এখন পড়ছেন
হোম > বিশেষ খবর > ব্যাপক রদবদল হতে চলেছে বিজেপির জেলা নেতৃত্ত্বে, কারা সড়ছেন? কারা আসছেন?

ব্যাপক রদবদল হতে চলেছে বিজেপির জেলা নেতৃত্ত্বে, কারা সড়ছেন? কারা আসছেন?

পঞ্চায়েত ভোটে রাজ্যের প্রধান দলের শিরোপা পেয়ে যেতেই এবার রাজ্যের শাসকের আসনে বসার তোড়জোড় শুরু হয়ে গেল গেরুয়া শিবিরের অন্দরে। আর সেই দিকে লক্ষ্য রেখেই এবার বিজেপির জেলা নেতৃত্ত্বে ব্যাপক বদল হতে চলেছে সূত্রের খবর। বিজেপি সূত্রে জানা যাচ্ছে, গত বুধবার বিধাননগরে এক দাপুটে নেতার বাড়িতে সাধারণ সম্পাদক ও অঞ্চল পর্যবেক্ষকদের নিয়ে একটি বৈঠক করেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। সেখানেই সিদ্ধান্ত হয়েছে জেলাস্তরে তো বটেই বড়সড় রদবদল হতে চলেছে বুথস্তর পর্যন্ত নীচুতলাতেও। বিজেপি ওই সূত্রের আরো দাবি এই নিয়ে দিলীপ ঘোষ কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাশ বিজয়বর্গীয়র সঙ্গে আগেই আলোচনা সেরে নিয়েছেন এবং এই ব্যাপারে তাঁর সবুজ সংকেতও পাওয়া গেছে।

বিজেপি সূত্রে আরো জানা যাচ্ছে, পঞ্চায়েত নির্বাচনে বেশ কিছু দলীয় কর্মী কোনোরকম পদে না থেকেও ‘জান-লড়িয়ে’ ও ‘মাটি-কামড়ে’ পড়ে থেকে জয় এনে দিয়েছেন গেরুয়া শিবিরকে। তাঁদেরকে ইতিমধ্যেই চিহ্নিতকরণের কাজ শুরু হয়ে গেছে। শীঘ্রই ‘ভালো কাজের পুরস্কার’ পেতে চলেছেন তাঁরা। এইসব নবীন প্রজন্মের উদ্যমী কর্মীদের সঙ্গেই বিভিন্ন কমিটিতে স্থান পেতে চলেছেন এলাকায় স্বচ্ছ ভাবমূর্তির বিজেপি মনোভাবাপন্ন বিশিষ্ট ব্যক্তিরা। তবে, দলীয় সূত্রে আরো জানা যাচ্ছে, শাসকদলের ‘মারের ভয়ে’ অনেকে ঘরে ঢুকে বসে ছিলেন। বিভিন্ন কমিটির নেতৃত্ত্বে থাকা এইসব নেতারা সামনে থেকে নেতৃত্ত্বের বদলে ‘ভয়ে ঘরে ঢুকেছিলেন’। এমনকি, যেসব এলাকায় সেভাবে সন্ত্রাস হয় নি, সেখানেও অনেকে ‘অহেতুক’ ‘সন্ত্রাস’ চলছে বলে নিজেরা তো ঘর থেকে বেরোনই নি, এমনকি অন্যান্য উদ্যমী-কর্মীদেরও ‘অযথা ভয় দেখিয়ে’ ঘরে রেখে দিয়েছিলেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক রাজ্য নেতার কথায়, এইসবের ফলে উত্তর ও দক্ষিণ ২৪ পরগনা, পূর্ব মেদিনীপুর ও হুগলিতে ভালো ফলের সম্ভবনা থাকলেও – তা কাজে লাগানো যায় নি। তাই সেইসব নিষ্ক্রিয় নেতাদেরও নাকি চিহ্নিত করা হয়েছে। নতুন কমিটিতে এইসব নেতাদের তো স্থান হবেই না, এমনকি দল থেকেও বহিষ্কারের কথা ভাবা হচ্ছে বলে জানা গেছে। এমনিতেই বেকারত্ব ও শিক্ষাঙ্গনে দুর্নীতি নিয়ে রাজ্যের যুবসমাজ বর্তমান সরকারের উপর ক্ষিপ্ত বলে গেরুয়া শিবিরের আভ্যন্তরীন রিপোর্টে উঠে এসেছে, তার উপরে পঞ্চায়েত নির্বাচনে দেখা গেছে এই নতুন প্রজন্মই পাল্টা লড়াইটা শাসক শিবিরকে দিয়েছে। ফলে আপাতত এই নবীন প্রজন্মকে আরো বেশি করে সংগঠনের মধ্যে ঢুকিয়ে নতুন রক্তসঞ্চার করে ঝাঁপিয়ে পড়তে চাইছে গেরুয়া শিবির।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!