এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > কিসের ‘রাজনৈতিক প্রতিহিংসা’ ফের মুখ খুললেন ভারতী ঘোষ

কিসের ‘রাজনৈতিক প্রতিহিংসা’ ফের মুখ খুললেন ভারতী ঘোষ

একসময়ের মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে “মা” বলা ভারতী ঘোষের বাড়িতে ও তাঁর ঘনিষ্ঠ পুলিশ অফিসারদের বাড়িতে ক্রমাগত সিআইডি হানার পর তিনি আবার মুখ খুললেন। তাঁর আইনজীবী পিনাকী ভট্টাচার্য দাবি করেছেন যে ভারতীদেবী তাঁর কাছে ক্ষোভ, দুঃখের কথা জানিয়েছেন। এদিন কলকাতার এক নামি ওয়েবপোর্টালের খবর অনুযায়ী ক্রমাগত সিআইডি হানায় ভারতীদেবী রীতিমতো ‘দুঃখিত’ও ‘স্তম্ভিত’ ,আর এই কথা তিনি তাঁর আইনজীবীকে জানিয়েছেন। পিনাকীবাবুর দাবি,ভারতীদেবী দুঃখের সাথে তাঁকে বলেছেন ‘জঙ্গলমহলকে শান্ত করতে আমি এত কিছু করেছি, আর তার এই প্রতিদান’! পাশাপাশি ভারতীদেবী বলেছেন শুধু ২ টাকা কেজি-র চাল বিলি করে কিন্তু জঙ্গলমহলে শান্তি ফেরেনি, ওই তল্লাট স্বাভাবিক হয়নি। তাঁকে প্রচুর পরিশ্রম করতে হয়েছে সেই জন্য। সরকারের অসংখ্য নীতি রূপায়ণে তিনিই মুখ্য ভূমিকা নিয়েছেন।সরকারের বহু সিদ্ধান্ত তিনি প্রায় একার হাতে কার্যকর করেছেন। সেই তাঁকে সরকার এই প্রতিদান দিল। পিনাকীবাবু আরো বলেন যে ‘‘ম্যাডাম (ভারতী ঘোষ) স্তম্ভিত হয়ে আমাকে বলেছেন যে, এমনটাও হতে পারে! এফআইআরে তাঁর স্বামী বা তাঁর নাম না থাকা সত্ত্বেও যে ভাবে সিআইডি’কে রাজ্য সরকার তাঁর ও তাঁর পরিবারকে হেনস্থা করার কাজে লাগাচ্ছে, তাতে ম্যাডাম দুঃখ পেয়েছেন। সেটা আমাকে বলেছেন তিনি।’’পিনাকীবাবু জানান যে ভারতীদেবী মনে করছেন যে সরকার ‘রাজনৈতিক প্রতিহিংসা’ চরিতার্থ করতেই তাঁকে ও তাঁর পরিবারকে হেনস্থা করার পথ নিয়েছে। আর তাই সরকার বা সিআইডির এই তল্লাশিকে বেআইনি দাবি করছেন ভারতীদেবী। আর তার জন্যই তিনি কলকাতা হাইকোর্টে অভিযোগ দায়ের করবেন। কিন্তু প্রতিহংসা কেন নেবেন সেই প্রশ্ন করা হলে পিনাকীবাবু জানান যে ‘‘ভাল কাজ করা সত্ত্বেও কম গুরুত্বপূর্ণ পদে বদলির সরকারি সিদ্ধান্ত অন্য সরকারি অফিসারদের মতো তিনি মুখ বুজে মেনে নেননি। এক রকম প্রতিবাদ জানিয়ে অবসর নিয়েছেন। তিনি যে এত বড় পদক্ষেপ করলেন, এটা সরকার মেনে নিতে পারছে না। তাই তাঁকে ও তাঁর পরিবারকে নানা ভাবে হেনস্থা করা হচ্ছে।’’এমনকি এদিন পিনাকীবাবু সিআইডির াণ অভিযোগকেও নস্যাৎ করে বলেছেন যে ‘‘চাকরি করার সময়ে ভারতী দেবী এই সব সম্পত্তি বানিয়েছিলেন। তিনি সরকারের কাছে সে সবের খতিয়ানও দেন। মুকুন্দপুরের পাঁচটি ফ্ল্যাট-সহ কিছু সম্পত্তি ভারতী দেবীর স্বামী তাঁকে গিফ্‌ট ডিড করে দিয়েছেন।’’প্রিয়বন্ধু বাংলার তরফেও এই খবরের সত্যতা যাচাই করে দেখা সম্ভব হয় নি। এই প্রবন্ধ সম্পূর্ণরূপে ওই পোর্টালে প্রকাশিত খবরের পরিপ্রেক্ষিতে করা, কোনোভাবেই রাজনৈতিক উদ্দেশ্যপ্রণোদিত নয় বা কোনো ব্যক্তি বা দলের সম্মানহানির উদ্দেশ্যে রচিত নয়।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!