এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > প্রথম বাঙালি প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন ‘কারণ’ সহ আরো উস্কে দিলেন মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস

প্রথম বাঙালি প্রধানমন্ত্রীর স্বপ্ন ‘কারণ’ সহ আরো উস্কে দিলেন মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস

রাণিগঞ্জে এসে ‘সেফ ড্রাইভ সেভ লাইফ’ অনুষ্ঠানে যোগ দিতে এসে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্তুতি বন্দনায় মাতলেন যুব ও পূর্ত দপ্তরের মন্ত্রী অরূপ বিশ্বাস। বললেন,উন্নয়নের স্বার্থে দেশের মানুষ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে চাইছেন। একমাত্র তৃণমূল কংগ্রেসের প্রতিনিধিরাই জনগনের হিতের জন্য কাজ করেন। তাই যে কোনো উন্নয়ণের জন্যে মমতা বন্দ্যেপাধ্যায়ের উপর ভরসা করার পরামর্শ দিলেন অরূপবাবু। এদিন মঞ্চে অরূপ বাবুর সঙ্গেই উপস্থিত ছিলেন আসানসোলের মেয়র জিতেন্দ্রনাথ তেওয়ারি, দুর্গাপুরের মেয়র দিলীপ অগস্থি, জেলাশাসক শশাঙ্ক শেঠি, পুলিশ কমিশনার লক্ষীনারায়ণ মিনা সহ জেলার দলীয় প্রতিনিধিরা। উল্লেখ্য,তিনি এদিন চেম্বার অব কমার্সের একটি কর্মসূচিতেও যোগদান করেন। এবং তাঁর হাত দিয়েই শিলান্যাস হয় একটি ভবনের।

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়ণের গান গাওয়ার পাশাপাশি ক্রমবর্ধমান মূল্যবৃদ্ধির ইস্যু তুলে কড়া ভাষায় আক্রমণ করলেন বিজেপি সরকারকে। বললেন,নরেন্দ্র মোদী প্রধান মন্ত্রীর কুর্সিতে বসার আগে প্রতিশ্রুতি দিয়েছিলেন ‘আচ্ছে দিন’ আনার, প্রতিবছর ২ কোটি বেকার ছেলে মেয়েকে চাকরি দেওয়ার,কালো ধন ফিরিয়ে আনার,সেই প্রতিশ্রুতির কী হল? প্রশ্ন ছুঁড়ে দেন মন্ত্রীর। পাল্টা যুক্তিতে মোদীঘনিষ্ট ব্যবসায়ীরা নীরব মোদী,বিজয় মালিয়ার প্রসঙ্গ তুলে কড়া ভাষায় নিন্দা করলেন প্রধান মন্ত্রীর। সঙ্গে তুলে ধরেন দেশের মানুষের অভাব,দারিদ্র,ভোগান্তির কথা। বলেন আমরা উন্নয়ন করে মানুষের মন জয় করেছি। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অপর নাম উন্নয়ন। ‘মন কি বাত’ শুনে লাভ নেই। পেটের ভাত চাই। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ছাড়া গরিব মানুষের উপকার কেউ করতে পারবে না।

পাশাপাশি এটাও জানান, তৃণমূল কংগ্রেসের একমাত্র লক্ষ্য এখন উন্নয়ন করা। সবুজসাথী,কন্যাশ্রীর মতো প্রকল্পের হাত ধরে কত মানুষের যে উপকার হয়েছে সেটাও বলেন মন্ত্রী। বলেন,দরিদ্র সীমার নীচে থাকা মানুষগুলোকে রাজ্যসরকারের ২ টাকা কেজি দরে চাল দেওয়ার কথাও। তৃণমূলের উন্নয়ণের রথ আরো এগিয়ে নিয়ে যেতে পারেন মুখ্যমন্ত্রী। তার জন্য সাধারণ মানুষের আরো সমর্থন দরকার বলেই বক্তব্যে জানালেন অরূপ বাবু। উল্লেখ্য,এদিন তিনি প্রথমে চেম্বার অব কমার্সের প্রতিনিধিদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন। মনোযোগ সহকারে শোনেন তাঁদের সমস্যার কথা। চেম্বার কমার্সের তরফ থেকে তাকে জানানো হয় এগ্রি মার্কেটিং ট্যাক্স প্রত্যাহার করার কথা। তাঁদের দাবীগুলো নিয়ে কোলকাতায় বৈঠক করবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন তৃণমূলের এই হেভিওয়েট নেতা।

আপনার মতামত জানান -
Top
error: Content is protected !!