এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > নতুন ‘গো-বিপ্লবের’ ভাবনায় বিপ্লব দেব – কর্মসংস্থান তৈরিতে গো-বন্টনের অভিনব ভাবনা!

নতুন ‘গো-বিপ্লবের’ ভাবনায় বিপ্লব দেব – কর্মসংস্থান তৈরিতে গো-বন্টনের অভিনব ভাবনা!

রাজ্যের কর্মসংস্থান নিয়ে মন্তব্য করে ফের বিতর্কে জড়ালেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব দেব। রাজ্যের ক্ষমতায় আসার পর থেকেই একের পর এক বেফাঁস মন্তব্য করে দেশের মধ্যে সবথেকে বেশি সমালোচিত রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব বিপ্লব দেব। কখনো তিনি মহাভারতের সময় ইন্টারনেটের তত্ত্ব, ডায়না হেডেন এমনকি বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করতেও পিছপা হননি ত্রিপুরার এই মুখ্যমন্ত্রী।

অবশ্য সরকারি চাকরি পাওয়া নিয়ে এটাই তাঁর প্রথম বিতর্কিত মন্তব্য নয়,আগেও তিনি মোদীর পকোড়া শিল্পের অনুকরণে তিনি রাজ্যের বেকারদের পান বিক্রি করার পরামর্শ দিয়েছিলেন। এবার ফের রাজ্যের ক্রমবর্ধমান বেকারত্ব এবং অপুষ্টি রুখতে গরু দানের ঘোষণা করলেন বিপ্লব দেব।

রাজ্যের প্রায় পাঁচ হাজার পরিবারের কর্মসংস্থানের স্বার্থে দশ হাজার গরু বিলি করার দাবী জানান ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী। তবে এর আগেই রাজ্যের বাসিন্দাদের গো-পালনের পরামর্শ দেন বিপ্লববাবু। এমনকি নিজেও সরকারি আবাসনে গো-পালন করবেন বলে একটি সংবাদ সংস্থাকে জানান সম্প্রতি।

মুখ্যমন্ত্রীর বক্তব্য,দু হাজার মানুষকে চাকরি দিতে গেলে রাজ্য সরকারকে দশ হাজার কোটি টাকা বিনিয়োগ করতে হবে। এই মুহূর্তে সরকারের পক্ষ থেকে তা করা সম্ভব হচ্ছে না। তার বদলে পাঁচ হাজার পরিবারকে দশ হাজার গরু বিলি করলে এর সুরাহা মিলতে পারে। কারণ গো-পালনের মাধ্যমে প্রত্যেকটি পরিবার ছয় মাসের মধ্যেই উপার্জন করতে শুরু করবে। এই উপার্জনের লক্ষ্যমাত্রাকে সামনে রেখেই গরু বিলি করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে ত্রিপুরা সরকার।

উল্লেখ্য,রাজ্যের ক্রমশ বেড়ে চলা বেকারত্ব নিয়ে এমনিতেই অসন্তোষের শিকার চাকরিপ্রার্থীরা। তার উপর রাজ্যসরকারই দফায় দফায় কর্মসংস্থান নিয়ে এ ধরনের বিতর্কিত মন্তব্য করে তাদের ক্ষোভের পারদকে আরো চড়া করে তুলছে। প্রতিবারের মতো এবারও তাকে নিয়ে সমালোচনার ঝড় উঠে গিয়েছে বিরোধীমহলে।

ফেসবুকের কিছু টেকনিকাল প্রবলেমের জন্য সব খবর আপনাদের কাছে পৌঁছেছে না। তাই আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

 

এবার থেকে প্রিয় বন্ধুর খবর পড়া আরো সহজ, আমাদের সব খবর সারাদিন হাতের মুঠোয় পেতে যোগ দিন আমাদের হোয়াটস্যাপ গ্রূপে – ক্লিক করুন এই লিঙ্কে

বিতর্কিত মন্তব্য করার জন্যে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীও একবার তাকে দিল্লি ডেকে পাঠিয়েছিলেন সতর্ক করতে। সামনেই লোকসভা ভোট। এই মুহূর্তে কর্মসংস্থানের প্রেক্ষিতে এধরণের বিতর্কিত মন্তব্য বিজেপির ভোটব্যাঙ্কে খরার কারণ হতে পারে। কিন্তু কোনোকিছুতেই ভ্রুক্ষেপ নেই বিপ্লব দেবের। নিজস্ব স্টাইলে নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করেই ফেললেন।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!