এখন পড়ছেন
হোম > রাজ্য > মুখ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ চেয়ে সুর চড়াতে শুরু করল বিজেপি, প্রয়োজনে দাবি সিবিআই তদন্তের

মুখ্যমন্ত্রীর পদত্যাগ চেয়ে সুর চড়াতে শুরু করল বিজেপি, প্রয়োজনে দাবি সিবিআই তদন্তের

বৃহস্পতিবার কলকাতার রাস্তায় সমবেত হয়ে বিজেপির দলের কর্মী – সমর্থকেরা শহরে এই মুহূর্তের চাঞ্চল্যকর ঘটনা ভাগাড় কান্ডে উপযুক্ত তদন্তের দাবিতে সিবিআই হস্তক্ষেপের আর্জি জানালো। শুধু তাই নয়  একই সঙ্গে, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং কলকাতা পুরসভার মেয়র তথা মন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায়ের পদত্যাগের দাবিও উঠল। কেবলমাত্র বিজেপিই নয় এদিন রাস্তায় নেমে প্রতিবাদে সামিল হয় কংগ্রেসের ছাত্র সংগঠন। বিজেপি দলীয় সদস্যেরা এ দিন ধর্মতলা থেকে কলকাতা পুরসভা পর্যন্ত বিক্ষোভ মিছিল করে।

আরো খবর পেতে চোখ রাখুন প্রিয়বন্ধু মিডিয়া-তে

মিছিল থেকে ভাগাড় কান্ডে নিজের প্রতিক্রিয়া জানিয়ে রাজ্য বিজেপির সাধারণ সম্পাদক রাজু বন্দ্যোপাধ্যায় বললেন, ”আমরা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও কলকাতা পুরসভার মেয়র শোভন চট্টোপাধ্যায়ের পদত্যাগ দাবি করছি।” ইতিমধ্যে ভাগাড়কাণ্ডে স্পেশাল ইনভেস্টিগেশন টিম (সিট) গঠন করেছে রাজ্য। এই সিটকে কটাক্ষ করে রাজ্য বিজেপির এই সাধারণ সম্পাদক বলেন, ”এটা স্পেশাল ইনভেস্টিগেশন টিম নয়। এটা হল স্পেশাল ইনভেস্টিগেশন অফ তৃণমূল কংগ্রেস।”  এছাড়াও একপ্রকার অভিযোগের সুরে তিনি বললেন, ”ভাগাড়কাণ্ডের পিছনে পুলিশ ও তৃণমূল নেতাদের বিশাল বড় চক্র যুক্ত রয়েছে। একটা মাফিয়া রাজ চলছে। মুখ্যমন্ত্রী তো বলছেন, রাজ্যে শিল্প এসেছে। ভাগাড়ের মাংস বড় শিল্পের উদাহরণ। এই শিল্পের সঙ্গে তৃণমূলের অনেক নেতা জড়িত। তাই আমরা ঘটনার সিবিআই তদন্তের দাবি জানাচ্ছি।” এদিন দুপুরে ভাগাড়কাণ্ডের প্রতিবাদের জেরে মৌলালির মোড়ে ছাত্র পরিষদ পথ অবরোধ করে। এরফলে ১৫ মিনিটের জন্যে ঐ এলাকার যান চলাচল বিঘ্নিত হয়। আন্দোলনকারীরা এর পরে বিক্ষোভ মিছিল করে কলকাতা পুরসভায় গিয়ে স্মারকলিপি জমা দেন। রাজ্য সরকার ও কলকাতা পুরসভা কে কার্যত কাঠগোড়ায় দাঁড় করিয়ে ছাত্র পরিষদের রাজ্য সভাপতি সৌরভ প্রসাদ বললেন, ”এটা ভাগাড়কাণ্ড নয়, আসলে ভাগাড় চক্র। শাসকদল তৃণমূলের অনেকেই জড়িত। ওরা মানুষের খাদ্যদ্রব্য নিয়েও নোংরামি করছে। আমরা উপযুক্ত তদন্তের দাবি জানাচ্ছি।”  ভাগাড় কান্ডে বিরোধীদের আনা যাবতীয় অভিযোগ ফুৎকারে উড়িয়ে কলকাতা পুরসভার স্বাস্থ্য বিভাগের মেয়র পরিষদ অতীন ঘোষ বললেন, ”ইতিমধ্যে এই ঘটনায় কয়েকজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। গঠন করা হয়েছে সিট। জেলায় জেলায়ও এই বিষয়ে রেস্তোরাঁ, হোটেলে অভিযান অব্যাহত আছে। আসলে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নেতৃত্বে রাজ্য উন্নয়নের জোয়ার বইছে। ফলে বিরোধীদের কাছে কোনও ইস্যু নেই। ওরা জনগণ থেকেও বিচ্ছিন্ন। তাই রাস্তায় নেমে মিথ্যা কুত্‍সা করছে। পঞ্চায়েত ভোটে মানুষ এর যোগ্য জবাব দেবেন।”

Top
error: Content is protected !!