এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মেদিনীপুর > মহিষাদলবাসীর জন্য আগামী ক্রিসমাসের আগেই বড়সড় “উপহার” ঘোষণা পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর

মহিষাদলবাসীর জন্য আগামী ক্রিসমাসের আগেই বড়সড় “উপহার” ঘোষণা পরিবহনমন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারীর

এবার মহিষাদলের জন্য বড়সড় ঘোষণা করলেন রাজ্যের পরিবহন ও পরিবেশ মন্ত্রী শুভেন্দু অধিকারী। সূত্রের খবর, মহিষাদলের ৭৪ তম গান্ধী মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে মহিষাদলে একটি পূর্ণাবয়ব গান্ধী মূর্তি বসানোর কথা ঘোষণা করেন শুভেন্দুবাবু। আর মন্ত্রীর এহেন কথায় খুশির হাওয়া ছড়িয়ে পড়েছে এলাকাবাসীর মধ্যে। জানা যায়, ১৯৪৫ সালের ২৫ শে ডিসেম্বর মহিষাদলে এসেছিলেন মহাত্মা গান্ধী।

আর তাই প্রতিবছর ২৫ শে ডিসেম্বর এখানে গান্ধীজীর উপর আলোচনা চক্র, নানা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের পাশাপাশি একটি মেলারও আয়োজন করা হয়। সেই মেলার উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসে শুভেন্দু অধিকারী বলেন, “আগামী বছর ২৫ শে ডিসেম্বর মহিষাদলে একটি পূর্নাবয়ব গান্ধী মূর্তির উদ্বোধন করা হবে”। এদিনের এই অনুষ্ঠানে শুভেন্দু অধিকারী ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন এইচডিএর সিইও বিভূ গোয়েল, হলদিয়ার মহকুমাশাসক কুহক ভূষন, পুরসভার চেয়ারম্যান শ্যামলকুমার আদক সহ অন্যান্যরা।

ফেসবুকের কিছু টেকনিক্যাল প্রবলেমের জন্য সব আপডেট আপনাদের কাছে সবসময় পৌঁচ্ছাছে না। তাই আমাদের সমস্ত খবরের নিয়মিত আপডেট পেতে যোগদিন আমাদের হোয়াটস্যাপ বা টেলিগ্রাম গ্রূপে।

১. আমাদের Telegram গ্রূপ – ক্লিক করুন
২. আমাদের WhatsApp গ্রূপ – ক্লিক করুন
৩. আমাদের Facebook গ্রূপ – ক্লিক করুন
৪. আমাদের Twitter গ্রূপ – ক্লিক করুন
৫. আমাদের YouTube চ্যানেল – ক্লিক করুন

প্রিয় বন্ধু মিডিয়ায় প্রকাশিত খবরের নোটিফিকেশন আপনার মোবাইল বা কম্পিউটারের ব্রাউসারে সাথে সাথে পেতে, উপরের পপ-আপে অথবা নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

আপনার মতামত জানান -

জানা যায়, হলদিয়ার পর্যটকদের আকর্ষণের জন্য এবারে পুরসভার পক্ষ থেকে একটি ক্রিসমাস ফেস্টিভ্যালেরও আয়োজন করা হয়েছে। যেখানে পার্কস্ট্রিটের “বো ব্যারাক” এর আদলে সাজিয়ে তোলা হয়েছে হলদিয়ার গোটা এলাকা। এছাড়াও রাস্তার দু’পাশে আলোর রোশনাই, সান্তা ক্লজদের অভ্যর্থনা, রবীন্দ্র-নজরুলের গানে এক অন্য অনুভূতিতে ভাসছে গোটা এলাকা।

জানা গেছে, ক্রিসমাস ফেস্টিভ্যাল উপলক্ষে হলদিয়া সিটি সেন্টার মোড় থেকে উন্নয়ন ভবন পর্যন্ত চার লেনের রাস্তার দু’পাশ দিয়ে রঙিন আলো বেষ্টিত পরিবেশ তৈরি করা হয়েছে। এছাড়াও প্রতিদিন থাকছে নানা সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সব মিলিয়ে বড়দিনে এক নতুন রূপে, নতুন সাজে হলদিয়া। আর পাশাপাশিই শুভেন্দু অধিকারীর ঘোষণায় নতুন করে উদ্দীপনা এলাকাবাসীর।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!