এখন পড়ছেন
হোম > জাতীয় > বাংলায় প্রথম দফার ভোটে বড় অশান্তি না হলেও “ছাপ্পা” রুখতে সব বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনীর দাবি জোরালো হল

বাংলায় প্রথম দফার ভোটে বড় অশান্তি না হলেও “ছাপ্পা” রুখতে সব বুথে কেন্দ্রীয় বাহিনীর দাবি জোরালো হল

Priyo Bandhu Media


বড় কোনো অশান্তির ঘটনা না হওয়ায় বেশ শান্তিপূর্ণভাবেই সমাপ্ত হল রাজ্যের প্রথম দফায় আলিপুরদুয়ার ও কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের নির্বাচন। এদিন কোচবিহার শহর, কোচবিহার উত্তর, নাটাবাড়ি ও তুফানগঞ্জে কার্যত উৎসবের পরিবেশেই এই সাধারন মানুষদের ভোটদান করতে দেখা যায়। তবে বাংলায় নির্বাচন হচ্ছে, আর বিক্ষিপ্ত অশান্তি হবে না তা কি কখনও হয়! তাই মোটের ওপর এই প্রথম দফার লোকসভা নির্বাচনে আলিপুরদুয়ার ও কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রে শান্তিপূর্ণ হলেও কিছু বিক্ষিপ্ত অশান্তির ঘটনা এদিন লেগেই ছিল।

সূত্রের খবর, এদিন সকাল থেকেই দিনহাটার নয়ারহাট গ্রাম পঞ্চায়েতের রসামন্তায় শাসক দল তৃণমূল ও বিরোধী দল বিজেপির মধ্যে সংঘর্ষের ঘটনায় বেশ কয়েকজন জখম হয় বলে জানা গেছে। পাশাপাশি মাতালহাটে বোমাবাজির ঘটনা ঘটলে পুলিশের বিরুদ্ধে নিষ্ক্রিয়তার অভিযোগ তুলে বিজেপি কর্মীরা পথ অবরোধ করে বলে খবর। অন্যদিকে তৃণমূল ভোটারদের প্রভাবিত করছে বলে কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিক অভিযোগ করলে তাকে ঘিরে শাসক দলের কর্মী সমর্থকরা প্রবল বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করে।

অন্যদিকে ওকড়াবাড়িতে ডাঙ্গারপাড় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একটি বুথে তৃণমূলের তিনজন এজেন্ট, বড়শৌলমারী সিঙ্গিমারি 6/212 বুথে ইভিএম মেশিন ভাঙচুর এবং বেশ কয়েকটি বুথে বিরোধীদের এজেন্ট থাকতে না দেওয়ার অভিযোগ ওঠে শাসকদলের বিরুদ্ধে। অন্যদিকে তুফানগঞ্জের ধলপলে এলাকায় বিজেপির বুথ কার্যালয়ে ভাঙচুর চালানোর অভিযোগ ওঠে শাসকদলের বিরুদ্ধে। এছাড়াও বিভিন্ন বুথে ইভিএম খারাপ হওয়ার জন্য ভোটগ্রহণ দেরি এবং শাসকদলের বিরুদ্ধে বিভিন্ন বুথে ছাপ্পা দেওয়ার অভিযোগ তুলে সরগরম হয় কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের এই রাজনৈতিক লড়াই।

WhatsApp-এ প্রিয় বন্ধু মিডিয়ার খবর পেতে – ক্লিক করুন এখানে

আমাদের অন্যান্য সোশ্যাল মিডিয়া গ্রূপের লিঙ্ক – টেলিগ্রামফেসবুক গ্রূপ, ট্যুইটার, ইউটিউব, ফেসবুক পেজ

আমাদের Subscribe করতে নীচের বেল আইকনে ক্লিক করে ‘Allow‘ করুন।

এবার থেকে আমাদের খবর পড়ুন DailyHunt-এও। এই লিঙ্কে ক্লিক করুন ও ‘Follow‘ করুন।



আপনার মতামত জানান -

জানা যায়, এদিন সকাল থেকেই নাটাবাড়িতে বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে কখনো কমিশন, কখনও ইভিএম আবার কখনও বা কেন্দ্রীয় বাহিনীর বিরুদ্ধে তোপ দাগতে দেখা যায় জেলা তৃণমূল সভাপতি তথা মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষকে। পাল্টা বেশকিছু বুথে রাজ্য পুলিশ দিয়ে নির্বাচন হওয়া এবং সেখানে কেন্দ্রীয় বাহিনী না থাকায় শাসকদলের বিরুদ্ধে ছাপ্পা করানোর অভিযোগ তুলে সন্ধ্যায় কোচবিহার পলিটেকনিকের ডিসিআরসিতে কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের বিজেপি প্রার্থী নিশীথ প্রামাণিকের ধরনায় বসাকে কেন্দ্র করে ব্যাপক উত্তেজনার সৃষ্টি হয়। পাশাপাশি কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রের বাম প্রার্থী গোবিন্দ রায়ের গাড়িও ভাঙচুর করা হয় বলে জানা গেছে। তবে কোচবিহার লোকসভা কেন্দ্রে কিছুটা বিক্ষিপ্ত অশান্তি ঘটনা ঘটলেও আলিপুরদুয়ারে এদিনের নির্বাচন প্রক্রিয়া পুরোটাই শান্তিপূর্ণ ছিল বলে খবর।

তবে বেশ কিছু জায়গায় কেন্দ্রীয় বাহিনী না থাকায় কুমারগ্রাম ব্লকের খোয়ারডাঙার সাতটি বুথে শাসক দল তৃণমূলের বিরুদ্ধে ছাপ্পা ভোট দেওয়ার অভিযোগ তোলে বিরোধীরা। অন্যদিকে ভিভিপ্যাড মেশিন বিকল হয়ে যাওয়ায় কিছুটা দেরিতেই ভোটগ্রহণ পর্ব শুরু হয় এই আলিপুরদুয়ার লোকসভা কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী দশরথ তিরকির নিজের বুথ কুমারগ্রাম টি গার্ডেনের প্রাথমিক বিদ্যালয়ে।

তবে দিনের শেষে তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা তার উপরে চড়াও হয়েছে বলে অভিযোগ করেন বিজেপি প্রার্থী জন বারলা এবং ওই বুথে ফের পুননির্বাচনের দাবি জানান এই আলিপুরদুয়ার লোকসভা কেন্দ্রের আরএসপি প্রার্থী মিলি ওরাও। সব মিলিয়ে রাজ্যের প্রথম দফার লোকসভা নির্বাচন শান্তিপূর্ণভাবে সমাপ্ত হলে বিক্ষিপ্ত অশান্তিতে কিছুটা হলেও উত্তপ্ত হয়ে উঠল কোচবিহার এবং আলিপুরদুয়ার।

আপনার মতামত জানান -

Top
error: Content is protected !!