এখন পড়ছেন
হোম > আন্তর্জাতিক > ভারতের আর্থিক শ্রীবৃদ্ধি নিয়ে আশাবাদী স্বয়ং পৃথিবীর ধনীতম ব্যক্তি বিল গেটস! জানুন বিস্তারিত

ভারতের আর্থিক শ্রীবৃদ্ধি নিয়ে আশাবাদী স্বয়ং পৃথিবীর ধনীতম ব্যক্তি বিল গেটস! জানুন বিস্তারিত

 

2014 সালে বিপুল সংখ্যাগরিষ্ঠতা নিয়ে ক্ষমতায় এসেছিল কেন্দ্রের মোদি সরকার। তবে তারপর দেশের অর্থনীতি ভেঙে পড়েছে বলে মাঝেমধ্যেই দাবি করা দেখা যেত বিরোধী রাজনৈতিক দলগুলোকে। কিন্তু বিরোধীদের পক্ষ থেকে এই দাবি করা হলেও দ্বিতীয়বারের জন্য সদ্যসমাপ্ত লোকসভা নির্বাচনে আরও বেশি আসন নিয়ে ক্ষমতায় বসেছে ভারতীয় জনতা পার্টি।

আর দ্বিতীয়বার কেন্দ্রের ক্ষমতায় বসার পর থেকেই অযোধ্যা মামলা, 370 ধারা প্রত্যাহার সহ একাধিক বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে শুরু করেছে কেন্দ্রীয় সরকার। যার পেছনে দেশের অর্থনীতির কালো অন্ধকারকে ঘোরাতেই কেন্দ্র এই সিদ্ধান্ত নিচ্ছে বলে দাবি করেছে বিরোধী দলগুলো। আর এই পরিস্থিতিতে বিরোধীদের সেই দাবিকে কার্যত খারিজ করে খুব দ্রুত ভারতের আর্থিক বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানিয়ে দিলেন বিশ্বের ধনকুবের বিল গেটস।

জানা গেছে, নিজের স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা “বিল ও মেলিন্ডা গেটস ফাউন্ডেশনের” কাজের গতি খতিয়ে দেখতে তিন দিনের ভারত সফরে রয়েছেন এই বিশিষ্ট সমাজকর্মী। আর ভারতের একটি সংবাদসংস্থাকে সাক্ষাৎকার দিতে গিয়েই তিনি ভারত সম্পর্কে এহেন আশাব্যঞ্জক মন্তব্য করেন।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।


আপনার মতামত জানান -

ভারতের অর্থনীতির প্রভূত সম্ভাবনার কথা তুলে ধরে মাইক্রোসফটের সহ-প্রতিষ্ঠাতা বলেন, “অদূর ভবিষ্যতের ব্যাপারে আমার জানা নেই। তবে আগামী দশকে ভারতের খুব দ্রুত বৃদ্ধির সম্ভাবনা রয়েছে। যা দেশবাসীর দারিদ্র্য দূর করবে। সরকার স্বাস্থ্য এবং শিক্ষার ওপর জোর দিয়ে সংশ্লিষ্ট ক্ষেত্রে লগ্নি করবে।”

আর বিশ্বের ধনকুবেরের এহেন বক্তব্য এখন ভারত সরকারকে যেমন আশা যোগাচ্ছে, ঠিক তেমনই দেশবাসীর মধ্যে প্রবল উদ্দীপনার সৃষ্টি করেছে বলে মনে করছে একাংশ। এদিন বিল গেটস বলেন, “আধারের মাধ্যমে পরিচয় পত্র যাচাই এবং আর্থিক লেনদেনে ইউপিআই ব্যাপকভাবে ব্যবহৃত হচ্ছে। আর সেখান থেকেই বেশ কিছু ভালো শিক্ষালাভ হচ্ছে।”

আর যদি বিল গেটসের এই ধারণা যদি সত্যি হয়, তাহলে দেশের অর্থনীতি নিয়ে বিরোধীদের দাবি যেমন ধুলিস্যাৎ হবে, ঠিক তেমনই ভারত সরকার তাদের অর্থনৈতিক সিদ্ধান্তকে আরও এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবে বলেই মত বিশেষজ্ঞদের। এখন বিশ্বের ধনকুবেরের কথা অনুযায়ী আগামী দশকে ভারত অর্থনৈতিক দিক থেকে ঠিক কতটা শক্তিশালী হয়, সেদিকেই তাকিয়ে সকলে।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!