও স্থানীয় নেতৃত্ব।

ব্লক কমিটির এই সভায় বক্তব‍্য রাখতে উঠে অর্পিতা ঘোষ জানান, “মানুষ এখনও তৃণমূলের সঙ্গে রয়েছেন । ২০১৪-র থেকে এবার বেশি শতাংশ ভোট পেয়েছি । আমাদের মধ্যেকার কয়েকজন বিশ্বাসঘাতক উলটো দিকে ভোট করিয়ে দিল বলেই আমরা হেরে গেলাম। কোনও দুঃখ নেই। হার-জিত জীবনের নিয়ম । আর হেরে গেছি বলেই ২০২১ সালে ৬টা আসন তৃণমূল কংগ্রেস পাবে।”

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর আরও সহজে হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের যে কোনও এক্সক্লুসিভ সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপে। ক্লিক করুন এখানে – টেলিগ্রাম, হোয়াটস্যাপ, ফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউবফেসবুক পেজ

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

এরপরই তিনি নাম না করে বিপ্লব মিত্রকে আক্রমণ করে বলেন, ” যারা বলেন, মমতার ছবি দিয়ে কাজ হয় না, তাদের বলি যে সময় জিতেছিলেন তখন পিছনে তৃণমূলের প্রতীক আর মুখ্যমন্ত্রীর ছবি ছিল। মমতা ব্যানার্জির জন্যই সবাই তৃণমূল কংগ্রেসে আছেন। দল বড় কোনও ব্যক্তি বড় নয়। দম থাকলে আগামীদিনে আবার ভোটে জিতে দেখান।”

যদিও জেলা তৃণমূল সভানেত্রীর কটাক্ষ প্রসঙ্গে সদ্য বিজেপিতে যোগদানকারী বিপ্লব মিত্র জানান, দক্ষিণ দিনাজপুরে এই দলটা তিনিই তৈরি করেছেন। এই জেলা থেকে সিপিআই(এম) সরাতে তিনি কংগ্রেস থেকে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের তৃণমূল কংগ্রেসে যোগ দিয়েছিলেন। বর্তমানে তৃণমূল নেত্রী প্রত‍্যেক মুহুর্তে যেভাবে স্বেচ্ছাচারী সিদ্ধান্ত নিচ্ছেন সেখানে মান-সম্মান নিয়ে দলটা আর করা সম্ভব হচ্ছে না। তাই তৃণমূলের সংস্রব ছেড়ে তিনি বিজেপিতে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

বিপ্লব মিত্রের সঙ্গে তৃণমূল ছেড়ে জেলা পরিষদের ১০ জন সদস্য বিজেপিতে যোগদান করেছেন। তাই দক্ষিণ দিনাজপুর জেলা পরিষদ তৃণমূলের হাতছাড়া হওয়ার মুখে। যদিও জেলাপরিষদের দখল রাখতে মরিয়া তৃণমূল ।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!